• রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কার্টিলেজে আঘাত পাওয়া কতটা ক্ষতিকর?

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি

১৪ জুন ২০১৯, ০৮:৪২
কার্টিলেজ
ছবি : প্রতীকী

হাড়ের সংযোগস্থলে কুশনের মতো কাজ করে কার্টেলেজ বা তরুণাস্থি। হাড়ের সাথে হাড় যেন শক্তভাবে আঘাত না পায়, মানুষ যেন সহজে হাঁটতে বা দৌড়াতে পারে তা নিশ্চিত করতে তরুণাস্থির বিকল্প হয় না। কিন্তু এর সাথে কোনো স্নায়ু বা রক্তনালী সংযুক্ত না হওয়ায় কোনো কারণে আঘাত পেলে, ভেঙে গেলে তরুণাস্থি ঠিকঠাক হতে অনেক বেশি সময় নেয়। 

বিশেষ করে যদি সমস্যা যদি আর্টিকুলার কার্টিলেজে হয় সেক্ষেত্রে ব্যথা, পঙ্গুত্বের মতো সমস্যার মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। আমাদের কনুই, গোড়ালি, বাহু, পশ্চাৎদেশ, ঘাড় ইত্যাদি স্থানে এই তরুণাস্থি দেখা যায়। এমনিতে বর্তমানে সার্জিকাল ও নন-সার্জিকাল নানা পদ্ধতিতে এই সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। তবে, সচেতন থাকতে ও এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে পড়ে নিন লেখাটি- 

আর্টিকুলার কার্টিলেজ ড্যামেজ কেন হয়?

খুব বড় কোনো আঘাতের কারণে আর্টিকুলার কার্টিলেজ ড্যামেজ হতে পারে। বিশেষ করে খেলাধুলায় নিয়মিত আছেন, এমন কারো ক্ষেত্রে সমস্যাটি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। একইভাবে, অনেকদিন ধরে কোনো শারীরিক কার্যক্রম না করার ফলেও এমনটি হতে পারে। 

মনে করুন, আপনি এমনিতে খুব একটা শরীরচর্চা করেন না। এর ফলে আপনার শরীরের পেশিগুলো চাপ নেওয়ার মতো অবস্থায় থাকবে না। এমন অবস্থায় আপনি হুট করে যদি কোন এক ছুটিতে ভারি কোনো খেলাধুলা শুরু করেন, তাহলে কার্টিলেজে সমস্যা হতে পারে। ওজন বেশি হয়ে গেলেও এমনটা হতে পারে। এই ড্যামেজের কারণে অস্টিওআর্থ্রাইটিসের মতো ঘটনা ঘটতে পারে। 

কার্টিলেজ ড্যামেজ পরীক্ষা করার পদ্ধতিগুলো কী?

লিগামেন্ট ড্যামেজ, স্প্রেইন, কার্টিলেজ ড্যামেজ ইত্যাদির লক্ষণগুলো প্রায় একইরকম হয়ে থাকে। আগে তাই এগুলোকে আলাদা করে বিভক্ত করা প্রায় অসম্ভব ছিল। তবে বর্তমানে নন-ইনভেসিভ কিছু পদ্ধতির মাধ্যমে কার্টিলেজ ড্যামেজ নিয়ে পরীক্ষা করা এবং নিশ্চিত সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব হয়ে পড়েছে। আপনার কার্টিলেজ ড্যামেজ পরীক্ষা করে নিশ্চিত হওয়ার জন্য যে পদ্ধতিগুলো চিকিৎসক অনুসরণ করতে পারেন যেগুলো হলো-

ম্যাগনেটিক রেসোনেন্স ইমেজিং (এমআরআই)-

এই পদ্ধতিতে একটি ম্যাগনেটিক ফিল্ড এবং রেডিও তরঙ্গের মাধ্যমে শরীরের অভ্যন্তরীণ কার্টিলেজ পরীক্ষা করা হয়। তবে এই পদ্ধতিতে সবসময় সমস্যা ধরা পড়ে না।

আর্থ্রোস্কোপি-

এই পদ্ধতিতে হাড়ের সংযোগস্থলে আর্থ্রোস্কোপ নামক একটি যন্ত্র প্রবেশ করা হয়। তরুণাস্থি কতটা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তা জানার জন্য এই পদ্ধতিটি অত্যন্ত কার্যকর। 

কার্টিলেজ ড্যামেজ ঠিক করার উপায় কী?

কার্টিলেজ ড্যামেজ ঠিক করে ফেলার জন্য চিকিৎসকেরা কয়েকটি পদ্ধতি অনুসরণ করেন। সেগুলো হলো-

ইনজেকশন থেরাপি-

এই পদ্ধতিতে খুব দ্রুত ব্যথা চলে যায় এবং রোগী সুস্থ বোধ করেন। তবে তার মানে এই নয় যে, তার সমস্যা ঠিক হয়ে গিয়েছে। এটি মূলত কাউকে সুস্থ করে তোলে না, বরং সাময়িক সুস্থতা প্রদান করে। ভিস্কোসাপ্লিমেন্টেশন বা হাড়ের সংযোগস্থলে নিয়মিত এক ধরনের তরল প্রবেশ করানো, প্লাটিলেট রিচ প্লাজমা দিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত স্থানকে দ্রুত সেরে উঠতে সাহায্য করা এবং স্টিম সেল থেরাপি প্রয়োগ- এই কয়েকটি পদ্ধতিতে ইনজেকশন থেরাপি ব্যবহার করা হয়। 

সার্জারি-

আপনি যদি আপনার সমস্যা খুব দ্রুত এবং পাকাপাকি কোনো সমাধান চান তাহলে সার্জারি আপনার জন্য অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করতে পারে। বয়স, আঘাতের ধরন এবং সময়ভেদে সার্জারি ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে আপনার চিকিৎসক হয় ডিব্রাইডমেন্ট করে আক্রান্ত কার্টিলেজকে বের করে ফেলবেন। অথবা, ম্যারও স্টিমুলেশনের মাধ্যমে আক্রান্ত অংশগুলোকে ঠিক করে দেওয়ার চেষ্টা করবেন। এছাড়াও মোজায়েকপ্লাসটি, আর্থ্রোস্কোপিক নি সার্জারির মতো শরীরের ভিন্ন ভিন্ন অংশের জন্য ভিন্ন পদ্ধতি প্রয়োগ করতে পারেন। 

তবে এক্ষেত্রে সমস্যা থেকে বাঁচতে শুরু থেকেই সাবধানতা অবলম্বন করুন। নিয়মিত শরীরচর্চা করলে এবং স্থূলতা থেকে দূরে থাকলে আপনার কার্টিলেজে কোনো সমস্যাই দেখা দেবে না।

লেখক- ডক্টর চীন পাক লীন, গ্লেনাগ্লেস হসপিটাল।

ওডি/এনএম 

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড