• বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পূর্ব শত্রুতার জেরে খাবার হোটেলসহ ডেন্টাল ক্লিনিকে ভাঙচুর

  মো. শাকিল শেখ, আশুলিয়া (ঢাকা)

০২ অক্টোবর ২০২২, ১৫:১৭
পূর্ব শত্রুতার জেরে খাবার হোটেলসহ ডেন্টাল ক্লিনিকে ভাঙচুর

সাভারের আশুলিয়ায় মার্কেট মালিকের সাথে পূর্ব শত্রুতার জেরে হামলা-ভাঙচুর করেছে প্রতিপক্ষ। এ সময় জাহান ডেন্টাল কেয়ার ও আল্লাহর দান হোটেল নামের দুটি প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাঙচুর করা হয়। এতে উভয় পক্ষের পাঁচজন আহত হন। এই ঘটনায় আশুলিয়া থানায় পাল্টা-পাল্টি দুটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার (১ অক্টোবর) রাতে অভিযোগ দুটির বিষয়টি নিশ্চিত করেন আশুলিয়া থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) মাসুদ আল মামুন। এর আগে শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার আদর্শ সুপার মার্কেটে হামলার ঘটনাটি ঘটে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ বলছে, আমাদের ডিউটি টাইম শুরু হলে থানা থেকে বের হয়ে জামগড়া চৌরাস্তা পৌঁছালে কয়েকজন পোলাপান লাঠিসোঁটা নিয়ে গাড়ি ভাঙচুর করছিল। পরে সাথে থাকা সঙ্গীও ফোর্স নিয়ে তাদের ধাওয়া দিলে সাথে সাথেই ঘটনাস্থল ত্যাগ করে ভাঙচুরকারীরা। আশেপাশে দোকানদারদের কাছে জানতে পারি জামগড়াস্থ রনি ভূঁইয়া ও সুমন মীরদের দু'পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় আদর্শ সুপার মার্কেটের দোকান পাটসহ হোটেল, ডেন্টাল এবং অপর দিকে তমিজ উদ্দিন মার্কেটের ঔষধদের দোকান ভাঙচুর করা হলে সেখানে পুলিশ মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

উভয়ই পক্ষের বেশ কয়েক জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে স্থানীয় ভর্তি করান। দুপক্ষই পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে।

আদর্শ সুপার মার্কেটের মালিক বকুল ভুঁইয়া জানান, জামগড়া এলাকার তমিজ উদ্দিন মীরের ছেলে সুমন মীরের সাথে তাদের পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জেরে শুক্রবার রাতে সুমন মীরের সহযোগী শাহীন, ইমরান, আইয়ুব, রশিদ এবং সোহানসহ অজ্ঞাতনামা আরও ২০/২৫ জন তার জামগড়াস্থ আদর্শ সুপার মার্কেটে হামলা চালায়।

তিনি বলেছেন, এ সময় মার্কেটের ব্যবসায়ীদের এলোপাতাড়ি মারপিট করতে থাকে। এক পর্যায়ে মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় থাকা জাহান ডেন্টাল কেয়ারের ডেন্টাল চেয়ার, থাই গ্লাস, এসি ও সাইনবোর্ড ভাংচুর করে প্রায় দুই লাখ টাকার ক্ষতি সাধন করে। পরে তারা একই তলায় থাকা আল্লাহর দান হোটেলে ভাংচুর চালায় এবং ক্যাশে থাকা ৩৫ হাজার টাকা লুট করে। এরপর নীচে গিয়ে একটি সুতার দোকানের সাটারে রাম দাঁ দিয়ে কুপিয়ে এবং ভেতরে ঢুকে সুকেচ ভাংচুর করে।

তিনি আরও বলেন, এরপর বাধা দিতে গেলে মারুফ নামের তার চাচাতো ভাইকে এলোপাতাড়ি মারধর করতে থাকে। এক পর্যায়ে তার বাম হাতে চাকু দিয়ে কুপ দেয়। এছাড়া ডেন্টাল কেয়ারে চিকিৎসা নিতে আসা একজন আহত হয়েছেন। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে আসতে থাকলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এরপর তিনি রাতেই আশুলিয়া থানায় সুমন মীরকে প্রধান এবং আরও পাঁচজনকে আসামি করে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এ দিকে অভিযুক্ত সুমন মীর বলেন, বকুল ভুঁইয়ার ছেলে রনি ও তার লোকজন তার মালিকানাধীন ইন্টারনেটের লাইন বিভিন্ন সময়ে কেটে ফেলে। এর প্রতিবাদ করলে রনি ও তার লোকজন মিলে আমার কর্মচারীদের উপর হামলা করে কুপিয়ে আহত করে। আহতদের মধ্যে রাব্বি, মোছা ও ছানীকে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া তাদের মার্কেটে একটি ফার্মেসীসহ চারটি দোকান ভাঙচুর করেছে রনি গংরা। এ ঘটনায় রাতেই তার ম্যানেজার শাহীন ১৫ জনকে আসামি করে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার ওসি (অপারেশন) আব্দুর রাশিদ বলেন, ভাঙচুরের ঘটনায় দু'পক্ষের অভিযোগ নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমাদের তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- inbox.[email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড