• বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ৬ কার্তিক ১৪২৮  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কয়রায় নকল প্রসাধনী বিক্রির হিড়িক

  ওবায়দুল কবির সম্রাট, কয়রা (খুলনা)

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:২৪
খুলনা
ছবি : সংগৃহীত

খুলনার কয়রা উপজেলায় বিভিন্ন বিদেশি ব্র্যান্ডের নকল প্রসাধনীর বিক্রি বাড়ায় বড় ধরনের স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রয়েছেন স্থানীয় প্রসাধনী ব্যবহারকারীরা। ক্ষতিকর কেমিক্যাল দিয়ে তৈরি এসব প্রসাধনী ব্যবহারে অনেকেই নানা ধরনের চর্মরোগ এবং ক্যানসারে আক্রান্ত হচ্ছেন। আর এসব নকল পণ্য বিক্রি করে আর্থিক ফয়দা লুটে নিচ্ছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। প্রতারিত হচ্ছেন অনেকে। এমন অভিযোগ ভুক্তভোগীদের।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সরেজমিন গিয়ে উপজেলা সদর, বেদকাশী, গিলাবাড়ি,আমাদী, ঘুগরাকাটিসহ বিভিন্ন বাজারে বেশ চড়া দামে এসব নামিদামি নকল ব্র্যান্ডের প্রসাধনী বিক্রির চিত্র দেখা যায়। নকল হওয়ায় অনেক সময় দরকষাকষি করে সাধারণ দোকানগুলোতে নির্দিষ্ট মূল্যের চেয়ে বেশ কম দামে বিক্রি করছেন বিক্রেতারা।

কয়রা সদরে প্রসাধনী হাতে তাকিয়া সুলতানা পেশায় গৃহিণী এই নারী বলেন,‘ ফগের বডি স্প্রে কিনেছি। প্রসাধনীর গায়ে ২৬০ টাকা মূল্য লেখা থাকলেও আমার কাছ থেকে দোকানি ২১০ টাকা নিয়েছে। কম দামে পেয়েছি তাই এখান কিনলাম। পণ্য নকল না আসল এটা বোঝার তো উপায় নেই।

প্রসাধনী ব্যবসায়ী ও কর্মচারী অনেকের সাথে কথা হলে তারা জানান, কাস্টমার ধরে রাখতে হলে একটু ছাড় দিয়েই বিক্রি করতে হয়। এটা ব্যবসায়িক কৌশল। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, লস কেন হবে। কেনার সময় আমরাও তো কিছু ছাড় পাই।

কয়রা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও প্রসাধনী ব্যবসায়ী আসাদুল ইসলাম বলেন, বাজারে অনেক আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছে। আসল প্রসাধনী কম দামে বিক্রির কোনো সুযোগ নেই। নামি-দামি ব্র্যান্ডের পণ্য নকল করে বাজারে বিক্রি হচ্ছে। কম দামে এসব পণ্যই বিক্রি হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বাজারে জনপ্রিয় পণ্য বিশেষ করে পেনটেইন, হেড অ্যান্ড শোল্ডার, সানসিল্ক, গার্নিয়ার শ্যাম্পু, ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী, বিভিন্ন ব্যান্ডের স্কিন ক্রিম, নেভিয়ার ক্রিম,হ্যাভক, ফগ, এক্স, পন্ডস, ভ্যাসলিন, বডি স্প্রে, নামি ব্র্যান্ডের বডি লোশন উল্লেখযোগ্য। এছাড়া দৈনন্দিন আরও অনেক প্রসাধনী নকল করে বাজারে ছাড়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে, উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাস জানান, নকল প্রসাধনী বিক্রয়ের বিরুদ্ধে অভিযান চলমান আছে, ইতিমধ্যে কয়েকজন ব্যবসায়ীকে জরিমানাও করা হয়েছে৷ এরকম কোনো অভিযোগ পেলে অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ওডি/এফই

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড