• শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কুড়িগ্রামে মাশরুম চাষে ভাগ্য বদল

  হুমায়ুন কবির সূর্য, কুড়িগ্রাম

১৭ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৩৩
ছবি : দৈনিক অধিকার

করোনার মহামারিতে কুড়িগ্রামের প্রত্যন্ত এলাকায় মাশরুম চাষ করে বেশ সারা ফেলেছে যুবক আমিনুল ইসলাম মিলন। উত্তরের এই জনপদে মাশরুম চাষ করে সাফল্য পাওয়ায় অনেকেই আগ্রহী হয়ে উঠছেন। মাশরুম বাজারজাত করা এবং মাশরুমের উপকারিতা প্রচার বৃদ্ধি পেলে জেলার অর্থনৈতিক উন্নয়ন মাশরুম বড় ভূমিকা রাখবে বলে অভিমত বিশিষ্টজনদের।

জানা যায়, কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার আন্ধারীরঝাড় সড়ক কাটা গ্রামের বাসিন্দা আমিনুল ইসলাম মিলন। করোনার প্রভাবে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে করা চাকরিটি হারান। এরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মাশরুম চাষ বিষয়ে জানতে পেরে গত নভেম্বর মাসে বগুড়ায় মাশরুম চাষের উপর ১৫দিনের প্রশিক্ষণ নেন। ডিসেম্বরে প্রায় সোয়া লাখ টাকা খরচ করে অবকাঠামো তৈরি করে ৬শ মাশরুম স্পন দিয়ে শুরু করেন উৎপাদনের কাজ। ফেব্রুয়ারিতেই মাশরুমের প্রথম ফলনেই প্রায় ৮০হাজার টাকার মাশরুম বিক্রি করেছেন তিনি। ফলে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। বর্তমানে তার মাশরুমের স্পন রয়েছে প্রায় ১২শটি। একটি স্পন ১৫-২০ দিনের মধ্যেই মাশরুম উৎপাদন শুরু হয় যা তিনমাস পর্যন্ত উৎপাদন করা সম্ভব।

কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ ও উদ্ভিদ বিভাগের প্রধান প্রফেসর মীর্জা নাসির উদ্দিন জানান, মাশরুম একটি মৃতজীবী ছত্রাক জাতীয় উদ্ভিদ। এর মধ্যে রয়েছে আমিষ, শর্করা, চর্বি, ভিটামিন এবং মিনারেলের সমন্বয়। মাশরুম শরীরের কোলেস্টেরল কমায়, হৃদরোগ ও উচ্চ রক্তচাপ নিরাময় করে।

এছাড়াও মাশরুমে প্রচুর শিশুদের দাঁত ও হাড় গঠনে অত্যন্ত কার্যকারী। মাশরুম খেলে রক্ত শূন্যতা দূর হয়। ক্যান্সার, টিউমার প্রতিরোধ করে। ডায়াাবেটিস রোগীদের জন্য মাশরুম আদর্শ খাবার। এটি সরকারি-বেসরকারিভাবে বাজারজাত করা গেলে জেলায় মাশরুমের চাষ আরও বৃদ্ধি পাবে। এতে করে দারিদ্র পীড়িত খ্যাত জেলায় কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি অর্থনৈতিক উন্নয়নে বেশ অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

চাষি আমিনুল ইসলাম মিলন জানান, স্থানীয়রা মাশরুম খাবার সম্পর্কে তেমনটা অবগত নন। এখন মাশরুম চাষ পদ্ধতি, খাবার এবং এর উপকারিতা সম্পর্কে জানতে পারছেন। মাশরুম চাষে স্থানীয় বেশ কয়েকজনের খন্ডকালিন কাজের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে ঢাকা, সিলেট, বগুড়া, রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকজন এসে মাশরুম নিয়ে যাচ্ছে। স্থানীভাবেও প্রতিবেশীসহ বন্ধুরা মাশরুমের প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে বেশ মাশরুম বিক্রি হচ্ছে।

কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপপরিচালক মো. মঞ্জুল ইসলাম জানান, মাশরুম একটি পুষ্টিকর খাবার। রোগ প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা পালন করে। সাধারণ মানুষ এটি তরকারি হিসেবে খেতে পারবেন। বর্তমানে অনলাইনের মাধ্যমে আমিনুল ইসলাম মিলন মাশরুম বাজারজাত করছেন। আমিনুলের সাফল্য দেখে অনেকেই মাশরুম চাষে উদ্বুদ্ধ হচ্ছেন বলে তিনি জানান।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড