• বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শ্রীপুরের হাটে বিক্রি হচ্ছে কোটি টাকার বাঁশ 

  আব্দুর রউফ রুবেল, গাজীপুর

২০ জুন ২০২১, ১১:১৯
শ্রীপুরের হাটে বিক্রি হচ্ছে কোটি টাকার বাঁশ 
শ্রীপুরের হাটে বিক্রি হচ্ছে বাঁশ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের শীতলক্ষ্যা নদীর পাড় ঘেঁষা হাটে বিক্রি হয় কোটি টাকার মূল্যমানের বাঁশ। জনশ্রুতি রয়েছে, আশেপাশের কয়েকটি উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে বড় বাঁশের হাট হচ্ছে এটি। পুরনো এই হাটে বিভিন্ন জেলা থেকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা বাঁশ কিনতে আসেন।

বর্তমানে শ্রীপুরের বাঁশ স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিক্রি করা হচ্ছে। প্রতি মাসে এখানে প্রায় দেড় কোটি টাকার বাঁশ কেনা-বেচা হয়।

জানা যায়, গাজীপুরের বিভিন্ন অঞ্চলের মাটি বাঁশ চাষের জন্য বেশ উপযুক্ত হওয়ায় এখানে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন প্রজাতির বাঁশের চাষ হচ্ছে। যদিও এই বাঁশ আবাদের তেমন কোনো খরচ নেই বললেই চলে। একবার বাঁশের চারা লাগালে চার থেকে পাঁচ বছর পর তা থেকে বাঁশ কাটা যায়। প্রতিটি মাঝারি ঝাড় থেকে বছরে ৫০ থেকে ৭০টি বাঁশ পাওয়া যায়।

শীতলক্ষ্যা নদীর পাড়ে প্রায় ১০ বিঘা জায়গায় বসে এই হাট। সরেজমিনে দেখা যায়, এখানে প্রতি হাটবার ছাড়াও প্রতিদিনই চলে বাঁশ কেনাবেচা। কেউ বাঁশ কিনতে ব্যস্ত, কেউ বাঁশ ট্রলারে সাজাতে ব্যস্ত, কেউবা বাঁশের আটি বেধে নদীতে ভাসাতে কাজ করছে।

আরও পড়ুন : গাজীপুরে জমে উঠেছে কাঁঠালের বাজার

প্রতিদিন ভোর হতে বিভিন্ন উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসতে শুরু করে বিভিন্ন প্রজাতির বাঁশ। ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা ঈশ্বরদী, শান্তাহারসহ বিভিন্ন জেলার ক্রেতারা এখানে বাঁশ কিনতে আসেন। বিভিন্ন জেলা থেকে আসা ব্যবসায়ীরা সেই বাঁশ নদী পথে জেলার বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যায়।

যদিও কিছু কিছু ব্যবসায়ীরা সড়ক পথেও বাঁশ আনা-নেওয়া করেন। এছাড়া বাঁশ পরিবহনের সবচেয়ে জনপ্রিয় বাহন হলো নদীতে ভাসিয়ে নিয়ে যাওয়া।

ঘর তৈরি, পানের বরজ, সবজি চাষের মাচা, মাছ ধরার সরঞ্জাম, বাঁশের তৈরি নানা ধরনের আসবাব থেকে শুরু করে আধুনিক ডেকরেটরদের বিভিন্ন কাজে বাঁশের ব্যবহার এসব অঞ্চলে খুবই জনপ্রিয় হওয়ায় ব্যবসায়ীরা এখান থেকে বাঁশ ক্রয় করে নিজেদের হাটে বিক্রি করে আবার ফিরে আসে বাঁশ কিনতে।

এখানে বাঁশের দাম নাগালের মধ্যে থাকায় সকল ক্রেতারা খুশি। গোসিংগা গ্রামের এই বাঁশের হাটটি এলাকার বেকারদের জন্য করে দিয়েছে কর্মসংস্থানের সুযোগ।

আরও পড়ুন : হারিয়ে যাচ্ছে ‘গাড়িয়াল ভাই’ ও গরু-মহিষের গাড়ি

প্রতিদিন অন্তত কয়েকশো দিনমজুর এখানে কাজ করে। কেউ করে বাঁশ ট্রলারে উঠানোর কাজ, কেউবা করে বাঁশের স্তূপ সাজানোর কাজ, আবার কেউবা করে দুর-দূরান্ত থেকে আসা বাঁশ পরিবহন থেকে নামানোর কাজ, কেউ করে বাঁশ বাঁধার কাজ।

স্থানীয় পাইকাররা গ্রামের ইসলাম উদ্দিন বলেন, আমি প্রায় ৩৫ বছর যাবৎ এই বাঁশের ব্যবসা করে আসছি। অঞ্চলের সবচেয়ে বড় বাঁশের হাট।আকার ভেদে প্রতিটি বাঁশ দেড়শ থেকে সাড়ে ৩শ টাকা পর্যন্ত পাইকারি বেচা-কেনা হয়। প্রতি মাসে এখান থেকে এক থেকে দেড় কোটি টাকার বাঁশ বিক্রি হচ্ছে।

নরসিংদী থেকে আসা পাইকার আশরাফ আলী বলেন, গোসিংগা হাট থেকে প্রতি বুধবার ৫০ থেকে এক লাখ টাকার বাঁশ ক্রয় করি। নরসিংদী আমাদের নিজের আড়ত রয়েছে সেখানে নিয়ে বিক্রি করি। প্রতি হাটে কমপক্ষে ২৫ লক্ষাধিক টাকার বাঁশ কেনাবেচা হয় এ হাটে। মাসে প্রায় এক কোটি টাকার বাঁশ কেনা-বেচা হয় বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন : বরমী বাজারের দুঃখ যেন কেন্দুয়া ব্রিজ

নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা ব্যবসায়ী খোরশেদ বলেন, আমরা দীর্ঘদিন যাবৎ এখান থেকে বাঁশ ক্রয় করে নিয়ে বিভিন্ন জেলায় বিক্রি করে থাকি এতে আমাদের ভালো লাভ হয়।

ওডি/কেএইচআর

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড