• সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০, ২২ আষাঢ় ১৪২৭  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

খোকসায় পুলিশের ভূমিকায় এড়ানো গেলো রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ!

  ওবাইদুর আকাশ

২৯ মে ২০২০, ১৭:৩৩
ভাংচুরকৃত বাড়ি
ভাংচুরকৃত বাড়ির একটি অংশ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

কুষ্টিয়ার খোকসায় এক ইউপি সদস্যর বিরুদ্ধে সাবেক ছাত্রলীগ নেতাসহ প্রতিপক্ষের তিনটি বাড়ি ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত ওই ইউপি সদস্যের নাম জিল্লুর রহমান। গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এমন ঘটনা বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে বড় ধরনের সংঘর্ষ এড়াতে ঘটনাস্থল থেকে দুইজনকে আটক করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৯ মে) সকালে এ ভাংচুরের ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার দ্বিধাবিভক্ত আওয়ামী লীগের গ্রুপিংয়ের ছোঁয়া লেগেছে উপজেলার খোকসা ইউনিয়নের রতনপুর গ্রামেও। তারই জের ধরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায় ইউপি সদস্য জিল্লুর রহমানের লোকজন।

শুক্রবার (২৯ মে) সকালে আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি সদস্য জিল্লুর রহমানের উপর হামলা হয়েছে- এমন একটি উড়ো সংবাদে জিল্লু মেম্বারের সমর্থকরা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা তৌহিদুল ইসলাম জুয়েল, খালিদ ও নূর ইসলামের তিনটি বাড়ি ভাংচুর করে।

এ ঘটনায় প্রতিপক্ষের লোকজন জড়ো হতেই ঘটনাস্থলে খোকসা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জহুরুল আলম ও তদন্ত (ওসি) ইদ্রিস আলীর নেতৃত্বে দু‘গ্রুপকে ধাওয়া দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। এ সময় সাচ্চু ও সাদ্দাম নামের দু’জনকে আটক করা হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত খালিদ আলম বিশ্বাসের স্ত্রী দৈনিক অধিকারকে বলেন, সকালে অর্ধশতাধিক নারী-পুরুষ সংঘবদ্ধ হয়ে আমাদের বাড়িতে হামলা চালায়। আমি শব্দ শুনে অন্য বাড়ি থেকে বের হয়েই দেখি আমাদের বাড়িতে হামলা করছে জিল্লু মেম্বারের লোকজন।

এ সময় তার বাড়ি থেকে এক লাখ নগদ টাকাসহ স্বর্ণের গহনা লুটের অভিযোগ করেন।

ছাত্রলীগের সাবেক নেতা তৌহিদুল আলম জুয়েল দৈনিক অধিকারকে বলেন, জিল্লু মেম্বর রাজনৈতিক ভাবে আমাদেরকে ঘায়েল করতে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী আমাদের লোকজনের উপর হামলা করেছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত ইউপি সদস্য জিল্লুর রহমান তার উপর আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি কোনো হামলাই করিনি। ওরাই (প্রতিপক্ষ) নিজেরাই ভেঙে আমাদেরকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।

খোকসা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জহুরুল আলম দৈনিক অধিকারকে বলেন, আমরা ঘটনা শুনেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। তবে এ ঘটনায় কেউ আহত হয়নি। তবে বড় ধরনের সংঘর্ষ হয়তো ঘটতে পারতো। আমাদের পুলিশ সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছে। তবে অভিযোগ দিলেও এখনও মামলা হয়নি। তবে পরিস্থিতি শান্ত করতে ও প্রকৃত ঘটনা জানার জন্য ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করা হয়েছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড