• শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯, ৮ চৈত্র ১৪২৫  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন

বিশ্বকাপের আগে পথ খুঁজে পাবে বাংলাদেশ?

  অধিকার ডেস্ক    ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৯:১২

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ
পুরো সিরিজে মাত্র ৩৬ রান এসেছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাট থেকে (ছবি : ক্রিকইনফো)

আগামী বিশ্বকাপ ইংল্যান্ডে। সেখানকার কন্ডিশনের সঙ্গে প্রায় হুবহু মিল রয়েছে নিউজিল্যান্ডের। উইকেটও হবে একই ঘরানার। গতির সঙ্গে সঙ্গে মিলবে সুইং। কিন্তু কিউইদের মাটিতে তিন ম্যাচেই শক্তিশালী বোলিং লাইনআপের বিপক্ষে টপ অর্ডারের ব্যাটিং ব্যর্থতায় বাংলাদেশ শিবিরে হতাশা জেঁকে বসারই কথা।

বুধবার ডানেডিনে তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ডের কাছে হারের পর ম্যাচ পরবর্তী পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার কথাতেই সেটা ফুটে উঠল, 'দলের খেলোয়াড়রা খুবই হতাশ।'

সিরিজের কোনো ম্যাচেই প্রতিদ্বন্দ্বিতার পরিবেশ তৈরি করতে পারেনি বাংলাদেশ। হোয়াইটওয়াশ হয়েছে ৩-০ ব্যবধানে। প্রথম দুই ওয়ানডেতে হার ৮ উইকেটের। এরপর ডানেডিনে টাইগাররা হেরেছে ৮৮ রানে। প্রতিটি হারের জন্যই অভিযোগের তীর নিক্ষেপ করা যায় টপ অর্ডারের দিকে। শুরুতেই উইকেট বিলিয়ে দলকে চেপে ফেলে দিয়েছেন তামিম ইকবাল, লিটন দাস আর সৌম্য সরকাররা।

ভরসার জায়গা মিডল অর্ডারেও ব্যর্থ দুই অভিজ্ঞ তারকা মুশফিকুর রহীম ও মাহমুদউল্লাহ। তিন ম্যাচেই বাংলাদেশের সংগ্রহ যে ২০০ রান পেরিয়েছে তার মূল কৃতিত্ব নিচের দিকের ব্যাটসম্যানদের! আরও স্পষ্ট করে বললে মোহাম্মদ মিঠুন, সাব্বির রহমান ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের।

নেপিয়ারে ও ক্রাইস্টচার্চে প্রথম দুটিতে সাতে ও শেষ ম্যাচে ছয়ে নেমে সিরিজে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৫৮ রান করেছেন সাব্বির। ডানেডিনে হাঁকিয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। চোটের কারণে শেষ ম্যাচে ছিটকে যাওয়া মিঠুন আগের দুটি ইনিংসই খেলেছেন পাঁচ নম্বরে। করেছেন যথাক্রমে ৬২ ও ৫৭ রান। তিন ম্যাচে পেস বোলিং অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনের সংগ্রহ ৯৫ রান। প্রথম দুই ওয়ানডেতে খেলেছেন নয়ে, শেষটিতে সাতে।

কিন্তু যাদের কাজ বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দেওয়া সেই টপ অর্ডারই চূড়ান্ত রকমের ব্যর্থ। বিপিএলের ফাইনালে বিস্ফোরক সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে নিউজিল্যান্ডে উড়ে যাওয়া তামিম প্রথম দুই ম্যাচে করেছিলেন ৫ ও ৫ রান। শেষ ম্যাচে ফিরেছেন খালি হাতে। আরেক ওপেনার লিটনের নামের পাশে ট্রিপল ওয়ান (!); মানে ১, ১ ও ১।

সৌম্য প্রথম দুই ওয়ানডেতে ভালো শুরুর পর বাজে শটে উইকেট উপহার দিয়েছিলেন নিউজিল্যান্ডকে। তৃতীয় ম্যাচে করেছেন শূন্য। গোটা সিরিজে মুশফিকের সংগ্রহ ৪৬ রান। মাহমুদউল্লাহর ৩৬। ফলে নেপিয়ার আর ডানেডিনে ব্যাটিং সহায়ক উইকেট পেলেও তার ফায়দা তুলে নিতে পারেনি বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের আগে আদর্শ প্রস্তুতির জন্য নিউজিল্যান্ডে গিয়ে ধরাশায়ী হতে হয়েছে মাশরাফিদের।  

আগামী মে মাসের ৩০ তারিখ থেকে শুরু হতে যাওয়া বিশ্বকাপের আগে আর কেবল একটিই ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। ওই একই মাসে ত্রিদেশীয় সিরিজে মুখোমুখি হবে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের। তার আগেই অবশ্য বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশের চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা হয়ে যাবে।

অর্থাৎ এপ্রিলের শেষ দিকে ঘোষিত হওয়া বিশ্বকাপ স্কোয়াড নিয়ে আয়ারল্যান্ডে ওই সিরিজ খেলতে যাবে টাইগাররা। কিন্তু তার আগে দল নির্বাচন নিয়ে বেশ বিপাকে পড়তে হচ্ছে, এটা বলা যায় নিঃসন্দেহে। কারণ নিউজিল্যান্ড সিরিজের পারফরম্যান্সকে বিশেষ গুরুত্ব দেবেন কোচ-নির্বাচকরা। সেখানেই বেঁধেছে বিপত্তি। পুরো টপ অর্ডারের দৈন্যদশায় কপালের ভাঁজ গভীরই হওয়ার কথা নির্বাচকদের!

তবে বরাবরের মতো আত্মবিশ্বাসী মাশরাফি ইতিবাচকভাবে নিয়েছেন টপ অর্ডারের ব্যাটিং ব্যর্থতাকে। এই সিরিজ থেকে শিক্ষা নিয়ে বিশ্বকাপের আগেই সঠিক পথে ফিরতে চান তিনি। আর সেটা তিনি করে দেখাতে চান আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে।

পথ খুঁজে পাওয়ার ব্যাখ্যা দিয়ে টাইগার দলনেতা বলেন, 'আগামী টুর্নামেন্টে শুরু হতে দুই মাস বাকি। আয়ারল্যান্ডে কন্ডিশন একই রকম হবে। আর আমাদেরকে পথ খুঁজে বের করতে হবে।...শুরুতেই উইকেট বিলিয়ে দেওয়া যাবে না কারণ পরের দিকে ব্যাটিংটা সহজ হয়ে যায়।'

এসএইচ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড