• শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ফুটবলে ‘থ্রো ইনের’ পরিবর্তে আসতে পারে ‘কিক ইন’

  ক্রীড়া ডেস্ক

১৪ জুন ২০২২, ১৪:১০
ফুটবলে থ্রো ইন (ছবি : সংগৃহীত)

ফুটবল ম্যাচে বল সাইড লাইনের বাইরে গেলে হাত দিয়ে বল ছুঁড়ে আবারও খেলা শুরু করা মাঠের নিয়মিত দৃশ্য। এবার সেই চিরায়ত দৃশ্য পরিবর্তন হতে পারে। থ্রো ইনের জায়গায় সাইড লাইন থেকে বল কিক করে মাঠে নেওয়ার দৃশ্য দেখা যেতে পারে। এমনটাই প্রস্তাব করেছেন ফিফার ফুটবল ডেভেলপমেন্ট প্রধান আর্সেন ওয়েঙ্গার।

এতদিনের চিরায়ত দৃশ্য বন্ধে উদ্যোগ নেওয়ার পিছনে আছে মূলত সময় বাঁচানোর চিন্তা। খেলা চলাকালীন থ্রো ইন করতে ফুটবলারদের সময়ক্ষেপণ করা নতুন কোনো ঘটনা না। ফুটবল মাঠে এই ঘটনা নিয়মিতই ঘটে।

সেই সময় বাঁচানোর কথা চিন্তা করেই থ্রো ইনের বদলি হিসেবে কিক ইন শুরু করার চিন্তা ভাবনা শুরু করেছে ফিফা। ফুটবলের বিশ্ব নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানিয়েছে, কিক ইনের মাধ্যমে দ্রুত খেলা সম্ভব করা যায় কি-না সেই বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করা হবে। যৌথভাবে এই পরীক্ষা চালাবে ফিফা ও ফুটবলের নিয়ম প্রণয়নকারী সংস্থা আন্তর্জাতিক ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বোর্ড (আইএফএবি)। এই পর্যবেক্ষণ চলবে নেদারল্যান্ডসের দ্বিতীয় বিভাগ ফুটবল লিগে।

থ্রো ইন ছাড়াও রেফারির বিভিন্ন বিষয় ব্যাখ্যা করা ও বল মাঠের বাইরে গেলে খেলা বন্ধ রাখার মতো সিদ্ধান্তও আসতে পারে। এই বিষয়গুলোর ট্রায়ালও শুরু করা হবে বলে জানিয়েছে ফিফা।

বর্তমানে রেফারির বিভিন্ন কারণ ব্যাখ্যা করা, খেলোয়াড় চোটে পড়লে মাঠের বাইরে যাওয়া কিংবা বল মাঠের বাইরে থাকলে খেলার সময় গণনা করা বন্ধ করা হয় না। এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে শেষদিকে কিছুটা অতিরিক্ত সময় খেলা চালানো হয়। বিষয়টি নিয়ে যদিও তৈরি হয় নানা বিতর্ক। তাই তো খেলার বাইরের ঘটনার সময় খেলার সময় গণনা বন্ধ রাখার বিষয়টি ট্রায়াল চালাবে ফিফা।

ট্রায়াল শেষ হলে ফিফার কংগ্রেসে অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকতে হবে। তবে বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে আরও কতদিন লাগবে তা এখনও জানা যায়নি।

ওডি/কেএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড