• মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন

হ্যাকারদের পাঁচ কোটি টাকা মুক্তিপণ দেবে ফ্লোরিডা

  প্রযুক্তি ডেস্ক

২৩ জুন ২০১৯, ২২:১১
র‍্যানসমওয়্যার
ছবি : প্রতীকী

প্রায় তিন সপ্তাহ আগে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের রিভিয়েরা বিচ শহরে র‍্যানসমওয়্যার হামলা হয়।ফলে পুরো নগরবাসীর অনেক কাজ প্রায় অকেজো হয়ে যায়। এবার তাই নিজেদের কার্যক্রম আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিতে হ্যাকারদের ছয় লাখ ডলার বা পাঁচ কোটি টাকা মুক্তিপণ মুক্তিপণ দিতে সম্মত হয়েছে নগর কর্তৃপক্ষ।  

জানা গেছে, ওই হামলার পর অকেজো হয়ে পড়া কম্পিউটারগুলোকে আবারও কাজ করাতে সেখানকার তারা এই মুক্তিপণ দেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে। 

কম্পিউটার অকেজো হয়ে পড়ায় এলাকাতে ইমেইল ব্যবস্থায় ধ্বস নামে। আর স্থানীয় প্রশাসন  জরুরী ভিত্তিতে কাগজে লিখে ম্যানুয়াল পেপার ব্যবস্থা চালু করে।

এজন্য প্রায় ৩৫ হাজার নাগরিককে সরকারি সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি  হওয়ায় বিষয়টিতে সমাধান হিসেবেই শহর কর্তৃপক্ষ এ সিদ্ধান্ত নেয়। 

তবে দেশটির সাইবার বিশেষজ্ঞরা ইতোমধ্যে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। 

শহরের মুখপাত্র রোজ অ্যানি ব্রাউন বলেন, আমরা তাদের পরামর্শ অনুযায়ীই কাজ করব। তবে হ্যাকাররা তাদের দাবি করা অর্থ নেওয়ার পরও সব কম্পিউটার আগের অবস্থায় ফিরিয়ে দেবে কি না, সেটি তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারেন নি। আর হ্যাকারদের এই অর্থ ক্রিপ্টোকারেন্সি বিটকয়েন দিয়ে পরিশোধ করতে হবে বলেও জানান তিনি। 

অন্যদিকে হ্যাকিংয়ের শিকার হওয়ার পরই নতুন কম্পিউটার কেনার জন্য প্রায় আট কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে শহর কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত,গত মে মাসে হ্যাকাররা শহরটির কম্পিউটার ব্যবস্থায় র‍্যানসমওয়্যার হামলা চালায়। একজন কর্মী ইমেইলে পাঠানো ফাঁদে ক্লিক করায় পুরো ব্যবস্থায় এটি ছড়িয়ে পড়ে। ফলে পানির পাম্পের স্টেশনসহ অনেক সেবা বন্ধ হয়ে যায়।শুধু তাই নয়, টাকা তুলতে তখন হাতে স্বাক্ষর করা চেক বইও প্রয়োজন হয়। 

সাইবার বিশেষজ্ঞদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, হ্যাকাররা এমন শহরকে লক্ষ্য করে হামলা চালায় যেখানে তাদের লাভের পরিমাণটা বেশি থাকে। আর পৌর শহরগুলোর প্রযুক্তি নিরাপত্তা কিছুটা দুর্বল থাকায় সেখানে হামলা চালানো সহজ হয়। তাই হ্যাকারদের এখন অন্যতম লক্ষ্যবস্তু এখন পৌর শহরগুলো। 

এফবিআই থেকে জানা যায়, গতবছর যুক্তরাষ্ট্রে ১,৪৯৩টি র‌্যানসামওয়্যার হামলার  ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগীরা এসব ঘটনায় প্রায় ৩০ কোটি টাকা দিতে বাধ্য হয়েছেন। এছাড়া গতবছর যুক্তরাষ্ট্র সরকার প্রায় দুইশ হামলা চালানোর জন্য ২ জন ইরানি নাগরিককে অভিযুক্ত করে। তবে এখনও তাদের ধরা যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, ইতিমধ্যে তারা প্রায় ৫০ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছেন। 

ওডি/টিএফ       

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড