• বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারি ২০২২, ৬ মাঘ ১৪২৮  |   ১৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

প্রধান নির্বাচক হিসেবে নান্নুর বিকল্প ভাবছে বিসিবি?

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

১১ জানুয়ারি ২০২২, ২১:০০
মিনহাজুল আবেদিন নান্নু (ছবি: সংগৃহীত)

কয়েক দফায় মেয়াদ বাড়ানোর পর গত ৩১ ডিসেম্বর শেষ হয়েছে বিসিবির নির্বাচক প্যানেলের সর্বশেষ চুক্তির মেয়াদ। তবে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ থাকায় আগের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে আগের নির্বাচক প্যানেলই। যে প্যানেলে প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব পালন করছেন মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। গত টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ঘরের মাঠে পাকিস্তান সিরিজে ভরাডুবির পর ব্যাপক প্রশ্নবিদ্ধ হন নান্নু। দলের ক্রিকেটার নির্বাচন নিয়েও ওঠে নানা প্রশ্ন।

যদিও নতুন মেয়াদে নান্নু প্রধান নির্বাচক থাকবেন কি না বিষয়টি এখনো পর্যন্ত খোলাসা করেনি বিসিবি কর্তারা। বোর্ডের পরবর্তী সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানানো হয়। এর মাঝেই গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে পুনরায় বিসিবির নির্বাচক প্যানেলে থাকার ইচ্ছার কথা জানান নান্নু।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শেষ হওয়ায় আপাতত জাতীয় দলের কোনো কার্যক্রম নেই। চলমান বিসিএলের পর মাঠে গড়াবে বিপিএলের এবারের আসর। এরপর ওয়ানডে এবং টি-টুয়েন্টি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসবে আফগানিস্তান। সেটিও আগামী ফেব্রুরারির একদম শেষ ভাগেই বলা চলে।

আফগানদের বিপক্ষে সেই সিরিজে নান্নুর কাঁধেই কী থাকছে বাংলাদেশের দল সাজানোর মূল দায়িত্ব? নাকি তার পরিবর্তে প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব দেওয়া হবে নতুন কাউকে? এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে দেশের ক্রিকেট ভক্তদের মনে।

তবে ভেতরের খবর, নির্বাচক কমিটি নিয়েই চিন্তা-ভাবনা করছেন বিসিবি নীতিনির্ধারকরাও। ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির নতুন প্রধান জালাল ইউনুসও স্বীকার করেছেন, নির্বাচক কমিটি নিয়ে ভাবছেন তারাও এবং বেশ জোরেসোরেই এ নিয়ে কাজ করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে জালাল বলেন, ‘নির্বাচক কমিটি নিয়ে না ভেবে উপায়ও নেই। কারণ মিনহাজুল আবেদিন নান্নু আর হাবিবুল বাশারের সঙ্গে আমাদের চুক্তি শেষ হয়েছে। কাজেই আমাদের একটা কিছু করতে হবে।’

চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়া নান্নু আর বাশারের সঙ্গে কী নতুন করে আবার চুক্তি করবে বিসিবি? নাকি দু’জনকে একসঙ্গে বাদ দিয়ে দুজন নতুন নির্বাচককে দায়িত্ব দেয়া হবে? এমন প্রশ্নের মুখোমুখি জবাবে জালাল ইউনুস বলেন, ‘এটা আমাদেরও মাথায় আছে। তবে চেঞ্জ বলবো কি বলবো না জানি না। নির্বাচকদের নিয়ে তো কিছু একটা করতে হবে। কন্ট্রাক্ট শেষ হয়েছে যখন, তখন তো কিছু একটা করতেই হবে। নতুন কন্ট্রাক্ট দেবো নাকি চেঞ্জ করে দিতে হবে সে সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি।’

নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে সিরিজ শেষ হয়েছে এখন তারা নড়েচড়ে বসেছেন, একথা জানিয়ে জালাল বলেন, ‘সিরিজ যেহেতু শেষ হয়েছে, তাই এখন আমরা নির্বাচক কমিটি নিয়ে বসব। ব্যাস, এতটুকুই শুধু বলতে পারি। কিন্তু চেঞ্জ হবে কি হবে না? নাকি নান্নু-সুমন নিজ নিজ পদে বহাল থাকবে- এ নিয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে পারি না। করবও না।’

তবে নির্বাচক কমিটি নিয়ে কিছুটা সচেতন বিসিবি, সেটা জানিয়েছেন জালাল। তিনি বলেন, ‘আমরা কাউকে পরিবর্তন করব কি না- সেটা বলা সম্ভব হবে না। তবে সিলেকশন কমিটি নিয়ে আমাদের কনসার্ন আছে, এটা বলা যেতেই পারে। আমরা খোঁজার মধ্যে যে নেই, তাও বলছি না। দেখা যাক, কি করা যায়?’

জালাল ইউনুসের কথার সূত্র ধরে কোনো ক্লু পাওয়া কঠিন। তবে একদম ভেতরের খবর, বিসিবির শীর্ষ পর্যায়ে নির্বাচক কমিটি নিয়ে অনেক কথাই হয়েছে। টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে চরম ব্যর্থতার পর প্রধান নির্বাচক পদে পরিবর্তন আনার একটু চিন্তা ভাবনাও চলছিল।

ওপরের কথা শুনে মনে হওয়া স্বাভাবিক যে, জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ফারুক আহমেদ তার সমবয়সী ও সাবেক সহযোগী নান্নুর চেয়ারে বসছেন না। তাই বলে ভাববেন না যে, অন্য কারও প্রধান নির্বাচক হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

বিসিবির উচ্চপর্যায়ের একটি দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, বেশ কয়েক মাস ধরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার পাত্র হয়ে গেছেন প্রধান নির্বাচক নান্নু। তাকে নিয়ে গণমাধ্যমেও লেখালেখি চলছেই। ট্রলও হচ্ছে প্রচুর। যাতে খানিকটা বিব্রত বিবিসিও। নান্নুর সঙ্গে চুক্তি নতুন করে নবায়ন করলে তার ধাক্কাটা বোর্ডের ঘাড়ে আসতে পারে- এমন চিন্তা এবং শঙ্কাও আছে।

তাহলে কী দাঁড়ালো? কে হবেন প্রধান নির্বাচক? নান্নুই থাকবেন? একদম ভেতরের খবর, শেষ পর্যন্ত সব হিসাব-নিকেশ করে বিসিবি সম্ভবত প্রধান নির্বাচক পদে পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে। নান্নুকে বাইরে নিয়ে হাবিবুল বাশারকে প্রধান নির্বাচকের পদে বসিয়ে তিন সদস্যের কমিটি গঠনের দিকেই হয়তো এগোচ্ছে বিসিবি।

২০১৬ সাল থেকে বাংলাদেশ দলে প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন নান্নু। এর আগে ২০১১ সাল থেকে নির্বাচক প্যানেলের অংশ হয়ে আছেন তিনি।

তৎকালীন প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদের পদত্যাগের পর প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব নেন নান্নু। এরপর ২০১৯ সালে নতুন মেয়াদে নিজের কাজ শুরু করেন বাংলাদেশের সাবেক এই ব্যাটার।

ওডি/কেএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড