• শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন

ভুলে রাতে বিতরের নামাজ পড়া না হলে সকালে কীভাবে তা আদায় করবো?

  অধিকার ডেস্ক    ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:৪৮

কুরআনের আলো এবং আপনার জিজ্ঞাসা
কুরআনের আলো এবং আপনার জিজ্ঞাসা

মহান আল্লাহ তাআলা এই পৃথিবীতে মানুষ ও জিন জাতিকে পাঠিয়েছেন তার ইবাদতের জন্য। আল্লাহ্‌র আদেশ মেনে চলা, তার পছন্দনীয় কাজ করাই ইবাদত। একজন মুসলিম ব্যক্তির ইবাদত সংক্রান্ত পূর্ণাঙ্গ জীবনব্যবস্থার নির্দেশনা রয়েছে সর্বশ্রেষ্ঠ কিতাব ‘আল কুরআনে’। এর পাশাপাশি রয়েছে হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর বাণী ও জীবনাচরণ অর্থাৎ হাদিস। 

কুরআন ও হাদিসের আলোকে জীবনের প্রত্যেকটি বিষয় নিয়ে সঠিক ব্যাখ্যা জানার অধিকার রয়েছে সকল মুসলিমের। আপনার সেই অধিকার পূরণের লক্ষ্যেই 'দৈনিক অধিকার'- এর ইসলামিক প্রশ্ন-উত্তর বিষয়ক আয়োজন- ‘কুরআনের আলো এবং আপনার জিজ্ঞাসা’।

আপনি জানতে চাইতে পারেন নামাজ, রোজা, হজ বা জাকাত সংক্রান্ত যে কোনো বিষয়ে। দৈনন্দিন জীবনের যে কোনো বিষয় সম্পর্কে ইসলামের বিধান কী তাও জিজ্ঞাসা করতে পারেন। আপনার করা প্রশ্নের জবাব দেবেন বাংলাদেশের স্বনামধন্য ইসলামিক স্কলার ও আলেমগণ।  

কীভাবে প্রশ্ন পাঠাবেন :

আপনার প্রশ্ন আমাদের কাছে পাঠাতে পারেন যে মাধ্যমগুলোতে- 

-    দৈনিক অধিকারের ফেসবুক পেজের পিনপোস্টের কমেন্ট বক্সে
-    দৈনিক অধিকারের ফেসবুক পেজের ইনবক্সে
-    ([email protected]) ইমেইল এড্রেসে

বি.দ্র- প্রশ্নের সঙ্গে অবশ্যই যুক্ত করুন আপনার নাম, বয়স এবং জেলা।

প্রশ্ন : তাহাজ্জুদের নামাজ পড়ে, বিতর নামাজ পড়ি। যদি এক রাতে নামাজের জন্য উঠে দেখি সকাল হয়ে গেছে তখন বিতর নামাজ পড়বো কীভাবে? কয় রাকআত পড়বো?

উত্তর : রাতে ঘুমের কারণে বা ভুলে যাওয়ার কারণে বেতরের নামাজ ছুটে গেলে যখনই স্মরণ হবে তখনই পড়ে নিতে হবে। কেননা, ইবরাহীম বিন মুহাম্মদ রঃ. বলেন, তিনি আমর বিন শুরাহবীল রাঃ. এর মসজিদে ছিলেন, ইতোমধ্যে ফজরের নামাজের ইকামত হয়ে গেছে। মুক্তাদিরগণ তাঁর অপেক্ষা করছিল। তিনি এসে বললেন, আমি বিতরের নামাজ আদায় করছিলাম। 

আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাঃ. কে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, ফজরের আজানের পরে কি বেতরের নামাজ আদায় করা যায়? তিনি বলেছিলেন, হ্যাঁ। ইকামতের পরেও বিতরের নামাজ আদায় করা যায়, এমনকি সূর্য উঠার পরও তা আদায় করা যায়। কেননা নবী (সা.) একবার ঘুমে মগ্ন ছিলেন, আর সূর্য উঠার পর তাঁর ঘুম ভেঙ্গে যাওয়ায় তিনি ফজরের সুন্নত ও ফরজ নামাজ আদায় করেছিলেন। (সুনানে নাসায়ী, হা-৩২/১৬৮৮, সহীহ) 

সাহাবী আবু সাঈদ খুদরী রাঃ. বলেন, রাসূল (সা.) বলেছেন, যে ব্যক্তি বিতরের নামাজ না পড়ে ঘুমিয়ে গেল বা তা পড়তে ভুলে গেল, সে যখন ভোরবেলা উঠে বা যখন স্মরণ হয়, তখন যেন তা পড়ে নেয়। (সুনানে তিরমিযী, হা- ৪৬৫, সুনানে ইবনে মাজাহ, হা- ১১৮৮)

অতএব, ঘুমিয়ে পড়লে বা ভুলে গেলে যখনই মনে পড়বে তখনি বিতরের নামাজ রাতে যে নিয়মে আদায় করা হত, সেই নিয়মেই আদায় করে নিতে হবে।

প্রশ্নকারী : জেসমিন হক

উত্তর দিয়েছেন : মাওলানা আখতারুজ্জামান খালেদ, ইমাম ও খতীব।

প্রচলিত কুসংস্কারের বিরুদ্ধে ধর্মীয় ব্যখ্যা, সমাজের কোন অমীমাংসিত বিষয়ে ধর্মতত্ত্ব, হাদিস, কোরআনের আয়াতের তাৎপর্য কিংবা অন্য যেকোন ধর্মের কোন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, সর্বপরি মানব জীবনের সকল দিকে ধর্মের গুরুত্ব নিয়ে লিখুন আপনিও- [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড