• বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ১৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হোয়াটসঅ্যাপে ত্রুটি : বদলে যেতে পারে পাঠানো বার্তা!  

  প্রযুক্তি ডেস্ক

০৮ আগস্ট ২০১৯, ১৪:৫২
হোয়াটসঅ্যাপ
(ছবি: সংগৃহীত)

সম্প্রতি হোয়াটসঅ্যাপ প্ল্যাটফর্মে ব্যবহারকারীর বার্তা বদলে দেওয়ার টুল উন্মুক্ত হয়েছে। যেখানে দুর্বৃত্তরা চাইলে হোয়াটসঅ্যাপে বিশেষ প্রোগ্রাম ব্যবহার করে হোয়াটসঅ্যাপের বার্তা বদলে দিতে  পারে। 

তবে বিশেষজ্ঞদের দাবি, ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপে মারাত্মক ত্রুটি রয়েছে, যা কাজে লাগিয়ে ব্যবহারকারীর কোনো কথা বা শব্দ বদলে ফেলা যায়। বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।   

এদিকে সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান চেকপয়েন্টের গবেষকদের দাবি, হোয়াটসঅ্যাপের ত্রুটি বের  করার পাশাপাশি হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো বার্তা বদলে ফেলার টুল বা প্রোগ্রাম সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

প্রতিষ্ঠানটির গবেষক ওডেড ভানুনু দাবি করেছেন, সাইবার দুর্বৃত্তরা বিশেষ প্রোগ্রাম ব্যবহার করে হোয়াটসঅ্যাপ প্ল্যাটফর্মে কথাবার্তা বদলে ফেলতে পারে। হোয়াটসঅ্যাপের ত্রুটি কাজে লাগিয়ে ভুয়া খবর ছড়ানো বা প্রতারণা করা যায়। 

তবে এখন পর্যন্ত ফেসবুকের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে সাইবার নিরাপত্তা সম্মেলন ব্ল্যাক হ্যাটে ওই প্রোগ্রাম প্রদর্শন করা হয়। গত বছর চেকপয়েন্ট এ বিষয়ে গবেষণাপত্র প্রকাশ করে। 

তিনি দাবি করেন, হোয়াটসঅ্যাপের কোটিং ফিচার কাজে লাগিয়ে যে কারো লেখাকে বদলে তার অনুরূপ লেখা প্রকাশ করা যায়। এমনকি তার সম্পূর্ণ ভিন্ন অর্থে বদলে ফেলাও সম্ভব। এছাড়া এতে বার্তা প্রেরকের পরিচয় শনাক্ত করার বিষয়টিও জানিয়ে দেওয়া সম্ভব। শুধু তাই নয়, একান্ত বার্তাগুলো একজনের কাছে পাঠানোর বদলে সবার কাছে চলে যায়। তবে ফেসবুকের পক্ষ থেকে বার্তা সবার কাছে চলে যাওয়ার ত্রুটি ঠিক করে ফেলা হয়েছে।

গবেষক আরও বলেন, হোয়াটসঅ্যাপের অবকাঠামো সীমাবদ্ধতার কারণে অন্যান্য ত্রুটি সারানো সম্ভব নয় বলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাদের বলেছে। কারণ, হোয়াটসঅ্যাপের এনক্রিপশন প্রযুক্তিতে তাদের পক্ষে বার্তা পর্যবেক্ষণ করা সম্ভব নয়।

হোয়াটসঅ্যাপের দুর্বলতা নিয়ে আলোচনার জন্য বিশেষ প্রোগ্রামটি তৈরি করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমান বিশ্বের ৩০ শতাংশ মানুষ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করছে। এখানে ভুয়া খবর ও অপব্যবহার বাড়ছে। এজন্য এখনই এটা ঠিক করা উচিত কেননা এই দায়িত্ব এড়িয়ে যাওয়ার পথ নেই।

ওডি/টিএফ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড