• রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পানি পুরি বিক্রেতা থেকে বিশ্বকাপ দলে

  ক্রীড়া ডেস্ক

০৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২:১৫
ভারতীয় ব্যাটসম্যান যশস্বী জয়সওয়াল
ভারতীয় ব্যাটসম্যান যশস্বী জয়সওয়াল (ছবি : সংগৃহীত)

২০২০ সালের জানুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় বসতে যাচ্ছে আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপের আসন্ন এই মেগা আসরকে সামনে রেখে সোমবার (২ ডিসেম্বর) দল ঘোষণা করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বকাপের এই আসরে ভারতীয় স্কোয়াডে সুযোগ পেয়েছেন ব্যাটসম্যান যশস্বী জয়সওয়াল।

যশস্বী জয়সওয়ালের গল্পটা হার মানাবে সিনেমার গল্পকেও। পানি পুরি বিক্রেতা থেকে ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রতিনিধিত্ব করার পেছনে যে লুকিয়ে আছে হাজারো সংগ্রামের চিত্র।

জয়সওয়ালের বয়স মাত্র ১৭। তিনি খেলেছেন নয়টি লিস্ট ‘এ’ ম্যাচ ও একটি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ। নিজেকে প্রমাণের ও ভবিষ্যৎ তারকা হিসেবে নজরে রাখার জন্য এতটুকুই যথেষ্ট বানিয়ে দিয়েছেন জয়সওয়াল। ঘরোয়া ক্রিকেটে টিকে থাকতে তাঁবুতে বসবাস ও পানি পুরি বিক্রি করা ছাড়াও যতটা সংগ্রামের অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন তা দিয়ে বানানো যাবে একটি বলিউড সিনেমা।

সবশেষ বিজয় হাজারি ট্রফিতে রেকর্ড ভাঙা রান করে দক্ষিণ আফ্রিকা অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের জন্য জায়গা করে নিয়েছেন ভারতীয় স্কোয়াডে। মুম্বাইয়ের হয়ে ১১২.৮০ গড়ে রান করেছে ৫৬৪, তিন সেঞ্চুরির বিপরীতে এক হাফসেঞ্চুরি। যার মধ্যে ঝাড়খন্ডের বিপক্ষে ১৫৪ বলে খেলা ২০৩ রানের ইনিংসটি ছিল রেকর্ড, লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে জয়সওয়ালই এখন সর্বকনিষ্ঠ ডাবল সেঞ্চুরিয়ান।

উত্তরপ্রদেশের এক দোকানির ছেলে জয়সওয়াল শুধুমাত্র ক্রিকেট নিয়ে বেঁচে থাকার তাড়নায় নানা বাধা বিপত্তি মাড়িয়ে ছুটে আসেন মুম্বাইতে। তিন বছর ধরে মুসলিম ইউনাইটেড স্পোর্টিং ক্লাব সংলগ্ন তাঁবুতে থাকতেন, জীবিকার তাগিদে বিক্রি করতেন পানি পুরি ও ফল। ছিল না পর্যাপ্ত খাবারের ব্যবস্থা, সুস্থ পরিবেশের টয়লেটও।

নিজের সেসব দিনের কথা তুলে ধরতে গিয়ে জয়সওয়াল বলেন, ‘যখন আমার বন্ধুরা দেখত আমি পানি পুরি বিক্রি করি তখন আমার লজ্জা লাগত। তবে এসব আমায় দমাতে পারেনি। এখনো সুযোগ পেলে আমি পানি পুরি খাই। সেসব দিনগুলো আমি ভুলতে পারব না। আমার মনে রাখতে হবে আমি কোথা থেকে এসেছি এবং চেষ্টা করি আগের মতোই থাকতে ও পরিশ্রম করতে।’

২০১৫ সালে স্কুল ক্রিকেটের একটি ম্যাচে অপরাজিত ৩১৯ রানের ইনিংসের পাশাপাশি ৯৯ রান খরচায় ম্যাচে ১৩ উইকেট তুলে নিয়ে আলো কাড়েন। এরপর ভারতের জার্সিতে বয়সভিত্তিকে নিজেকে প্রমাণ করেন ভালোভাবেই। এখন পর্যন্ত ভারতীয় অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে খেলেছেন ১৫টি একদিনের ম্যাচ। রান করেছেন ৬৫.৩৩ গড়ে ২ সেঞ্চুরির সাথে ৬ ফিফটিতে ৭৮৪। বাঁহাতি এই তরুণের স্বপ্ন এখন কোহলি, পুজারা, যুবরাজ, মোহাম্মদ কাইফদের মতো নিজেকে জাতীয় দলে দেখতে পারা যারা তার মতোই যুব দলের হয়ে নিজেকে প্রমাণ করেছিলেন।

ওডি/এসএম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড