• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কলকাতার স্বপ্ন ভেঙে প্লে-অফে লক্ষ্মৌ

  ক্রীড়া ডেস্ক

১৯ মে ২০২২, ১০:১৩
কলকাতার বিপক্ষে উদযাপনে লক্ষ্মৌর ক্রিকেটাররা (ছবি: সংগৃহীত)

আইপিএলে দেখা গেল আসরের অন্যতম শ্বাসরুদ্ধকর ও উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচ। লক্ষ্মৌ সুপার জায়ান্টস ও কলকাতা নাইট রাইডার্সের মধ্যকার হাইভোল্টেজ ম্যাচটিতে কোনো উইকেট না হারিয়েই ২১০ রান তুলেছিল লক্ষ্মৌ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২ বলে ৩ রান প্রয়োজন ছিল কলকাতার, এমন পরিস্থিতি থেকে ২ রানে হেরে যায় দলটি।

চলতি আইপিএলের প্লে-অফে ওঠার লড়াইয়ের শেষ ম্যাচের জন্য সব নাটকীয়তা তুলে রেখেছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। ২১০ রানের পাহাড় টপকাতে শেষ বলের রোমাঞ্চে হেরে সেই নাটকের ইতি টানে তারা। নাটকীয় ম্যাচে তাণ্ডব চালিয়ে ম্যাচের হাইলাইট আইপিএলে তৃতীয় সর্বোচ্চ ১৪০ রান করা কুইন্টন ডি কক।

গ্রুপ পর্বের বাকি ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই কলকাতার। জয় পেলেও হিসেব নিকেশের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হবে সমান ১৩ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট তোলা দিল্লি ক্যাপিটালস ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর হারের। তবে হেরে সেই হিসেব আগেই সহজ করে দিয়েছে কলকাতা। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আশা জাগিয়েও ২ রানের হার দেখে গ্রুপপর্ব থেকে বাদ পড়েছে ব্রেন্ডন ম্যাককালামের দল।

টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে দুই ওপেনারে ভর করে রানের পাহাড় দাড় করায় লক্ষ্মৌ। আইপিএলে ক্যারিয়ার সেরা ৭০ বলে ১৪০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন ডি কক। অতি মানবীয় ইনিংসটি সাজানো ছিল ১০টি ছয় ও ১০টি চারের মারে। আইপিএলের ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস ও এটি। এর আগে ২০১৩ সালে ক্রিস গেইলের খেলা ১৭৫ রানের ইনিংসটি দখল করে আছে প্রথম স্থান। এরপর অবস্থান ম্যাককালামে ২০০৮ সালে করা ১৫৮ রানের ইনিংস।

ডি ককের দিনে তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছেন অধিনায়ক লোকেশ রাহুল। ব্যক্তিগত ইনিংসে ৫১ বলে ৬৮ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনিও। দু-জনে ভর করে শেষ পর্যন্ত ২১১ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দেয় কলকাতাকে।

জবাবে শুরুতে উইকেট হারিয়ে চাপে পড়লেও শেষের দিকে জয়ের দিকেই ছিল কলকাতা। নিতিশ রানার ২২ বলে ৪২ শ্রেয়াস আয়ারের ২৯ বলে ৫০ ও রিনকু সিংয়ের ১৫ বলে ঝড়ো ৪০ এ লড়াইয়ে ছিল দলটি।

শেষ দিকে ৭ বলে ২১ রান তুলে আশা জাগিয়েছিলেন সুনিল নারিন। শেষ বলে কলকাতার জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৩ রান। নাটকীয় শেষ বলে উমেশ যাদবের উইকেট তুলে ম্যাচে ২ রানের জয় নিশ্চিত করে স্টয়নিস।

এ জয়ে ১৪ ম্যাচে ৯ জয়ে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুই নম্বরে এখন লক্ষ্মৌ। এক ম্যাচ কম খেলে ১০ জয়ে শীর্ষে অবস্থান গুজরাটের। সমান ১৩ ম্যাচে ১৬ ও ১৪ পয়েন্ট নিয়ে তিন ও চার নম্বরে আছে রাজস্থান ও দিল্লি।

ওডি/কেএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড