• বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নাসুমের জোড়া আঘাত

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

০৯ আগস্ট ২০২১, ২০:১২
নাসুম
ফাইল ফটো

বাংলাদেশের দেওয়া ১২৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই জোড়া উইকেট হারিয়ে চাপে পড়েছে অস্ট্রেলিয়া। অজিদের দুটি উইকেটও শিকার করেছেন নাসুম আহমেদ।

আগের ম্যাচে সাকিবের এক ওভারে মেরেছিলেন পাঁচ ছক্কা। আর তাই এ ম্যাচে ওপেনিংয়ে ব্যাটিংয়ে নামানো হয়েছে ড্যান ক্রিস্টায়ানকে। তবে এদিন ভয়ঙ্কর হওয়ার আগেই তাকে সাজঘরে ফিরিয়েছেন স্পিনার নাসুম আহমেদ।

দলের দ্বিতীয় ও নিজের প্রথম ওভারের প্রথম বলেই সাফল্য পান নাসুম। ক্রিস্টিয়ানকে সরাসরি বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান তিনি।

এরপর নিজের দ্বিতীয় ওভারে আবারও আঘাত হানেন নাসুম। এবার তার শিকার সিরিজের অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে ধারাবাহিক ব্যাটসম্যান মিচেল মার্শ।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৫ ওভারে ২ উইকেটে ২৮ রান। অধিনায়ক ম্যাথিউ ওয়েডের সঙ্গে ক্রিজে আছেন বেন ম্যাকডারমট।

এর আগে, দিন টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এ নিয়ে সিরিজে চতুর্থবারের মতো আগে ব্যাট করল বাংলাদেশ।

পুরো সিরিজে টানা ব্যর্থতার কারণে একাদশে থাকলেও শেষ ম্যাচে ওপেনিংয়ে জায়গা হারান সৌম্য সরকার। তার পরিবর্তে নাঈমের সঙ্গে জুটি বাঁধেন মেহেদী।

এদিন ভালো সূচনা এনে দেয় বাংলাদেশের নতুন ওপেনিং জুটি। এ জুটিতে স্কোরবোর্ডে জমা হয় ৪২ রান। সিরিজে এটিই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি। টার্নারের বলে ১২ বলে ১৩ রান করে মেহেদী আউট হলে ভাঙে এ জুটি।

এরপর স্কোরবোর্ডে আর ১৩ রান জমা হতেই ফিরে যান আরেক ওপেনার নাঈম। নাঈমকে হারানর ধাক্কা সামলে নেওয়ার আগেই ফিরে যান সাকবি। ৬০ রানের মধ্যেই ৩ উইকেট হারানো বাংলাদেশের হাল ধরেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। সৌম্যকে সঙ্গে নিয়ে স্কোরবোর্ডে আরও ২৪ রান যোগ করেন তিনি। তবে ১৪ বলে ১৯ রান করে তিনিও সাজঘরে ফিরে গেলে বিপদে পড়ে বাংলাদেশ।

মিডল অর্ডারে ব্যাটিংয়ে নেমে ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত দেন সৌম্য। তবে বেশিদূর যেতে পারেননি তিনি। দলীয় ৯৬ রানে এক ছয় ও চারে ১৬ রান করেন তিনি। সিরিজে এটিই সৌম্যের সর্বোচ্চ ইনিংস।

সৌম্য আউট হলেও আফিফ ও সোহান বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখাচ্ছিল। ক্রিজে এসে প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের ইঙ্গিত দেন আফিফ। ১৫ ওভারে স্কোরবোর্ডে ৫ উইকেটে ১০২ রান জমা হওয়ায় এ সিরিজের সর্বোচ্চ দলীয় ইনিংসের স্বপ্ন দেখছিল বাংলাদেশ। আগের সর্বোচ্চ দলীয় ইনিংসটি ছিল ১৩১ রানের। সিরিজের প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করে যা বাংলাদেশ সংগ্রহ করেছিল।

তবে শেষ পাঁচ ওভারে ছন্দপতন হওয়ায় সে স্বপ্ন পূরণ হয়নি। এ ৩০ বলে বাংলাদেশ স্কোরবোর্ডে জমা করতে পেরেছে ২২ রান, হারিয়েছে ৩ উইকেট। ফলে ১২২ রানেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় স্বাগতিকদের।

সফরকারীদের পক্ষে ২টি করে উইকেট শিকার করেন নেইথান এলিস ও ড্যান ক্রিস্টিয়ান

সিরিজের প্রথম চার ম্যাচ অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে নেমেছিল বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচে এনেছে দুই পরিবর্তন। তরুণ শামীম হোসেনের জায়গায় দলে এসেছেন মোসাদ্দেক হোসেন। অন্যদিকে শরীফুল ইসলামের বদলে খেলবেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

পরিবর্তন এসেছে অস্ট্রেলিয়ার একাদশেও। অ্যান্ড্রু টাই ও জশ হেইজলউডকে বসিয়ে নামানো হয়েছে নেইথান এলিস এবং অ্যাডাম জ্যাম্পাকে। ম্যাচে চার স্পিনার নিয়ে খেলছে অজিরা।

এর আগে সিরিজের প্রথম তিন ম্যাচ জিতেই সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। চতুর্থ ম্যাচে অবশ্য ঘুরে দাঁড়ায় অজিরা। ফলে দুই দেশই এ ম্যাচ জিতে জয় দিয়ে সিরিজ শেষ করতে চাইবে।

বাংলাদেশ একাদশ মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম, সাকিব আল হাসান, নুরুল হাসান (উইকেটকিপার), আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, নাসুম আহমেদ

অস্ট্রেলিয়া একাদশ ম্যাথিউ ওয়েড (অধিনায়ক), বেন ম্যাকডারমট, মিচেল মার্শ, মোয়েজেস এনরিকেস, অ্যালেক্স ক্যারি, অ্যাস্টন টার্নার, ড্যান ক্রিস্টিয়ান, অ্যাস্টন এইগার, মিচেল সোয়েপসন, নেইথান এলিস, অ্যাডাম জ্যাম্পা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড