• মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন

এবার জর্ডানেও নিষিদ্ধ হলো পাবজি!  

  প্রযুক্তি ডেস্ক

০৯ জুলাই ২০১৯, ১৫:৩৬
পাবজি
অনলাইন গেম প্লেয়ার আননোন’স ব্যাটল গ্রাউন্ডস (পাবজি)। (ছবিসূত্র : বিবিসি নিউজ)

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন সময়ে নানা অভিযোগে জনপ্রিয় গেম পাবজি নিষিদ্ধ হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় সে তালিকায় এবার যুক্ত হলো জর্ডান। ক্ষতিকর প্রভাবের জন্য দেশটিতে এই গেম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। 

ব্যবহারকারীদের ওপর কুপ্রভাবের জেরেই সরকারিভাবে এই গেম নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলে দেশটির টেলিকম নিয়ন্ত্রক জানিয়েছে।

পাশাপাশি জর্ডানে পাবজি বেশ জনপ্রিয়। মূলত দেশের যুবসমাজের মধ্যে এই  গেমের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। আর এই বিষয়ে এর আগেও টেলিকম কর্তৃপক্ষ উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল।

জর্ডানের মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এই গেমে খেলার সময়ে অন্য খেলোয়াড়দের নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। ফলে তা অল্পবয়সীদের মধ্যে হিংসার জন্ম দিতে পারে।আর তার কিছুদিনের মধ্যেই দেশটিতে পাবজি নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 

এর আগে পাবজি ইরাক ও নেপালে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আর ভারতের গুজরাটে ও ইন্দোনেশিয়ার আচে-তেও এই অনলাইন গেম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। 

২০১৭ সালের ২৩ মার্চ পাবজি গেমটি মুক্তি পায়। সার্ভাইভাল ঘরানার গেমটিতে গেমারকে সম্পূর্ণ খালি হাতে অন্যান্য গেমারদের সঙ্গে একটি এলাকায় ছেড়ে দেওয়া হয়। এরপর এলাকায় থাকা অস্ত্র ও অন্যান্য জিনিসপত্র কাজে লাগিয়ে সবার মধ্যে টিকে থাকার মাধ্যমেই একেকটি ম্যাচ এগিয়ে চলে। শেষ পর্যন্ত জীবিত থাকা একজনই সেই ম্যাচের বিজয়ী হয়। 

বর্তমানে বিশ্বজুড়ে এই গেমের প্রায় ৪০ কোটি অ্যাকাউন্ট আছে। আর প্রতি মাসে বিশ্বের প্রায় ২৭ কোটি মানুষ নিয়মিত এই গেম খেলেন।

শুধু তাই নয়, অনেকে আবার এই গেমকে পেশা হিসাবেও বেছে নিচ্ছেন। ভারতসহ বিভিন্ন দেশে পাবজি নির্মাতা বা অন্যান্য সংস্থা নিয়মিত টুর্নামেন্টের আয়োজন করে। আর এই টুর্নামেন্টে জয়ী হলে মোটা অঙ্কের টাকা জেতার সুযোগ থাকে। আর এজন্যও টাকার নেশায় অল্পবয়সীরা এই গেমের দিকে ঝুঁকছে। 

ওডি/টিএফ 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড