• মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

টেনিস জগতের নতুন সেনসেশন গার্ল

  ক্রীড়া ডেস্ক

০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২০:৩৭
বিয়াঙ্কা আন্দ্রেসকু
ইউএস ওপেনের নতুন চ্যাম্পিয়ন বিয়াঙ্কা (ছবি : সংগৃহীত)

১৯৯৪ সালে দুটি সুটকেস নিয়েই কানাডা চলে এসেছিলেন সস্ত্রীক নিকু আন্দ্রেস্কু। রোমানিয়ার বাসিন্দা নিকু ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার। চাকরি নিয়ে এসেছিলেন কানাডায়। পরে তার স্ত্রী মারিয়াও চাকরি পেলেন টরন্টোর একটি বেসরকারি সংস্থায়। কয়েক বছর পরে সংসারে এলো নতুন অতিথি। ২০০০ সালের ১৬ জুন জন্ম হলো আন্দ্রেস্কু দম্পতির কন্যার। নাম রাখা হলো বিয়াঙ্কা।

এর পরও দোলাচলে ছিল আন্দ্রেস্কু পরিবারে। রোমানিয়া, না কানাডা, কোথায় থাকবেন, স্থির করে উঠতে পারছিলেন না। সাত বছরের মেয়েকে নিয়ে রোমানিয়া ফিরে এলেন মারিয়া। কানাডায় থেকে গেলেন নিকু, একা। রোমানিয়ায় শৈশবের একটা বড় সময় কেটেছে বিয়াঙ্কার। সে সময়ই শিখলেন টেনিস। কিন্তু রোমানিয়া ছেড়ে বিয়াঙ্কা চলে গেলেন কানাডায়, বাবার কাছে। সেখানেই স্থায়ীভাবে থাকবেন, তখন সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন আন্দ্রেস্কু দম্পতি।

রোমানিয়া থেকে স্মৃতির সঙ্গে আর যা নিয়ে গেলেন বালিকা বিয়াঙ্কা, তা হলো টেনিস খেলার নেশা। তখন তার আদর্শ কিম ক্লাইস্টার্স। পরবর্তী কালে তার পছন্দের তারকার তালিকায় এসেছেন সিমোনা হালেপ এবং উইলিয়ামস বোনেরা। কিন্তু কিমের জায়গা কেউ নিতে পারেননি।

চলতি বছরেই জয়ী হয়েছেন ইন্ডিয়ান ওয়েলস ওপেন এবং কানাডিয়ান ওপেন। তবে বড় চমক অপেক্ষা করেছিল ইউওস ওপেন অবধি। ইতিহাস লিখলেন বিয়াঙ্কা। ২৪ নম্বর গ্র্যান্ডস্ল্যাম জেতার মুখে এসেও ফের অধরাই থেকে গেল সেরেনার স্বপ্ন। তাকে ৬-৩, ৭-৫ গেমে হারিয়ে নারী এককে কানাডার হয়ে প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম জিতলেন বিয়াঙ্কা। ২০০৬ সালে মারিয়া শারাপোভার পর টিনএজার হিসেবে আন্দ্রেস্কু নিজের প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম ফাইনালেই জিতলেন। ছুঁয়ে ফেললেন মনিকা সেলেসকে। তার খেলার মধ্যে কিম ক্লাইস্টার্সের খেলার ঘরানা খুঁজে পান বিশেষজ্ঞরা।

১৯৯৯ সালে সেরেনা  ইউএস ওপেনেই খেলোয়াড় জীবনের প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম জেতার সময় বিয়াঙ্কার জন্মই হয়নি। তারও নয় মাস পরে জন্মাগ্রহণ করেন তিনি। টেনিসের ওপেন যুগে গ্র্যান্ডস্ল্যামের দুই ফাইনালিস্টের মধ্যে এত বেশি বয়সের পার্থক্য এর আগে দেখা যায়নি।

চলতি মৌসুমেই রজার্স কাপের ফাইনালে সেরেনার মুখোমুখি হয়েছিলেন বিয়াঙ্কা। কিন্তু চারটি গেম খেলার পরেই চোটের জন্য ম্যাচ ছেড়ে দিয়েছিলেন সেরেনা। ক্যারিয়ারে একবার তার বিরুদ্ধে পূর্ণাঙ্গ ম্যাচ খেলার স্বপ্ন ছিল বিয়াঙ্কার। খেতাব লাভের মধ্যে সেই স্বপ্ন পূর্ণ হলো তার। ম্যাচের আগেও বিয়াঙ্কা বলেছিলেন, এক বছর আগে কেউ যদি বলতো আমি ইউএস ওপেনের ফাইনাল সেরেনার সঙ্গে খেলব, তবে নির্ঘাত তাকে পাগল বলতাম। সেই সেরেনাকে হারিয়ে ইতিহাস রচনা করলেন এ টেনিস সেনসশন। 

ওডি/এনএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড