• শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন

সারা জীবনই মানুষের মস্তিষ্কে কোষ তৈরি হয়

  প্রযুক্তি ডেস্ক ১৫ মে ২০১৯, ১৩:৩৪

মস্তিষ্ক
৬৮ বছর বয়সী এক লোকের মস্তিষ্কের হিপ্পোকাম্পোস অঞ্চলে অপরিণত (লাল) এবং পরিণত নিউরন (নীল)।(ছবি: নেচার)

অনেকেরই মনে এক ভ্রান্ত ধারণা আছে যে, জন্মের সময় মস্তিষ্কে যে পরিমাণ কোষ থাকে, সারা জীবন সেই কোষের পরিমাণ একই থাকে।

তবে নতুন এক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে, প্রায় সারা জীবনই মানুষের মস্তিষ্কে নতুন কোষ তৈরি হয়। কমপক্ষে ৯৭ বছর পর্যন্ত একজন সুস্থ মানুষের এই কোষ তৈরির প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকে। যুক্তরাজ্যের বিজ্ঞান সাময়িকী নেচার মেডিসিনে স্পেনের মাদ্রিদ বিশ্ববিদ্যালয়ের করা এ গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে।

গবেষকরা বলছে, মানুষের মস্তিষ্কের কোষ নিউরন নিজেদের মধ্যে বৈদ্যুতিক সংকেত পাঠায়। জন্মের সময় থেকেই এই প্রক্রিয়া শুরু হয়। তবে এতোদিন পর্যন্ত অন্যান্য স্তন্যপায়ী প্রাণীর ক্ষেত্রে জীবনের শেষ দিকে তাদের মস্তিষ্কে নতুন কোষের সৃষ্টি হয়েছে বলে প্রমাণিত হয়েছে। কিন্তু মানুষের ক্ষেত্রে নিউরোজেনেসিস (নতুন নিউরনের উদ্ভবপ্রক্রিয়া) অব্যাহত থাকে কি না, তা নিয়ে বিতর্ক ছিল।

নতুন এই গবেষণায় গবেষকরা ৫৮ জন মৃত মানুষের মস্তিষ্ক নিয়ে কাজ করেন। তাদের বয়স ৪৩ থেকে ৯৭ বছরের মধ্যে ছিল। বিজ্ঞানীরা মস্তিষ্কের ‘হিপ্পোকাম্পোস’ অংশে মূল মনোযোগ দেন। মস্তিস্কের এই অংশ স্মৃতি এবং আবেগ নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে। আর এই অংশেই আলঝেইমার রোগ আক্রমণ করে।

গবেষকরা দেখতে পান যে, জন্মের পর থেকে নিউরন মস্তিষ্কে পরিপূর্ণ রূপে থাকে না। এই নিউরন বয়স বাড়ার সাথে সাথে ও পরিপক্ব হওয়ার প্রক্রিয়ার সঙ্গে তা পূর্ণতা পায়। বিজ্ঞানীরা মস্তিষ্কে এই অপরিণত বা ‘নতুন’ নিউরনকে শনাক্ত করতে পেরেছেন।

গবেষক ড. মারিয়া লরেন্স-মার্টিন বলেন, ‘আমার বিশ্বাস, মানুষ যতক্ষণ নতুন কিছু শিখছে, ততক্ষণ নতুনভাবে নিউরনের বৃদ্ধি ঘটছে এবং এটি আমাদের জীবনের প্রতি মুহূর্তেই ঘটে চলেছে।’

তবে আলঝেইমার রোগীদের ক্ষেত্রে বিষয়টি সম্পূর্ণ ভিন্ন। আলঝেইমারের প্রাথমিক পর্যায়ে নতুন নিউরন বৃদ্ধির সংখ্যা প্রতি মিলিমিটারে ৩০ হাজার থেকে কমে দাঁড়ায় ২০ হাজারে।

ড. লরেন্স বলেন, রোগটির একদম শুরুতে এই নিউরন হ্রাসের পরিমাণ থাকে ৩০ শতাংশ। নতুন কোষ তৈরি করতে পারলে আলঝেইমার এবং বার্ধক্যজনিত রোগের চিকিৎসায় সেটি কাজে লাগানো যাবে।

আলঝেইমার রিসার্চ ইউকে গবেষণার প্রধান ড. রোসা সানচো বলেন, ‘যদি কখনো আমরা জীবনের শুরুর দিকে নিউরন হারাতে শুরু করি, সে ক্ষেত্রে এই গবেষণা দেখাচ্ছে যে পরবর্তী সময়ে নতুন কোষের সৃষ্টি হতে থাকবে, এমনকি ৯০ বছর পর্যন্ত।’ ওডি/টিএফ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড