• সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৪ ফাল্গুন ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

তিনবার তামিমকে বাড়ি থেকে বের করে দেন বাবা

  ক্রীড়া ডেস্ক

১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩:৫৩
অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ
তামিমের বাবা-মা (ছবি : সংগৃহীত)

সন্তান জন্ম নেওয়ার পর সব বাবা-মায়েরই চাওয়া নিজেদের সন্তান বড় হয়ে ডাক্তার কিংবা প্রকৌশলী হবেন। এই চিন্তা প্রতিটি ঘরে-ঘরেই হয়ে থাকে। ব্যতিক্রম ছিলেন না বিশ্বকাপ জয়ী বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দলের ওপেনার তানজিদ হাসান তামিমের বাবা-মাও। ক্রিকেটের প্রতি তামিমের সবসময়ই একটা ঝোঁক ছিল; এ জন্য তিনবার তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেন তামিমের বাবা তোজাম্মেল হোসেন।

ছোটবেলা থেকেই তামিমের ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ ছিল; সে সময় মায়ের সমর্থন থাকলেও কখনোই বাবার সমর্থন মেলেনি। খেলার প্রতি বেশি ঝোঁক থাকায় পড়াশোনার দিকে কিছুটা ধীর হয়ে পড়েন তামিম; কিন্তু মা রেহেনা বেগম ক্রিকেটের পাশাপাশি ছেলের পড়ালেখা ঠিকমতো চালিয়ে নিতে নেন অন্য রকম কৌশল। স্কুলের পরীক্ষায় ভালো করলে ছেলেকে স্টেডিয়ামে নিয়ে ক্রিকেট খেলা দেখানোর আশ্বাস দেন তিনি। খেলা দেখার লোভে তামিম পরীক্ষায় ভালো করতে লাগলেন। 

তামিমকে ক্রিকেট অনুশীলন দেখাতে রেহেনা বেগম নিয়ে যেতেন বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে। স্থানীয় কোচ মোসলেম উদ্দিন তামিমের মাকে স্বপ্ন দেখালেন, একদিন বড় ক্রিকেটার হবে তামিম। তবে ছেলের ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্নে বাধা হয়ে দাঁড়ান বাবা। রাগ করে একদিন ছেলেকে বাড়ি থেকে বের করে দেন। 

খেলার প্রতি তামিমের এমন ঝোঁক পছন্দ করতে পারেননি তোজাম্মেল হোসেন। পরে আরও দুই দিন বাড়ি থেকে ছেলেকে বের করে দেন তিনি। অবশ্য বাবা রাগ করলেও মা সব সময় ছেলের পাশে ছিলেন। 

এরপর লেখাপড়ায়ও মনোযোগী হন তামিম। ২০১৫ সালে বগুড়া জিলা স্কুল থেকে এসএসসিতে এবং ২০১৭ সালে সরকারি আজিজুল হক কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিকে জিপিএ-৫ পান তামিম। উচ্চশিক্ষার জন্য ভর্তি হন ঢাকার আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে (এআইইউবি)।

এসএসসি ও এইচএসসিতে ভালো ফল করায় এবার তোজাম্মেল হোসেনের মনের বরফ গলতে শুরু করে। অনূর্ধ্ব-১৭ জাতীয় দলে ডাক পাওয়ার পর তামিমকে ২৫ হাজার টাকায় ব্যাটও কিনে দিলেন। পরে মা-বাবার দুজনের উৎসাহ আর বিসিবির জেলা কোচ মোসলেম উদ্দিনের অনুপ্রেরণায় পড়াশোনা ও ক্রিকেট সমানতালে চালিয়ে যান তামিম।

নিজ গ্রাম বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত আছেন তোজাম্মেল হোসেন। ছেলের সাফল্যে খুশি বাবা বলেন, ভেবেছিলেন, ক্রিকেটের প্রতি ঝোঁকের কারণে তামিম পড়াশোনায় খারাপ করবে। কিন্তু এসএসসি ও এইচএসসিতে ভালো ফল করায় ভুল ভাঙে। ছেলের এ অর্জনে ভীষণ খুশিও বটে তোজাম্মেল হোসেন।

বিশ্বকাপ জয়ের পর তামিমের নিজ গ্রাম বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার কর্পূর (ফাজিলপুর) গ্রামে বইছে খুশির বন্যা। 

ওডি/এএপি 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড