• বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মসজিদে বিস্ফোরণ, গ্রেফতার আতঙ্কে মসজিদ কমিটি

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:২০
মসজিদ
ছবি: দৈনিক অধিকার

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার তল্লাস্থ বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনায় এ পর্যন্ত ৯জনকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। বিস্ফোরণের ঘটনায় প্রশাসনের বিভিন্ন দফতর তদন্ত করছে। এতে জেলা প্রশাসন, তিতাস, ফায়ার সার্ভিসের পৃথক তদন্তে মসজিদ কমিটির লোকজনদের গাফলতির বিষয়টি উঠে এসেছে।

এরই মধ্যে সিআইডি জানিয়েছে, ঘটনার সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

বিস্ফোরণে ইতোমধ্যে ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর মিছিলে মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক হান্নান সাউদ ও কোষাধ্যক্ষ জেলা প্রশাসনের কর্মচারী শামীম হাসান নিহত হয়েছেন। তিতাসের প্রকৌশলীসহ ৯ জন গ্রেফতারের পর এবার আতঙ্কে রয়েছেন মসজিদ পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দ। এমনটি জানিয়েছে একটি সূত্র।

গত ৪ সেপ্টেম্বর রাতে বায়তুস সালাত জামে মসজিদে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ইতোমধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি ৪০ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন জমাও দিয়েছেন। পৃথক প্রতিবেদন জমা দিয়েছে তিতাস গ্যাস কোম্পানি ও ফায়ার সার্ভিস। প্রতিবেদনে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে সৃষ্ট আগুন যা তিতাসের গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে মসজিদের ভিতরে জমা হয়েছিল বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ঘটনার কয়েকদিন পর মসজিদের পাশে মাটি খুঁড়ে তিতাস গ্যাস লাইনের সংযোগে ৬টি লিকেজ পাওয়া যায়। প্রতিবেদনগুলোতে মসজিদ কমিটির লোকজনদের গাফলতির বিষয়টিও উল্লেখ করা হয়েছে। পুলিশের কাছ থেকে মামলাটি সিআইডিতে যাওয়ার পর পরই ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়। সিআইডির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যারা যেভাবেই ঘটনার সাথে জড়িত তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। এতেই মসজিদ কমিটির অনেকেই আতঙ্কে আছেন বলে জানিয়েছেন মসজিদ কমিটির সভাপতি আব্দুল গফুর।

আরও জানা গেছে, মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে তিতাসকে গ্যাস লিকেজ হওয়ার বিষয়ে অবগত করা হয়েছিল এমন কোনো অভিযোগও তিতাসের ফাইলে পাওয়া যায়নি। সে ক্ষেত্রে লিকেজ সারাতে তিতাস কর্তৃপক্ষ ৫০ হাজার টাকা চেয়েছিল তারও কোনো যথার্থ প্রমান মসজিদ কমিটি দিতে পারেনি বলেও জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট সূত্র।

অপরদিকে, তিতাসে অভিযোগের পর যে ব্যাক্তি ৫০ হাজার টাকা উৎকোচ চেয়েছে তার নাম,পদবি,ফোন নাম্বার মসজিদ কমিটির লোকজন দিতে পারেনি। স্থানীয় কমিশনার,মসজিদের মুসল্লিসহ স্থানীয় বাসিন্দাদের সাক্ষাৎকারেও এমন তথ্য পায়নি তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। মসজিদ কমিটির সভাপতি তিতাস সম্বন্ধে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা অসত্য বলে দাবী করছে তিতাস।

শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সিআইডির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির ডিআইজি মাইনুল হাসান বলেছিলেন, তিতাস, বিদ্যুৎ বিভাগ, স্থানীয় মসজিদ কমিটির অবহেলা আছে কিনা সেই বিষয়গুলো আমরা তদন্ত করে দেখছি। আমরা বিভিন্ন বিষয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছি, স্থানীয় লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। এছাড়া অন্যান্য সাক্ষ্য প্রমাণ সংগ্রহ করেছি। সেসবের ভিত্তিতে তিতাসের স্থানীয় যে কর্মকর্তা-কর্মচারী ছিলেন তাদের মধ্যে ৮ জনকে আমরা গ্রেফতার করেছি। এই তদন্ত কাজ চলাকালে আরও যে ব্যক্তিবর্গের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য-প্রমাণ পাওয়া যাবে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হবে।

অপরদিকে, শনিবার রাতে গ্রেফতার করা হয় মোবারেক হোসেন নামে পশ্চিম তল্লা এলাকার স্থানীয় বিদ্যুৎ মিস্ত্রিকে। মোবারেক সিআইডিকে জানিয়েছেন মসজিদে দুটি সংযোগের মধ্যে একটি ছিল অবৈধ। তিনিই সেই অবৈধ বিদুৎ সংযোগটি দিয়েছিলেন। এই সংযোগের সাথে কারা কারা জড়িত তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

মসজিদ কমিটির সভাপতি ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য আব্দুল গফুর গনমাধ্যমকে বলেন, শনিবার সকালে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইলেকট্রিক মিস্ত্রি মোবারেককে ডেকে নিয়েছিল সিআইডি। পরে তিনি জানতে পেরেছেন তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। মসজিদ কমিটির অন্যরাও গ্রেফতারের আতঙ্কে রয়েছে বলেও তিনি জানান। তিনি আরও জানান, ডিপিডিসিকে জানিয়ে গত রোজায় মসজিদ কমিটি অপর একটি বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়েছিলেন। সব মসজিদই এমন কাজ করেন বলেও তিনি গনমাধ্যমে দাবী করেন।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড