• রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন

ঈদকে সামনে রেখে ব্যস্ত রূপগঞ্জের জামদানিপল্লী

  সাইদুর রহমান, রূপগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ

২৪ মে ২০১৯, ১৮:২৭
জামদানি শাড়ি তৈরি
জামদানি শাড়ি তৈরিতে কাজ করছে তাঁত শিল্পীরা ( ছবি : দৈনিক অধিকার )

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার নোয়াপাড়া এলাকায় তাঁতীদের নিপূন হাতে তৈরি জামদানি শাড়ির সুনাম রয়েছে দেশব্যাপী। এখানকার জামদানিই শ্রেষ্ঠ বলে সমাদৃত হচ্ছে ক্রেতাদের কাছে। তাঁতীরা তাদের মনের মাধুরী মিশিয়ে নিপূন হাতে তৈরি করেন একেকটি জামদানি শাড়ি। 

জানা যায়, দক্ষ জনবল, পুজির অভাব, ভারতীয় শাড়ির ভিড়ে গত দুই বছরে জামদানির কদর কমেছে কয়েকগুন। এভাবে চলতে থাকলে বাঙ্গালীর ঐতিহ্য এই শিল্প হারিয়ে যাবে কালের বিবর্তনে। জামদানি শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে প্রতিনিয়ত সংগ্রাম করে চলছে এখানকার তাঁতীরা। 

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, শীতলক্ষা নদীর তীর ঘেষে নোয়াপাড়া গ্রাম। গ্রাম জুড়েই সারি সারি তাঁতের সমারোহ। এ এলাকাতে প্রায় প্রতিটি ঘরেই চলে জামদানি তৈরির কর্মচাঞ্চলতা। কেউ সুতা টানছে কেউবা আবার সুতা কাটছে। কেউ আবার নকশা তৈরিতে ব্যস্ত। সবার কঠোর পরিশ্রম ও নিপূন হাতের ছোঁয়ায় তৈরি হচ্ছে হরেক রকমের নকশার জামদানি শাড়ি। 

ঈদের আর কয়েকদিন মাত্র বাকি। তাই ঈদকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছেন রূপগঞ্জের জামদানি পল্লীর তাঁতীরা। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত তাদের যেন নিশ্বাস ফেলার সময় টুকুও নেই। সবার মনে একটাই আকাঙ্খা ঈদের আগে জামদানির তেরির কাজ শেষ করে পরিবারের সঙ্গে ভালোভাবে ঈদ করা। 

মোহনা জামদানি হাউজের মালিক সাদ্দাম হোসেন জানান, বাপ দাদারাও জামদানি শাড়ি তৈরি করতেন। তাই বাপ দাদার ব্যবসা ধরে রাখতে কাজ করছি। তবে ভারতীয় শাড়ির দাম তুলনামূলক কম হওয়ায় ক্রেতারা ভারতীয় শাড়ির দিকে ঝুকে পড়ছেন। গত দুই বছরের জামদানির কদর কমেছে কয়েকগুন। তবুও বাপ দাদার ব্যবসাকে ধরে রাখতে দিনরাত কাজ করছি বলে জানান তিনি।

নাঈম জামদানি হাউজের মালিক সেলিম জানান, পুজি সল্পতার কারনে ব্যবসাকে বড় করতে পারছি না। জামদানি তৈরি কাচামালের দাম বাড়লেও বাড়েনি জামদানি শাড়ির দাম। এছাড়া পাইকারদের দৌড়াত্বের কারণে ন্যয্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে। 

জামদানী পল্লীর বিসিকের সভাপতি জহিরুল ইসলাম জানান, এবারের ঈদে ৫ কোটি টাকার জামদানি বিক্রির টার্গেট রয়েছে। তবে বিগত সময়ের তুলনায় জামদানির চাহিদা কমেছে কয়েকগুন। দক্ষ জনবল ও স্বল্প পূজি ও নতুনত্বের অভাবে জামদানি শিল্প বাঁধাগ্রস্ত হচ্ছে। সরকারিভাবে কোনো পদক্ষেপ না নিলে এ শিল্প বিলীন হয়ে যাবে বলেও জানান তিনি।

ওডি/এসএএফ  

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড