• বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৭ ফাল্গুন ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

এশিয়ার শ্রেষ্ঠ স্টেডিয়াম হবে বাংলাদেশে

  ক্রীড়া ডেস্ক

১১ অক্টোবর ২০১৯, ২২:১৩
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম
শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম (ছবি : সংগৃহীত)

রাজধানীর পূর্বাচলে তৈরি হবে দেশের সবচেয়ে বড় স্টেডিয়াম। ‘দ্য বোট শেখ হাসিনা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়াম’ নামের স্টেডিয়ামটিতে থাকবে অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা। সম্প্রতি স্টেডিয়ামটির নকশার জন্য দরপত্র আহ্বান করে বিপুল সাড়া পেয়েছে বিসিবি।

দেশের সবচেয়ে বড় এ স্টেডিয়ামটির নির্মাণকাজ ২০২১ সালের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। স্টেডিয়ামের সম্পূর্ন খরচ বহন করবে বিসিবি। এছাড়া এ স্টেডিয়ামটির দর্শক ধারণক্ষমতা হবে ৫০ হাজার। স্টেডিয়ামটির সঙ্গে তৈরি করা হবে ইনডোর একাডেমি, সুইমিংপুল ও জিমনেশিয়াম।

বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) বিসিবি কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু বিপিএল নিয়ে আগ্রহী পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে আলোচনায় বসে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বিসিবি পরিচালক মাহবুব আনাম। সেখানে তিনি ‘শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের কাজের অগ্রগতি নিয়েও কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম নির্মাণে আমরা আর্কিটেক্ট ফার্ম নিয়োগের ব্যাপারে দরপত্র আহ্বান করেছি। প্রায় দুই ডজনের বেশি দরপত্র পড়েছে। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অনেক আর্কিটেক্ট ফার্ম আগ্রহ প্রকাশ করেছে। সেটাই আমাদের জন্য আশার একটা দিক। যারা বিখ্যাত স্টেডিয়াম বানিয়েছে, সে ধরনের মানসম্পন্ন কোম্পানিগুলো এখানে বিট করেছে।’

এছাড়া শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামটি এশিয়ার শ্রেষ্ঠ স্টেডিয়াম হিসেবে স্বীকৃতি পাবে দাবি করে তিনি বলেন, ‘প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক আরও বলেন, ‘বিশ্বের প্রথম সারির আর্কিটেক্ট প্রতিষ্ঠানগুলো আগ্রহ দেখিয়েছে। আমি মনে করি, প্রধানমন্ত্রীর নামে যে স্টেডিয়াম হতে যাচ্ছে, তা আন্তর্জাতিক মানের হবে এবং এশিয়া উপমহাদেশের শ্রেষ্ঠ স্টেডিয়াম হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করবে।’

ওডি/এমএমএ
 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড