• রোববার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বিশ্বকাপ ফাইনাল

ফাইনালে লেজেগোবরে ভারত, অজিরাই সেরা

  ক্রীড়া ডেস্ক

১৯ নভেম্বর ২০২৩, ২২:০৫
অস্ট্রেলিয়া

খরা কাটল না ভারতের। আমদাবাদে নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ভারত হেরে গেল ৬ উইকেটে। টানা ১০ ম্যাচ জিতে ক্লান্ত ভারত হেরে গেল ফাইনাল ম্যাচে।

টস জিতে কামিন্স আগে বল করার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল। কিন্তু ভুল প্রমাণ করলেন সমালোচকদের।

নেমেই দ্রুত রান তুলতে শুরু করেন রোহিত। বড় শট খেলতে গিয়েই আউট হলেন। তখন তার ৪৭ রান। তিনি আউট হতেই ধাক্কা খেল ভারত। রোহিত আউট হওয়ার পর ভারতের বাকি ইনিংসে হল মাত্র চারটি বাউন্ডারি। রোহিত নিজে তিনটি ছক্কা এবং চারটি চার মেরেছিলেন। বিরাট কোহলির মারা চারটি চারও এসেছিল রোহিত থাকতেই।

বিরাট এবং রাহুল অবস্থা বুঝে সিঙ্গলস নিতে শুরু করলেন। স্কোরবোর্ডকে সচল রাখলেন বিরাটরা। ভারতীয় সমর্থকেরা আফসোস করছিলেন শ্রেয়াস আয়ারের উইকেট হারানো নিয়ে। মাত্র চার রান করে আউট হয়ে যান তিনি। বিরাট ৬৩ বলে করলেন ৫৪ রান আর রাহুল ১০৭ বল খেলে করলেন ৬৬ রান। কামিন্সের বল বিরাটের ব্যাটে লেগে উইকেট ভেঙে দেয়। আর নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামের ১ লক্ষের বেশি দর্শক হতাশায় চুপ করে যায়।

বিরাট আউট হতে রবীন্দ্র জাডেজা ব্যাট করতে নামেন। রাহুলের সঙ্গে ইনিংস গড়ার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তাকে। কিন্তু ২২ বল খেললেও ৯ রানের বেশি করতে পারেননি জাডেজা। ভারতের আশা ছিল সূর্যকুমার যাদবের উপর। ২৮ বলে ১৮ রান করে যাওয়া সূর্য ভারতকে রানের আলো দেখাতে পারলেন না। এ বারের বিশ্বকাপে প্রথম বার ১০ উইকেট হারাল ভারত। উঠল ২৪০ রান।

ব্যাটারেরা ফাইনালে সে ভাবে নজর কাড়তে ব্যর্থ হওয়ায় ভারতের আশা ছিল বোলারদের উপর। গোটা প্রতিযোগিতায় বুমরা, শামিরা যে দাপট দেখিয়েছিলেন, তাতে তাদের উপর ভরসা করাই যেত। কিন্তু শুরুতেই বুমরার বলে খোঁচা দেওয়া ওয়ার্নারের ক্যাচ বিরাট এবং শুভমনের মাঝখান দিয়ে চারে চলে যায়। ভারতীয় ফিল্ডিংয়ের দুর্দশা সেখানেই ধরা পড়ে। ম্যাচ যত এগিয়েছে, তত ছন্নছাড়া দেখিয়েছে রোহিতদের ফিল্ডিং। আশা জাগিয়েছিলেন শামি। নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। মাত্র ৭ রান করে আউট হয়ে যান ওয়ার্নার। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে মিচেল মার্শকে তুলে নেন বুমরা। সপ্তম ওভারে স্মিথকেও আউট করেন তিনি। তার পরেই শামিদের সামনে দেওয়াল তুলে দিলেন হেড এবং লাবুশেন। বুমরা কিছুটা চেষ্টা করলেও ভারতের চাপ ছিল প্রথম ১০ ওভারে। বাকি তিন বোলারদের অস্ট্রেলিয়ার হেড এবং লাবুশেন সহজেই খেলে দিলেন। রবীন্দ্র জাডেজা, কুলদীপ যাদব এবং মুহাম্মদ সিরাজ কোনও ভাবেই চাপ তৈরি করতে পারলেন না। বলা ভাল হেড এবং লাবুশেন চাপ তৈরি হতে দিলেন না। প্রথম থেকেই তাঁদের লক্ষ্য ছিল ওভারে পাঁচ রান করে তুলতে থাকা। প্রতি ওভারেই তারা শুরুতে একটি করে বাউন্ডারি মেরে নিজেদের কাজটা সহজ করে নিচ্ছিলেন।

পুরো প্রতিযোগিতায় জিতে এক দিন হেরেই সব শেষ ভারতের। আর অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার মুখ থেকে ফিরে এসে ট্রফি জিতে নিল।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড