• বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কাঠ ও ড্রাম দিয়ে তৈরি সেতুই লাখো মানুষের ভরসা

  রূপসা প্রতিনিধি, খুলনা

০৬ নভেম্বর ২০১৯, ১১:১৮
খুলনা
স্থানীয়রা কাঠ ও ড্রামের তৈরি সেতু দিয়ে পারাপার হচ্ছে (ছবি : দৈনিক অধিকার)

খুলনার রূপসা উপজেলার আঠারো বেঁকি নদীর ওপর একটি সেতুর অভাবে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে দুটি উপজেলার কয়েক লাখ মানুষকে। এলাকাবাসীর অভিযোগ ড্রাম দিয়ে ভাসমান সেতু তৈরি করা হলেও তাদের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হতে হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের শিয়ালি এলাকার আঠারো বেঁকি নদীর ওপর একটি ব্রিজের অভাবে রূপসা-তেরখাদা উপজেলার মানুষের দুর্ভোগের শেষ নেই। ড্রামের তৈরি ভাসমান সেতু হওয়ায় ভারী যানবাহন চলাচল করতে পারে না। এমন কি মোটরসাইকেলের ওপর দুইজন বসে পার হতে গেলে ব্রিজটি দোলে। তাছাড়া এখানে চিংড়ি মাছের বড় আড়ত থাকায় ওভার লোড দেওয়া ভ্যান গাড়ি পার হয়। ফলে যে কোনো সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা স্থানীয়দের।

আরও জানা যায়, প্রায় ১০ বছর আগে এখানে একটি কাঠের সেতু ছিল। সেটি ভেঙে যাওয়ার পর নৌকা দিয়ে মানুষ পারাপার হতো ,পরবর্তীতে সেটিও বন্ধ হয়ে যায়। এরপর একটি প্রভাবশালী মহল ড্রাম ও কাঠ দিয়ে একটি ভেলা তৈরি করে। যা দিয়ে অতিরিক্ত টাকার বিনিময়ে মানুষ ও যানবাহন পারাপার করা হতো।

বিষয়টি খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদীর নজরে আসলে তিনি দুই উপজেলার চেয়ারম্যানকে নিয়ে উক্ত সেতুটি প্রায় তিন মাস আগে নির্মাণ করেন।

স্থানীয় হাবিবুর রহমান ফকির অভিযোগ করে বলেন, এখান দিয়ে যেভাবে ভারী যানবাহন চলাচল করছে তাতে বেশি দিন ভাসমান সেতুটি টিকবে বলে মনে হয় না।

পাঁচ নম্বর ঘাটভোগ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাধন কুমার অধিকারী জানান, ব্রিজটির অর্থ বরাদ্দ হয়েছে। ডিসেম্বরের পরে সেতুটির টেন্ডার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

অপরদিকে রূপসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন বাদশা জানান, ব্রিজটি না থাকায় স্থানীয়দের চলাচল করতে নানা সমস্যা হচ্ছে, তিনি অতি দ্রুত সেতুটি তৈরি করার দাবি জানান।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন আক্তার বলেন, বিষয়টি মাসিক সমন্বয় সভায় উপস্থাপন করা হবে। এরপর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান।

ওডি/এমবি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড