• বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫ আশ্বিন ১৪২৭  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ফরিদপুর শহররক্ষা বাঁধ ভেঙে চরম দুর্ভোগ

  সারাদেশ ডেস্ক

২৭ জুলাই ২০২০, ২২:৫৯
ফরিদপুর শহর রক্ষা বাঁধ
ফরিদপুর শহর রক্ষা বাঁধ

ফরিদপুরে বন্যা পরিস্থিতির আবার অবনতি ঘটছে। গত ২৪ ঘণ্টায় গোয়ালন্দ পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি চার সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে সোমবার বিপৎসীমার ১১৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

ফরিদপুর সদরের আলীয়াবাদ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আখতারুজ্জামান বলেন, আলিয়াবাদ ইউনিয়নের সাদীপুরের বিল গজারিয়া এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের শহর রক্ষা বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ৪৫ মিটার অংশ ভেঙে গেছে।

সোমবার বিকাল ৪টার দিকে বাঁধের ওই অংশ ভেঙে পড়ে। ফলে তীব্র বেগে ওই অংশ দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। বাঁধের ওই অংশে গত ১৯ জুলাই ৮০ মিটার ভেঙে যায়। বালু ভর্তি জিও ব্যাগ দিয়ে সেই ফাটল বন্ধ করা হয়। সেই জায়গায় আবারও এই ৪৫ মিটার জায়গা পানির তোড়ে ভেঙে যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফরিদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ বলেন, প্রকৃতির শক্তির কাছে আমরা অসহায় হয়ে পড়েছি। গত ১৯ জুলাই থেকে কাজ করেও বাঁধটি টিকিয়ে রাখতে পারিনি। এখন পানি উন্নয়ন বোর্ডের ডিজাইন বিভাগকে ডেকে পাঠানো হয়েছে। তাদের পরামর্শ নিয়ে পরবর্তী কর্মপন্থা নির্ধারণ করা হবে।

এদিকে অব্যাহতভাবে পদ্মার পানি বৃদ্ধির ফলে ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে গত কয়েকদিনে উপজেলার চারটি ইউনিয়নের প্রায় সব এলাকা প্লাবিত হওয়ার পাশাপাশি বন্যা পরিস্থিতির ব্যাপক অবনতি হয়েছে। সেই সঙ্গে নিমজ্জিত ও পানি বন্দি হয়ে পড়েছে প্রায় ১৫ হাজার পরিবারের মানুষ।

চরম দুর্ভোগে থাকা চরাঞ্চল ও বিভিন্ন এলাকার পানিবন্দি মানুষ গরু ছাগলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামাল নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন বেড়িবাঁধ, হেলিপ্যাড ও আশ্রয়কেন্দ্রের উচু স্থানে আশ্রয় নিয়ে মানবেতর দিন কাটাচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে উপজেলার বিভিন্ন কাঁচা-পাকা সড়ক। বন্যাকবলিত কয়েকটি এলাকা ঘুরে দেখা যায় বাড়ি ঘর পানিতে ডুবে যাওয়ায় উপজেলার বিভিন্ন উচু স্থানে গবাদি পশু ও পরিবার পরিজন নিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন এসব এলাকার বাসিন্দার।

চর ঝাউকান্দা ইউনিয়নের চর কল্যাণপুর লস্কর ডাঙ্গী হতে আসা দুটি পরিবার সুখজান (৫০) ও নাছিমা আক্তার (৪৫) এর সাথে কথা বলে জানা যায় বাড়িতে পানি ওঠায় জীবন বাঁচাতে ২৫জুলাই শনিবার ১৫টি গরু ও ৮টি ছাগল নিয়ে হেলিপ্যাডে আশ্রয় নিয়েছে তারা। দিনে দিনে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় গো-খাদ্য সংকটের পাশাপাশি নানা সমস্যায় রয়েছে তারা।

পানিবন্দি পরিবারের বিষয়ে এই উপজেলার চারটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা জানান, উপজেলার প্রায় সব গ্রামসহ নদী তীরবর্তী পরিবার ও বেড়িবাঁধের ভেতর বাহির মিলে প্রায় ১৫ হাজার পরিবার পানিবন্দি রয়েছে। চরভদ্রাসন সদর ইউনিয়নে পাঁচ হাজার পরিবার পানিবন্দি রয়েছে। এ পর্যন্ত এক হাজার ৪৫০ পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। উপজেলার প্রধান কয়েকটি সড়ক বাদে কাঁচা ও পাকা সড়ক বিভিন্ন স্থানে ক্ষতি হয়েছে বলে জানান চেয়ারম্যান আজাদ খান।

গাজিরটেক ইউনিয়নের নিমজ্জিত তিন হাজার পরিবার ও এক হাজার ৫০০ পরিবার পানিবন্দি রয়েছে। এইসবিবি সড়ক ১৪টি, ১৭টি কাঁচা রাস্তা ও কয়েকটি কালভার্ট ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া এ পর্যন্ত ১৩৫০ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে বলে জানান চেয়ারম্যান ইয়াকুব আলী।

চরঝাউকান্দায় নিমজ্জিত রয়েছে ১১০০ পরিবার। এইচবিবি চারটি ও কাঁচা আটটি সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত ত্রাণ পেয়েছে ৮৭৫ পরিবার।

চরহরিরামপুরে নিমজ্জিত তিন হাজার ৬০০ পরিবার। এ পর্যন্ত এক হাজার ৬০০ পরিবারে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। আশ্রয় কেন্দ্র ও গুচ্ছগ্রামে আশ্রয় নিয়েছে অনেক পরিবার। চরাঞ্চলে স্যানিটেশন, গো খাদ্য সংকট ও বিশুদ্ধ খাবার পানির সমস্যা দেখা দিয়েছে।

চরভদ্রাসন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আলভীর হোসেন জানান, বন্যায় এ পর্যন্ত ৫৩০ হেক্টর জমির ফসল ক্ষতি হয়েছে। এর মধ্যে আউস-২০৮ হেক্টর, বোনা আমন-২১০, সবজি-৩০, বীজতলা-৭ ও রোপা আমন রয়েছে ৭৫ হেক্টর।

চরভদ্রাসনের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেসমিন সুলতানা বলেন, সরকারিভাবে বন্যার্তদের সাহায্যের জন্য পর্যাপ্ত ত্রাণ মুজুদ রয়েছে। বন্যার্তদের মাঝে আমাদের শুকনা খাবার, শিশু খাদ্যসহ ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত আছে। বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নেয়া মানুষকে সব রকমের সহায়তা করা হচ্ছে। এছাড়া বন্যার্তদের মাঝে পানি রাখার ক্যান, বিশুদ্ধকরন ট্যাবলেট বিতরণের পাশাপাশি গো-খাদ্য সংকট মোকাবেলায় তালিকা তৈরি করে খুব শিগগির সহায়তা দেয়া হবে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাহমুদুল হক বলেন, এ পর্যন্ত বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সরকারি ১০ কেজি হারে ৫০ মেট্রিকটন সহ মোট ৬৯ দশমিক ৫ মেট্রিকটন ত্রাণের চাল বিতরণের পাশাপাশি শুকনা খাবার ১৪১০ প্যাকেট ও গর্ভবতী মায়েদের জন্য ১০০ প্যাকেট শিশু খাদ্য বিতরণ করা হয়েছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801721978664

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড