• সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মার্কিন সংবাদমাধ্যমের বিশ্লেষণ

যুক্তরাষ্ট্রের আতঙ্ক ‘আইআরজিসি’

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৯:০৭
আইআরজিসি
আইআরজিসির হামলা (ছবি : দ্য ন্যাশনাল ইন্টারেস্ট)

সাম্প্রতিক সময়ে সামরিক দিক দিয়ে যথেষ্ট শক্তিশালী হয়ে উঠেছে ইরান। মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর মাধ্যমে সোলাইমানি হত্যার সমুচিত জবাব দিয়েছে তারা।

মার্কিন বিশ্লেষকরা মনে করেন, যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশের বিরুদ্ধে লড়ার ক্ষেত্রে ইরানের সবচেয়ে বড় শক্তি দেশটির ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি। এমনকি মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন আধিপত্য দমাতেই এই বাহিনী গড়ে তোলা হয়েছে বলেও মনে করেন অনেক বিশ্লেষক।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ন্যাশনাল ইন্টারেস্টে প্রকাশিত শনিবারের (২২ ফেব্রুয়ারি) এক বিশ্লেষণধর্মী প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১৯৭৯ সালে গড়ে ওঠা আইআরজিসি এখন ইরানের শক্তির কেন্দ্র। আর সেটা সম্ভব হয়েছে জেনারেল কাসেম সোলাইমানির নেওয়া কিছু দূরদর্শী সিদ্ধান্তের কারণে।

বিশ্লেষকরা মনে করেন, যুক্তরাষ্ট্রের মতো বড় সামরিক শক্তির মোকাবিলায় টিকে থাকতে হলে যে কেবল প্রচলিত যুদ্ধের কৌশলে কাজ হবে না তা সোলাইমানি বুঝতে পেরেছিলেন। তাই বিচক্ষণ কিছু সিদ্ধান্তের মাধ্যমে আইআরজিসিকে যথেষ্ট শক্তিশালী করে গড়ে তুলেছেন তিনি।

দ্য ন্যাশনাল ইন্টারেস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মধ্যপ্রাচ্যে এখন মার্কিন আধিপত্য হ্রাস পেয়েছে। আর সেটা আইআরজিসির কারণে। এই বাহিনী যতদিন থাকবে ততদিন আমেরিকা ইরানে হামলা চালানোর কথা চিন্তাও করতে পারবে না।

আরও পড়ুন : ইরানের সঙ্গে যুদ্ধে জড়ালে ইসরায়েলের সঙ্গ ছাড়বে যুক্তরাষ্ট্র!

এর কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, আইআরজিসির সেনারা গত কয়েক দশক ধরে মার্কিনিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুতি নিয়ে আসছেন। মার্কিন কৌশল সম্পর্কে তারা বেশ ভালোভাবেই অবগত। তাই যুক্তরাষ্ট্রের কারণে ইরানের স্বার্থে আঘাত আসলে মুহূর্তেই জবাব দিতে পারবে আইআরজিসি।

ওডি/এসসা

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড