• বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

দলবদলের শেষ মুহূর্তে কে কোথায়?

  জুবায়ের আহাম্মেদ

০৯ আগস্ট ২০১৯, ১১:১৪
লেক্স আইওবি
লেক্স আইওবি, ডেভিড লুইজ ও রোমেলো লুকাকু (ছবি : সংগৃহীত)

অনেক জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে থামল ইংলিশ লিগের নতুন মৌসুমের দলবদল। ট্রান্সফার উইন্ডোর শেষদিনে চমকের নাম ছিল আর্সেনাল আর তাদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী স্পার্স খ্যাত টটেনহ্যাম হটস্পার। একাডেমি গ্র্যাজুয়েট অ্যালেক্স আইওবিকে ৫ বছরের চুক্তিতে এভারটনে পাঠিয়েছে আর্সেনাল। আর লরেন্ট কোশেয়েলনির বিকল্প হিসেবে দলে নিয়ে এসেছে প্রিমিয়ার লীগের পরীক্ষিত ডিফেন্ডার ডেভিড লুইজকে। অন্যদিকে স্পার্স শিবিরে শেষ সময়ে নাম লিখিয়েছেন দীর্ঘদিন তাদের রাডারে থাকা আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার জিওভানি লো সেলসো। তবে তিনি এসেছেন লোনে। এছাড়া পূর্ণ ট্রান্সফার সম্পন্ন করেছে রায়ান সেসেনয়ং। 

আরেকদফা আর্সেনাল 

দলবদলের শেষদিনে চমক দেয়া যেন আর্সেনালের রীতি। এর আগে ড্যানি ওয়েলব্যাক আর মেসুত ওজিলকেও শেষ সময়ে দলে ভিড়িয়েছিল নর্থ লন্ডনের দলটি। এবার সে তালিকায় যুক্ত হলেন ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার ডেভিড লুইজ। ২ বছরের চুক্তিতে গানার শিবিরে এসেছেন তিনি। কোচ উনাই এমেরির অধীনে এটি তার দ্বিতীয়বার মাঠে নামার সুযোগ। এর আগে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইনের হয়ে একসাথে ছিলেন এমেরি এবং লুইজ। 

চেলসির হয়ে ১৬০ ম্যাচে ১১ গোল করা ডেভিড লুইজ মূলত দলে এসেছেন লরেন্ট কোশেয়েলনির বিকল্প হিসেবে। চলতি উইন্ডোতেই ফরাসি ক্লাব বোর্দেতে পাড়ি জমিয়েছেন কোশেয়েলনি। এবারের দলবদলে আর্সেনালের নাম তাই সবার উপরেই থাকবে। নিকোলাস পেপে, ড্যানি সেবায়োস-এর পাশাপাশি লোনে এনেছে ডেনিস সুয়ারেজকেও। শেষ দিনে তাদের অন্য সাইনিং ছিল সেল্টিক ডিফেন্ডার কিয়েরান টিয়ার্নি। 

আর এতকিছুর মাঝে দল ছেড়েছেন গানার জার্সিতে ১০০ ম্যাচ খেলা অ্যালেক্স আইওবি। ৫ বছরের চুক্তিতে এভারটনে গিয়েছেন তিনি। চুক্তির অঙ্ক এখন পর্যন্ত অজানাই রয়ে গিয়েছে। 

অবশেষে টটেনহ্যামের হলেন লো সেলসো

গুঞ্জনটা ছিল একেবারে শুরু থেকেই। রিয়াল মাদ্রিদের আগ্রহের বড় নাম ছিলেন ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেন। আর টটেনহ্যামের চোখ ছিল রিয়াল বেটিসের জিওভানি লো সেলসোর দিকে। এই চুক্তিটা দলবদলের হাটে একেবারেই শুরুতে হবার কথা থাকলেও হয়েছে একেবারেই শেষে এসে। এক বছরের লোনে ইংল্যান্ডে এলেও প্রিমিয়ার লীগের অফিসিয়াল ঘোষণা অনুযায়ী মৌসুম শেষে তাকে পুরোপুরি কিনে নেয়ার রাস্তা খোলা থাকছে স্পার্সদের হাতে। আর লো সেলসোর ট্রেডমার্ক ১৮ নম্বর জার্সিই তাকে তুলে দিয়েছেন স্বদেশি কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনো। 

লো সেলসোর চুক্তিই ছিল ট্রান্সফার ডেডলাইনের শেষ চুক্তি। কিন্তু আরও ৬ টি চুক্তির জন্য এফএ কর্তৃপক্ষ দুই ঘণ্টা সময় বাড়িয়ে দেয়। আর সেই সময়েই চলতি বছরের নতুন আরেক খেলোয়াড়ের অন্তর্ভুক্তি জানান দেয় টটেনহ্যাম। 

ইংল্যান্ড অনুর্ধ্ব ২১ জাতীয় দলের উইঙ্গার রায়ান সেসেনয়ংকে ফুলহ্যাম থেকে দলে নিয়েছে তারা। গত মৌসুমে ৩৫ ম্যাচে মাঠে ছিলেন এই তরুণ। দুই গোলের পাশাপাশি ছিল ৬ অ্যাসিস্ট। স্পার্সদের হয়ে তার জার্সি নাম্বার ১৯। 

গুডবাই রোমেলো লুকাকু

লুকাকু ম্যানচেস্টার ছাড়বেন এটি একরকম নিশ্চিত ছিল। গন্তব্য ইতালিও ছিল নিশ্চিত। কিন্তু ইন্টার নাকি জুভেন্টাস তার কোনো উত্তর ছিলনা। তবে ডিবালার জুভেন্টাসে থেকে যাওয়ার কারণে ইন্টারেই থিতু হয়েছেন এই বেলজিয়ান। এভারটন, ওয়য়েস্টব্রম আর চেলসিতে সময় পার করা লুকাকু শেষ দুই মৌসুম ছিলেন রেড ডেভিল শিবিরে। ৬৬ ম্যাচে তার গোল ছিল ২৮টি। 

লুকাকু কী পারবেন ইতালির চ্যালেঞ্জ নিতে? সে উত্তর সময় দেবে। আপাতত ইংল্যান্ড থেকে তাকে গুডবাই। 

নিউক্যাসেলেই ফিরলেন অ্যান্ডি ক্যারোল, সাথে এলেন ক্রাফত

নিজের শৈশবের ক্লাবে ফিরে এলেন সাবেক ইংলিশ ফরোয়ার্ড অ্যান্ডি ক্যারোল। ফ্রি এজেন্ট হয়ে গিয়েছিলেন গত মৌসুমের শেষে। ফুটবলে ফেরার জন্য শৈশবের ক্লাব নিউক্যাসেলে ফেরার এই বোধ করি সেরা সুযোগ ছিল তার সামনে। ২০১১ সালে লিভারপুলে যাবার আগে নিউক্যাসেলের হয়ে ৩৩ বার গোল করেছিলেন ক্যারোল। 

ক্যারোলের পাশাপাশি শেষদিনে নিউক্যাসেলে এসেছেন এমিল ক্রাফত। সুইডিশ এই ডিফেন্ডারকে ফ্রেঞ্চ ক্লাব এমিন্স থেকে দলে এনেছে দ্য ম্যাগপাই খ্যাত নিউক্যাসেল। চার বছরের চুক্তি হলেও টাকার অঙ্ক এখনো জানায়নি তারা। 

ওয়েস্টহ্যামে এজেটি, পেনিংটনের ঠিকানা হালসিটি

বাসেল থেকে ইংলিশ লিগে নতুন সংযুক্তি হলেন সুইস ফরোয়ার্ড আলবিয়ান এজেটি। ২২ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড ওয়েস্টহ্যামে এসেছেন ৪ বছরের চুক্তিতে। সুইস সুপার লিগের সবশেষ মৌসুমে ৩২ ম্যাচে করেছেন ১৪ গোল। চুক্তির অঙ্ক জানা না গেলেও নিশ্চিত প্রিমিয়ার লীগে ভালোভাবেই আলো ছড়াবেন এজেটি।

গত মৌসুমে আরেক আলো ছড়ানো ডিফেন্ডার ম্যাথিউ পেনিংটনকে দলে নিয়েছে হাল সিটি। এভারটনের এই খেলোয়াড় গত মৌসুম লোনে ছিলেন ইপ্সউইচ টাউনে। ৩১ বার মাঠে নেমে নিজের সামর্থ্যের ভালো জানানও দিয়েছেন তিনি। তরুণ এই ডিফেন্ডারকে শেষ সময়ে দলে নিয়েছে রেলিগেশন ফাইটের দল হাল সিটি। 

অন্যান্য যত সাইন

হার্ডাসফিল্ড গত মৌসুমে যত নিষ্প্রভ ছিল, ততই উজ্জ্বল ছিলেন অ্যারন মই। অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের এই ফুটবলার বেশ ধারাবাহিক ছিলেন বিগত দুই মৌসুমে। ৬৫ ম্যাচে ৭ গোল আর ৪ অ্যাসিস্টে আলাদাভাবে তাকে চিনেছিল ইংলিশ দলগুলো। শেষদিনে তাকে দলে ভিড়িয়েছে গ্রাহাম পটারের দল ব্রাইটন অ্যান্ড অ্যালবিওন হোভ। যদিও দলে তিনি যুক্ত হয়েছেন কেবল এক বছরের লোনে। 

ফরাসি ক্লাব রেনে থেকে ৫ বছরের চুক্তিতে ওয়াটফোর্ডে এসেছেন উইংগার ইসমালিয়া সার। লিগ ওয়ানে ৭৭ ম্যাচে ১৮ গোল করা ইসমালিয়াকে নিয়ে বেশ আশাবাদী ইংলিশ দলটি। 

এছাড়া আর একদফা লোনে গিয়েছেন ড্যানি ড্রিঙ্কওয়াটার। লেস্টারের হয়ে লিগ জেতা ২৯ বছরের এই মিডফিল্ডার কখনোই চেলসির প্রত্যাশা মেটাতে পারেননি। আগামী বছরের ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত তাকে বার্নলিতে লোনে পাঠিয়েছে চেলসি। 

বেলজিয়ান তারকা ডেনিস পারেটকে ৫ বছরের জন্য দলে নিয়েছে দ্য ফক্সেস নামে পরিচিত লেস্টার সিটি। ইতালিয়ান ক্লাব সাম্পোদোরিয়া থেকে তাকে দলে এনেছে লেস্টার। এছাড়া নবাগত শেফিল্ড ইউনাইটেড দিন পার করেছে এভারটন মিডফিল্ডার মোহাম্মেদ বেসিক আর ডাচ গোলরক্ষক মাইকেল ভেরিপসকে দলে নিয়ে।  

তথ্যসূত্র: প্রিমিয়ার লিগ 

ওডি/এএন  
 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড