• শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর মুখে ফরিদা

  আতিক, ঝালকাঠি

০৯ এপ্রিল ২০২১, ১৭:৪৪
ইদ্রিস
ইদ্রিস মোল্লার স্ত্রী ফরিদা বেগম (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার মনোহরপুর গ্রামের ইদ্রিস মোল্লার স্ত্রী ফরিদা বেগম (৪০) গত বছরের ১০ নভেম্বর রাজাপুর সোহাগ ক্লিনিকে জরায়ুর সমস্যা নিয়ে ভর্তি হন। ফরিদা বেগমের এইচবিএসএজি পজিটিভ থাকার পরেও ১১নভেম্বর ওই ক্লিনিকে জরায়ু অপারেশন করেন ডা. নাসরিন সুলতানা।

অপারেশনের ৫দিন পরে তাকে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ ছাড়পত্র দেন। রোগীর সুস্থতার পরিবর্তে আরও দিন দিন অবনতির দিকে ধাবিত হতে থাকে শারীরিক অবস্থার। পরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের চিকিৎসক (প্রসূতি ও স্ত্রী রোগ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক) ডা. শাহ আলম তালুকদারকে দেখালে চিকিৎসায় ভুল ধরা পড়ে। ক্লিনিক মালিক আহসান হাবিব সোহাগ’র কাছে বিষয়টি জানালে তিনি নিজ খরচে উন্নত চিকিৎসা করানোর প্রতিশ্রুতি দিয়ে সময় ক্ষেপণ করতে থাকেন। ৩মাস অতিবাহিত হলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে ক্লিনিক মালিক সোহাগ’র কাছে গিয়ে পুনরায় চিকিৎসা সহায়তার আবেদন জানান ফরিদা বেগমের স্বামী ইদ্রিছ মোল্লা। তখন সোহাগ ঢাকা মেডিকেল কলেজ ফিস্টুলা সেন্টার/বিবিএফ যাবার পরে ফোন দিতে বলেন। উক্ত চিকিৎসার ব্যয়ভার বহনের কথা উল্লেখ করলে চিকিৎসার টাকা দিতে অপারগতা স্বীকার করে থানায় গিয়ে পারলে মামলা করতে ধৃষ্টতা দেখান আহসান হাবিব সোহাগ। জরায়ু টিউমার অপারেশন করাতে গিয়ে চিকিৎসকের অদক্ষতায় এখন মৃত্যু পথযাত্রী ফরিদা বেগম। উপায়হীন হয়ে ফরিদা বেগমের স্বামী ইদ্রিস মোল্লা ঝালকাঠি সিভিল সার্জন বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

ইদ্রিস মোল্লা বলেন, আমি অশিক্ষিত মানুষ। ডাক্তার যেভাবে ভালো বুঝেছেন সেভাবেই অপারেশন করেছেন। আমার স্ত্রীর এইচবিএসএজি পজিটিভ থাকার পরেও ডা. অপারেশন করেছেন। একারণে তার অপারেশন স্থলে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। পরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের চিকিৎসক (প্রসূতি ও স্ত্রী রোগ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক) ডা. শাহ আলম তালুকদারকে দেখালে চিকিৎসা ব্যবস্থায় ভুল ধরা পড়ে। তখন বুঝতে পারি ডাক্তার অদক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। বর্তমানে রাজাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে চিকিৎসাধীন আছে। সিভিল সার্জনের কাছে দেয়া অভিযোগের যথাযথ বিচার দাবিও করেন তিনি।

এ ব্যাপারে সোহাগ ক্লিনিকের মালিক আহসান হাবিব সোহাগ জানান, রোগী ভর্তি করানোর পরে অপারেশন সফলভাবেই সম্পন্ন হয়েছে। ৩মাস পরে অপারেশন স্থলে সমস্যা কথা নিয়ে এলে তাদের উন্নত চিকিৎসা নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এখন তারা আমার উপরে সম্পূর্ণ দায়ভার চাপাতে চেষ্টা করছেন। এর দায় আমার না বলে সাফ জানিয়ে দেন তিনি।

ওডি/হাসান

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড