• বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মেয়র নির্বাচন দিয়ে রাজনীতিতে অভিষেক হচ্ছে সৈয়দ রাসেলের

  সোহরাব মাহাদী

১৪ জানুয়ারি ২০২০, ১৬:৫৮
জাতীয় দলের সাবেক পেসার সৈয়দ রাসেল
জাতীয় দলের সাবেক পেসার সৈয়দ রাসেল (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ক্রিকেটারদের রাজনীতিতে আসার ঘটনা নতুন কিছু নয়। ক্রিকেট মাঠ ছেড়ে রাজনীতির মাঠ কাঁপানো ক্রিকেটারদের সংখ্যা অসংখ্য। যার বড় উদাহারণ পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পাকিস্তানের এ বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক দেশটির রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব পেয়েছেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা ক্রিকেটারদের মধ্যে রাজনীতিতে থিতু হয়েছেন ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার, মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন, গৌতম গম্ভীর, শ্রীলঙ্কার রানাতুঙ্গা, সনাৎ জয়াসুরিয়ার মতো তারকারা। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা ক্রিকেটারদের মধ্যে সর্বপ্রথম রাজনীতিতে আসেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয়। তিনি বর্তমানে ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্যও।

তবে সবাই ক্রিকেটকে বিদায় দিয়ে তারপর রাজনীতিতে আসলেও ব্যতিক্রম ছিলেন টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ক্রিকেট মাঠে লড়াইয়ের পাশাপাশি রাজনীতির মাঠে লড়াই করে নির্বাচিত হয়েছেন একাদশ জাতীয় সংসদের সাংসদ হিসেবে।

মাশরাফি সাংসদ নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে বদলে গেছে তার নিজ এলাকা নড়াইল-২ আসন। সুযোগ পেলেই ছুটে যান নিজ এলাকায়। নির্বাচিত হওয়ার এক বছরের মধ্যে বদলে দিয়েছেন লোহাগড়া উপজেলার চিত্র। চিকিৎসা, শিক্ষাসহ নানা খাতে এনেছেন ব্যাপক উন্নয়ন।

মাশরাফির এমন কর্মকাণ্ড অন্য সাধারণ মানুষের মতো মুগ্ধ করেছে তারই সাবেক সতীর্থ ও বন্ধু সৈয়দ রাসেলকে। এবার মাশরাফির দেখানো পথেই পা বাড়াচ্ছেন এক সময়ের এই বাঁ হাতি তারকা পেসার। মাশরাফিকে অনুসরণ করেই রাজনীতির মাঠে নামতে চাইছেন তিনি। বিষয়টি খোদ সৈয়দ রাসেল নিজেই নিশ্চিত করেছেন।

দৈনিক অধিকারকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সৈয়দ রাসেল বলেন, ‌‘রাজনীতিতে আমার আসার ইচ্ছে মূলত- আমি আমার এলাকার মানুষের জন্য কিছু করতে চাই। এটা আমার স্বপ্ন বলতে পারেন আপনি। আমি দেখতে চাই আমার ঝিকরগাছা বাংলাদেশের অন্যতম সেরা পৌরসভা হোক। আমি এখানকার মানুষের জন্য সর্বোচ্চ দিয়ে কাজ করতে চাই।’

চলতি বছরের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে পৌর নির্বাচন। আসন্ন এই নির্বাচনে যশোর জেলার ঝিকরগাছা পৌরসভা নির্বাচন দিয়ে রাজনীতির মাঠে অভিষেক হবে তার। কিন্তু কোন দল থেকে নির্বাচন করবেন রাসেল? জবাবে সাবেক এই বাঁ-হাতি পেসার বলেন, ‌‘দেখুন আমার বন্ধু হচ্ছে মাশরাফি, সে কোন দলের এমপি সেটা আপনাদের সবারই জানা, আমি আমার বন্ধুকেই অনুসরণ করছি তাই এখানে অন্য কোনো দল আসার প্রশ্নই ওঠে না।’

সৈয়দ রাসেল সরাসরি নাম উল্লেখ না করলেও এটা নিশ্চিত যে তিনি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের হয়েই নির্বাচনে অংশ নেবেন। তবে নির্বাচনি মাঠে নামার আগে স্থানীয় নেতাদের অনুমোদনও প্রয়োজন উল্লেখ করে রাসেল বলেন, ‘এখনো বেশ কিছু কাজ বাকি রয়েছে। যারা স্থানীয়ভাবে কাজ করে তাদের সঙ্গে আলোচনা করতে হবে। দলের যারা সিনিয়র দায়িত্বশীল রয়েছেন তাদের অনুমোদনের ব্যাপার রয়েছে। তাদের অনুমোদন আর সহযোগিতা পেলেই তারপর নির্বাচনে নামব।

রাজনীতিতে আসার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রাসেল বলেন, ‘আমার রাজনীতিতে আসা মূলত মাশরাফিকে দেখেই, ও ভালো কাজ করছে দেখে আমার ইচ্ছেটা জাগে।’

একাদশ জাতীয় নির্বাচনের পুরোটা সময় মাশরাফির সঙ্গে কাজ করেছেন রাসেল। সে অভিজ্ঞতা কতটা কাজে লাগবে? ‘মাশরাফির নির্বাচনি মুহূর্তে আমি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত কাজ করেছি। ওটা জাতীয় নির্বাচন ছিল এটা পৌরসভা নির্বাচন। দুইটা ভিন্ন, আর মাশরাফি একটা আলাদা জায়গায়, তার জনপ্রিয়তা আর আমার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। তবুও আমি ওই অভিজ্ঞতাটা কাজে লাগাব।’

সৈয়দ রাসেল দীর্ঘ দিন ধরে ক্রিকেট মাঠ থেকে দূরে থাকলেও চলমান বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে ঢাকা প্লাটুনের বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করেছেন। জাতীয় দলের জার্সিতে ২০০৫ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত তিনি খেলেছেন ৬ টেস্ট, ৫২ ওয়ানডে ও ৮ টি আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি।

ওডি/এসএম

jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড