• বুধবার, ২৭ মার্চ ২০১৯, ১৩ চৈত্র ১৪২৫  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন

গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে হুয়াওয়ে কর্মকর্তা চাকরিচ্যুত

  অধিকার ডেস্ক    ১৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:১৯

হুয়াওয়ে
পোল্যান্ডে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে হুয়াওয়ে কর্মকর্তা চাকরিচ্যুত

টেলিকম জায়ান্ট হুয়াওয়ে পোল্যান্ডে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া চীনা কর্মকর্তা ওয়াং ওয়েজিংকে চাকরিচ্যুত করেছে। তিনি প্রতিষ্ঠানটির একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ছিলেন।   

শনিবার (১২ জানুয়ারি) হুয়াওয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘ব্যক্তিগত কারণে’ ওয়াং ওয়েজিং  গ্রেফতার হয়েছেন। দুনিয়াজুড়ে এই ঘটনা হুয়াওয়ের সুনাম ক্ষুণ্ন করেছে।  
 
যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ আনার পরই চাপের মুখে পড়ে হুয়াওয়ে। যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ হুয়াওয়ের যন্ত্রাংশকে বেইজিং রাষ্ট্রীয় গুপ্তচরবৃত্তির কাজে ব্যবহার করে। হুয়াওয়ে সরকারের হয়ে বিশ্বব্যাপী এ কাজ পরিচালনা করে।
  
যুক্তরাষ্ট্রে ২০১২ সাল থেকে হুয়াওয়ের কার্যক্রম পরিচালনা নিষিদ্ধ করা হয়। হোয়াইট হাউসের গোয়েন্দা কমিটি হুয়াওয়ের নিরাপত্তা ঝুঁকি সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করার পরই এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়। 
আন্তর্জাতিক মহলেও হুয়াওয়ের গুপ্তচরবৃত্তি নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। সম্প্রতি পোল্যান্ডের ঘটনায় দেশটির কর্মকর্তারা প্রতিষ্ঠানটির স্থানীয় কার্যালয়ে তল্লাশি চালিয়েছে । নিউজিল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়াও তাদের ফাইভ জি মোবাইল নেটওয়ার্ক তৈরির প্রকল্পে হুয়াওয়েকে যুক্ত না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

আরও পড়ুন 

হুয়াওয়ের প্রধান অর্থনৈতিক কর্মকর্তা গ্রেফতার

যুক্তরাষ্ট্রের পর এবার হুয়াওয়ের ডিভাইস বর্জন করছে যুক্তরাজ্য

এর আগে গত ১ ডিসেম্বর মার্কিন অনুরোধে প্রতিষ্ঠানটির সিএফও মেং ওয়ানঝুকে কানাডায় গ্রেফতার করা হয়। তিনি হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতার মেয়ে এবং তার উত্তরাধিকারী। 

জবাবে চীন হুঁশিয়ারি দেয়, কানাডাকে এর জন্য চরম মূল্য দিতে হবে। তারা চীনে থাকা কানাডার অন্তত ১৩ জনকে আটক করেছে। ওয়ানঝু এখন কানাডায় জামিনে আছেন। তবে তাকে পায়ে নজরদারি বেল্ট পরে থাকতে হয়। এমনকি তার চলাচলের ওপর বিধিনিষেধ রয়েছে। 

এ দিকে পোল্যান্ডের স্থানীয় একটি টেলিভিশন চ্যানেল জানিয়েছে, গ্রেফতারকৃত চীনা নাগরিক পোল্যান্ডে হুয়াওয়ের বিপণন বিভাগের পরিচালক। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মাসখানেক হেফাজতে রাখা হবে বলে তদন্তকারীদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

হুয়াওয়ে এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, তারা যে দেশে ব্যবসা করে সে দেশের আইন মেনে চলে এবং কর্মীদেরও আইন মেনে চলতে পরামর্শ দেয়। অন্যদিকে অরেঞ্জ বলেছে, একজন কর্মকর্তার বিষয়ে তদন্তকারীরা প্রমাণ সংগ্রহ করেছে। তবে ঠিক কোন কাজের পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত চলছে তা তাদের জানা নেই।  

সূত্র: আল জাজিরা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড