• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন

উগান্ডা মাতাচ্ছেন ‘ভাতিজা’ আফ্রিদি

  অধিকার ডেস্ক    ০৯ নভেম্বর ২০১৮, ১৮:২৯

আফ্রিদির ভাতিজা ইরফান আফ্রিদি
শহিদ আফ্রিদির ভাতিজা ইরফান আফ্রিদি; (ছবি : সংগৃহীত)

উগান্ডা জাতীয় দলের হয়েও ক্রিকেট খেলেন আফ্রিদি! পাকিস্তানের কিংবদন্তি ক্রিকেটার শহিদ আফ্রিদির ভাতিজা ইরফান আফ্রিদি এখন মাতাচ্ছেন দেশটির ক্রিকেট! সেই একই বোলিং স্টাইল! একই রান-আপ নিয়ে ডান হাতে অফস্পিনের সঙ্গে করতে পারেন চাচা আফ্রিদির মতো লেগব্রেক ও গুগলি।

উদযাপনের ভঙ্গিটা দেখলেই বোঝা যায় ইরফানের মধ্যে আফ্রিদির প্রতিচ্ছবি। পার্থক্যটা শুধু জার্সি ও দৈহিক গঠনে। চাচা আফ্রিদির মাথার চুলের প্রেমে পড়েনি এমন মেয়ে কমই! অথচ ভাতিজার মাথায় চুলের সংখ্যা খুবই সীমিত! জার্সির ক্ষেত্রে চাচা যেখানে পাকিস্তানের জার্সি গায়ে জড়িয়েছেন সেখানে ভাতিজা জড়িয়েছেন উগান্ডার!

মজার বিষয় হলো উগান্ডা যাওয়ার আগে ইরফানের কখনো ক্রিকেট বলে খেলার অভিজ্ঞতা ছিল না। শখের বশে বল করতে গিয়েই চোখে পড়ে যান উগান্ডার সাবেক পেসার আসাদু সেইগারের। সুযোগ মেলে দেশটির ক্লাব ক্রিকেটে। এরপর পুরোদস্তুর ক্রিকেটার হয়ে খেলতে খেলতে ৩১ বছর বয়সে ডাক পেয়ে যান উগান্ডা জাতীয় দলে। এরপর থেকে হয়ে ওঠেন দেশটির অন্যতম একজন খেলোয়াড়।

২০১৬ সালে কাতারের বিপক্ষে উগান্ডার হলুদ জার্সি প্রথম গায়ে ওঠে তার। এরপর প্রায় দুই বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেললেও নিজের জাত চিনিয়েছেন চলতি বছরে। মালয়েশিয়াতে ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগের ডিভিশন ফোরে (ইরফানের ভাষায়) ৮০ শতাংশ লেগস্পিন, ১০ শতাংশ ক্যারম ও ১০ শতাংশ অফস্পিন বল দিয়ে টুর্নামেন্টে ১৫ উইকেট তুলে নেন তিনি। তার বোলিং নৈপুণ্যেই সেই টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন হয় উগান্ডা।

বল হাতেই শুধু নয়, চাচা আফ্রিদির মতোই ব্যাটিংয়েও বেশ সুনাম রয়েছে ভাতিজা ইরফানের। উগান্ডা জাতীয় দলের হয়ে ব্যাট হাতে খেলেছেন বেশ কিছু কার্যকরী ইনিংস। তার মধ্যে ৭১ বলে ১০৮ এবং ১৭ বলে ৫১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলার কৃতিত্ব রয়েছে ভাতিজা আফ্রিদির। এই কৃতিত্বে চাচা আফ্রিদির কাছে থেকে ক্ষুদে অভিনন্দনও পেয়েছেন ইরফান।

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড