• শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন

সন্ধান মিলেছে নতুন এক গ্রহের

  জুবায়ের আহাম্মেদ ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৩:২৫

নতুন গ্রহ
'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' (wolf 503b) নামের নতুন গ্রহ

'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' (wolf 503b) নামের নতুন এক গ্রহের সম্প্রতি সন্ধান মিলেছে। নাসার কেপলার স্পেস টেলিস্কোপের মাধ্যমে নতুন এই গ্রহের সন্ধান পেয়েছে আমেরিকা, কানাডা এবং জার্মানির যৌথ এক গবেষণা দল। নতুন এই গ্রহের প্রথম আবিষ্কারক 'ইউনিভার্সিটি ডি মন্ট্রিল' এর শিক্ষার্থী মেরিন পিটারসন।

নতুন এই গ্রহ অবশ্য পৃথিবীর পড়শি তো নয়ই বরং বেশ দূরের কেউ বলা যায়। গবেষণা রিপোর্ট অনুযায়ী 'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' এর অবস্থান পৃথিবী থেকে ১৪৫ আলোকবর্ষ দূরে এক ছায়াপথে যা নিজ নক্ষত্রের কাছে মাত্র ৬ দিনে একবার পরিভ্রমণ সম্পন্ন করে। বিজ্ঞানীরা ধারণা করেন 'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' নক্ষত্রের খুবই কাছে অবস্থান করছে। সৌরজগতের হিসেব অনুযায়ী বুধ এবং সূর্যের মধ্যকার দূরত্বের প্রায় ১০ গুণ কম দূরত্বে আছে এটি। 

নিজের আবিষ্কার নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী পিটারসেন বলেন 'নাসার মে মাসের কেপলার কে-২ এর সদ্য প্রকাশিত ডাটার উপর আমরা খুব দ্রুত একটি কম্পিউটার প্রোগ্রাম চালাই। এবং এরই ফলে আমাদের কাছে সম্ভাব্য কিছু গ্রহের তালিকা চলে আসে। 'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' তেমনই একটি সম্ভাব্য গ্রহ।

মেরিন পিটারসেন এবং তার দলের এই প্রোগ্রাম যেকোন নক্ষত্রের গ্রহ উপস্থিতির কারণে বদলে যাওয়া আলোর গতিপথ কিংবা বিচ্ছিন্নতা নির্দেশ করে। এই ব্যাপারে আরো নিশ্চিত হবার জন্য গবেষণা দলটি নাসার ইনফ্রারেড ফ্যাকাল্টির দ্বারস্থ হয়। যা নিশ্চিত করে এই নক্ষত্রটি একটি 'লোহিত বামন'। যদিও এই নক্ষত্রের ঔজ্জ্বল্য সূর্যের চেয়ে কিছু কম কিন্তু এর আনুমানিক বয়েস সূর্যের প্রায় দ্বিগুণ। 'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি'র গ্রহ নিশ্চিত করতে গবেষণা দলটি আরো বিশদ গবেষণা করে যা নিশ্চিত করে এর আশপাশে অন্য কোন নক্ষত্রের অস্তিত্ব নেই।

'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' বেশ রহস্যময় একটি গ্রহ। প্রথমত এর আকারের জন্য। মিল্কিওয়ের অন্যান্য গ্রহের মতই এটি নিজ নক্ষত্রের চারপাশে প্রতিনিয়ত ঘুরছে। আকারের দিক বিবেচনায় এটি পৃথিবী এবং নেপচুনের মাঝামাঝি একটি অবস্থানে রয়েছে। যার অর্থ 'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' আকারে পৃথিবীর দ্বিগুণ। 

যদিও বিজ্ঞানীরা এখনো সন্দিহান এটি কি আদৌ পৃথিবীর মত কঠিন এবং পাথুরে নাকি নেপচুনের মতই গ্যাসীয় এক অবস্থা কিনা। সাম্প্রতিক আরেক গবেষণা অনুযায়ী পৃথিবী থেকে দেড় কিংবা দ্বিগুণ বড় আয়তনের গ্রহের সংখ্যা বেশ নগণ্য। আয়তনের এই পার্থক্য যা 'ফুল্টন গ্যাপ' নামে পরিচিত গ্রহের অবস্থার জন্য নির্দেশক হিসেবে কাজ করে এবং মজার ব্যাপার হলো 'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' এই ফুল্টন গ্যাপেরই অন্তর্ভুক্ত। 

গবেষণা দলের প্রধান বোন ব্যানেক বলেন 'একই ব্যাসার্ধের মধ্যে 'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি'ই একমাত্র যার নক্ষত্র এতটা উজ্জ্বল। এর ফলে এই গ্রহকে নিয়ে আমাদের গবেষণা আরো বেশি সুবিধাজনক হবে। এই আবিষ্কার ফুল্টন গ্যাপ, 'সুপার আর্থ' এবং 'সাব নেপচুন' সহ বিভিন্ন গবেষণার জন্যই বিশাল এক অর্জন। 

২য় যে বিষয়টি নিয়ে বিজ্ঞানীরা আশাবাদী তা হল এর পরিবেশ। 'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' এরই মাঝে পৃথিবীর চেনা পরিবেশের সাথে নিজের সামঞ্জস্য দেখিয়েছে। এর উজ্জ্বল নক্ষত্রের কল্যাণে এরই মাঝে এটি নাসার জেমস ওয়েব টেলিস্কোপ এর আওতাভুক্ত হয়েছে। 'ট্রানজিট স্পেকট্রস্কোপি'র মাধ্যমে গ্রহের ভৌত এবং রাসায়নিক গঠন নিয়ে বিস্তারিত জানার সুযোগ রয়েছে। এবং স্বাভাবিকভাবেই জীবনের অস্তিত্ব প্রমাণের জন্য এতে হাইড্রোজেন এবং পানির সন্ধানে গবেষণা করা হবে। বিজ্ঞানীদের কাছে এটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ কারণ এরই মাধ্যমে প্রমাণ হবে 'ওল্ফ ফাইভ জিরো থ্রি বি' কি নতুন একটি পৃথিবী নাকি নতুন এক নেপচুন নাকি একেবারেই আলাদা এক গ্রহ।
 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড