• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৪ কার্তিক ১৪২৮  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

এমবাপের জয়সূচক গোল নিয়ে বিতর্কের ঝড়

  ক্রীড়া ডেস্ক

১১ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৭
ফ্রান্সের পতাকা হাতে কিলিয়ান এমবাপে
ফ্রান্সের পতাকা হাতে কিলিয়ান এমবাপে। (ছবি: সংগৃহীত)

টান-টান উত্তেজনাপূর্ণ ফাইনাল ম্যাচটির বয়স তখন ৮০ মিনিট। ১-১ গোলে বিরাজ করছে সমতা। এ অবস্থা থেকে শিরোপা জিততে পারে যেকোনো দল। জয়সূচক গোল করে মহানায়ক বনে যেতে পারেন যে কেউ।

রবিবার (১০ অক্টোবর) মিলানের ঐতিহাসিক সান সিরোতে উয়েফা নেশনস লিগের শ্রেষ্ঠত্বের মঞ্চের সেই মহানায়ক কিলিয়ান এমবাপে। থিও হার্নান্দেজের দারুণ এক পাসে জাল কাঁপান প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) তারকা। স্পেনকে ২-১ গোলে হারিয়ে প্রথমবার নেশনস লিগের শিরোপা জেতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স।

তবে এমবাপের গোল নিয়ে উঠেছে বিতর্কের ঝড়। স্প্যানিশদের দাবি, অফসাইডে ছিলেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। রেফারিকে গোল বাতিলের অনুরোধও জানান সার্জিও বুসকেটস-সিজার আজপিলিকুয়েতারা।

টিভি রিপ্লেতেও দেখা যায়, থিও হার্নান্দেজ এমবাপ্পের উদ্দেশ্যে বল বাড়ানোর সময় অফসাইডে ছিলেন তিনি। তাহলে কেন বাতিল করা হলো না সেই গোল?

ম্যাচ শেষে এর ব্যাখ্যা দিয়েছেন রেফারি অ্যান্থনি টেলর। ৪২ বছর বয়সী ইংলিশ রেফারি স্পেনের অধিনায়ক বুসকেটসকে জানিয়েছেন, এমবাপে বল রিসিভ করার আগে ছোঁয়া লাগিয়েছিলেন স্প্যানিশ ডিফেন্ডার এরিক গার্সিয়া। ফুটবলের নতুন নিয়মে এটা অফসাইড নয়।

রেফারির এ ব্যাখ্যায় দ্বিমত পোষণ করেছেন বুসকেটস। আরটিভিইকে তিনি বলেছেন, ‘এমবাপে সামনে থাকায় সে (এরিক গার্সিয়া) বল থামাতে চেয়েছিল। সব ডিফেন্ডার সচরাচর যা করে, সেও তাই করেছে। কিন্তু বলটা এমবাপের পায়ে যেতেই অনসাইড হয়ে গেল। এটা অজ্ঞের মতো সিদ্ধান্ত।’

আরও পড়ুন : স্পেনকে হারিয়ে নেশনস লিগ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম রেফারি টেলরকে ধুয়ে দিয়েছেন স্প্যানিশ সমর্থকেরাও। একজন লিখেছেন, ‘অন্ধ রেফারি। এমবাপে যদি অনসাইডে থাকেন, তাহলে কুন্দের (ফরাসি ডিফেন্ডার জুলস কুন্দে) হ্যান্ডবলে কেন স্পেনকে পেনাল্টি দেওয়া হলো না? তার চোখে কি কিছুই পড়েনি?’

ওডি/জেআই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড