• শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সোনারগাঁয়ে জনদুর্ভোগের কারণ যখন সেতু

  সোনারগাঁও প্রতিনিধি, নারায়ণগঞ্জ

১৫ অক্টোবর ২০১৯, ১৬:১৪
ঝুঁকিপূর্ণ সেতু
ঝুঁকিপূর্ণ সেতু (ছবি : দৈনিক অধিকার)

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের হামছাদী গ্রামে পরিত্যক্ত একটি সেতু দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে কয়েক হাজার মানুষকে। বার বার দুর্ঘটনা ঘটলেও সংশ্লিষ্ট কারও নজরে পড়ছে না বিষয়টি। ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ৩৯ বছর আগে হামছাদী খালের ওপর নির্মিত এ সেতুতে গত এক বছরে ৮০টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। 

স্থানীয়রা জানান, ৩৯ বছর আগে উপজেলার বৈদ্যের বাজার ইউনিয়নের হামছাদী খালের ওপর একটি সেতু নির্মিত হয়। অপ্রশস্ত ও সেতুর মূল অংশ থেকে দুই পাশ বেশি ঢালু। এ কারণে সেতুটি নির্মিত হওয়ার পর থেকেই ভারি কোনো যানবাহন এ সেতু ব্যবহার করতে পারেনি। সেতুটিতে ১২ বছর আগে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) প্রকৌশলীরা ঝুঁকিপূর্ণ ও পরিত্যক্ত ঘোষণা করে। তারা এ সেতুটি ব্যবহার না করার জন্য স্থানীয় এলাকাবাসীদের অনুরোধ জানান এবং সেতু ভেঙে নতুন সেতু করার আশ্বাস দেন।  

এলাকাবাসী জানান, সেতুর দুই পাশে পাঁচটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। হামছাদী, ধনপুর, প্রেমের বাজার, আনন্দবাজার, উলুকান্দিসহ ১৩ গ্রামের প্রায় নয় হাজার মানুষের চলাচল এ সেতু দিয়ে। সেতুটি পুনর্নির্মাণ করা হলে এ অঞ্চলের উৎপাদিত সবজি সহজে বাজারজাত করা যাবে। এছাড়া এ অঞ্চলের তিনটি ইউনিয়নের যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হবে। 

হামছাদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, এ সেতু পার হওয়ার সময় শিক্ষার্থীরা ভয় পায়। ঝুঁকি নিয়ে বাধ্য হয়েই তাদের পার হতে হয়।

মদিনাতুল উলুম মাদ্রাসার মুহতামিম মো. শাহাজাহান শিবলী জানান, এ সেতুটি চলাচলের অনুপযোগী। বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় শিক্ষার্থী ও স্থানীয়রা ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করছেন। তিনি দ্রুত এ সেতুটি নির্মাণের দাবি জানান। 

স্থানীয় হামছাদী গ্রামের বাসিন্দা ও বৈদ্যের বাজার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য মজিবুর রহমান জানান, ঝুঁকিপূর্ণ এ সেতুতে গত এক বছরে প্রায় ৮০টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। সেতু থেকে পড়ে গিয়ে গ্রামের অনেকেই হাত পা ভেঙে পঙ্গু হয়েছে। 

সর্বশেষ গত সোমবার (১৪ অক্টোবর) একটি অটোরিকশা সেতুর ওপর উঠতে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে চালকসহ দুই যাত্রীর হাত পা ভেঙে মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। আহতরা ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। 

বৈদ্যের বাজার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবদুর রউফ জানান, আমার ইউনিয়নের মধ্যে সবচেয়ে দুর্ভোগে রয়েছে হামছাদী গ্রামের মানুষ। সেতুর জন্য গ্রামবাসীদের মহা দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এলজিইডি সেতুটি নির্মাণের কয়েক দফা আশ্বাস দিলেও এখনো কাজটি বাস্তবায়ন করেনি তারা। 

এলজিইডির সোনারগাঁ উপজেলা প্রকৌশলী আলী হায়দার জানান, সেতুটি ইতোমধ্যে দরপত্র সম্পন্ন হয়েছে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে নির্মাণ কাজ শুরু হবে।  

ওডি/এএসএল

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড