• বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হাটহাজারীতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কামাররা

  আবুল মনছুর, হাটহাজারী (চট্টগ্রাম)

১৮ জুলাই ২০২১, ১৩:৫৭
হাটহাজারী
কামারের দোকান (ছবি : দৈনিক অধিকার)

আর মাত্র কয়েকদিন পর ইদ। এই পবিত্র ইদুল আজহাকে সামনে রেখে লোহার টুংটাং শব্দে মুখরিত চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার বিভিন্ন এলাকার কামারের দোকানগুলো।

অথচ সপ্তাহ খানেক আগেও কামারের দোকানগুলো ছিল প্রায় নিরর। কোরবানিকে সামনে রেখে কামারের দোকানগুলো হয়ে উঠেছে এখন সরব। পশু কোরবানির পাশাপাশি মাংস কাটার জন্য আগুনের শিখায় লোহা পুড়িয়ে তৈরি করা হচ্ছে ছুরি, দাঁ, বঁটি, চাপাতি। এসব কিনতে কামারের দোকানগুলোতে ভিড় জমাচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

শনিবার (১৭ জুলাই) সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, হাটহাজারী বাজারে কবুতর হাট এলাকায় অবস্থিত কামারের দোকানগুলোতে পশুর মাংস কাটাকাটি আর চামড়া ছড়ানোর কাজে ব্যবহৃত দাঁ, ছুরি, বটিসহ ধারালো জিনিস তৈরিতে সকাল, দুপুর ও রাতের বেলায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে। এসব তৈরিতে আধুনিকতার ছোঁয়া লাগেনি। পুরানো নিয়মেই চলছে আগুনে পুড়ে লোহা থেকে পেটানোর টুংটাং শব্দে তৈরি হচ্ছে দা, বঁটি, ছুরি, চাপাতি। এসব সামগ্রী ক্রয় করতে একের পর এক ক্রেতা সাধারণ দোকানে এসে ভিড় করছে। কোরবানির ইদ যত ঘনিয়ে আসছে তত কামারদের তৈরি লোহার বিভিন্ন পণ্যের কদর বাড়ছে।

হাটহাজারী বাজারের পিন্টু সেন (৩৩) কর্মকারের সাথে কথা হলে তিনি জানান, দীর্ঘ ২৩ বছর কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে যাচ্ছেন। কোরবানি এলে কাজ বাড়ে। তবে অনেক গ্রাহক সঠিক মূল্য দেন না। এরমধ্যে করোনাকালে ক্রেতা সমাগম তুলনায় অনেকাংশে কম। তার মধ্যে উচ্চ মূল্যে কয়লা, লোহা ও স্টিলের মালামাল কিনে ক্রেতা কম থাকায় বিনিয়োগকৃত পুঁজি উঠানো নিয়ে চিন্তায় আছি।

সজিৎ সেন (৬০) কর্মকার জানান, মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসবের অন্যতম হচ্ছে ইদুল আজহা। আর এই ইদে মুসলিম ধর্মের অনুসারীরা পশু জবাই করে থাকেন। এই পশু জবাইয়ের জন্য প্রয়োজন হয় দাঁ, বটি, ছুরি, চাপাতিসহ লোহার সরঞ্জামাদি। এই সময়ের জন্য সারা বছর অপেক্ষায় থাকি আমরা। কোরবানির ইদের আগে এক সপ্তাহ ভালো আয়-উপার্জন হয়। তবে এবার হতাশা ঘিরে ধরেছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে একেবারেই বেচাকেনা নেই বলেই চলে।

তিনি আরও জানান, দাঁ, ছুরিতে সান দেয়ার আগে আগুনে পোড়ানের জন্য কয়লা অতি প্রয়োজনীয়। তবে উচ্চ মূল্যে কয়লা, লোহা ও স্টিলের মালামাল কিনে প্রত্যাশা অনুযায়ী বিক্রি কম হলে বিনিয়োগকৃত পূঁজি উঠানো নিয়ে মারাত্মক ঝুঁকিতে থাকি। এর পরেও কামারের দোকান নিয়ে ভাল আছি এটাই শুকরিয়া।

এ শিল্প যাতে হারিয়ে না যায় সেজন্য সরকারের সহযোগিতার কামনা করেন তিনি।

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড