• বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সীমিত পরিসরে মসজিদে নামাজ চালু রাখার আহ্বান জানিয়েছে ইফা

  মুনশি আমিনুল ইসলাম

২৫ মার্চ ২০২০, ১৫:০৫
ইসলাম
ছবি : সংগৃহীত

করোনা পরিস্থিতিতে দেশের মসজিদগুলোয় মুসল্লিদের জামাতে নামাজ আদায়ের বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ (ইফা)। মহামারি করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে দেশের সব মসজিদে নামাজের জামাত সীমিত করার আহ্বান জানিয়ে গত মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) ইফার পক্ষ থেকে বলা হয়- অসুস্থ ব্যক্তি, জ্বর, হাঁচি-কাশিতে আক্রান্ত এবং বিদেশফেরতদের মসজিদে না গিয়ে বাসাবাড়িতে নামাজ আদায় করতে হবে। তবে এখনই দেশের মসজিদগুলো বন্ধ করে দেওয়ার মত বড় ধরনের কোনো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে সৌদি আরবে মসজিদুল হারামাইনসহ সব মসজিদ বন্ধ রয়েছে। কুয়েত, মিসর, মালয়েশিয়াসহ আরও কয়েকটি মুসলিমপ্রধান দেশে মসজিদে নামাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। এ অবস্থায় বাংলাদেশের মসজিদগুলোতে এখনো নামাজ আদায়ে জমায়েত হচ্ছেন মুসল্লিরা। সরকার যদিও জনসমাগম বন্ধের নির্দেশনা দিয়েছে, তবে মসজিদের ধর্মীয় অনুভূতি নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ার শঙ্কায় দেশের শীর্ষ আলেমদের সঙ্গে এমন বৈঠকের উদ্যোগ নেয় ইফা। সম্প্রতি রাজধানীর টোলারবাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে দুজন মারা যাওয়া ব্যক্তি বিদেশফেরতদের সংস্পর্শে ছিলেন না। তবে তারা পরস্পরের ঘনিষ্ঠ ছিলেন এবং নিয়মিত মসজিদে নামাজ পড়তে যেতেন। এ ঘটনার পর থেকে মসজিদে জামাতে নামাজ আদায়ে জমায়েত হওয়ার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখছে সরকার।

মঙ্গলবারের বৈঠক শেষে শীর্ষ আলেমদের মতামতের ভিত্তিতে আরও যেসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে- করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে এবং মানুষের মৃত্যুঝুঁকি থেকে সুরক্ষার আকস্মিক পদক্ষেপ হিসেবে সর্বপ্রকার জমায়েত বন্ধের পাশাপাশি মসজিদসমূহে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজে মুসল্লিগণের উপস্থিতি সীমিত ও ক্ষুদ্র পরিসরে রাখতে হবে। মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিগণ সুরক্ষা পদ্ধতি অবলম্বনপূর্বক মসজিদে আজান ও জামাত যথাসম্ভব বজায় রাখবেন। তবে সর্বসাধারণ নিজ নিজ গৃহে অবস্থান করে জামাতবদ্ধ হয়ে নামাজ আদায় করে নেবেন।

তাছাড়া বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা ও সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মৃত ব্যক্তির দাফন সম্পন্ন হবে বলেও সিদ্ধান্ত হয় বৈঠকে।

ধর্মসচিব নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে জরুরি এ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ড. আনিস আহমেদসহ অন্য কর্মকর্তারা। আমন্ত্রিত শীর্ষ আলেমদের মধ্যে ছিলেন মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, মাওলানা আবদুল মালেক, মুফতি দিলাওয়ার হুসাইন, মুফতি মিযানুর রহমান সাঈদ, মাওলানা মাহফুজুল হক ও ড. মাওলানা কাফিলুদ্দীন সরকার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০ মার্চ এক বিজ্ঞপ্তিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশন মুসল্লিদের বাসা থেকে অজু করে নফল ও সুন্নত নামাজ পড়ে শুধু জুমার ফরজ নামাজ পড়তে মসজিদে আসার পরামর্শ দিয়েছিল। এছাড়া অসুস্থ ব্যক্তি, জ্বর, হাঁচি-কাশিতে আক্রান্ত এবং বিদেশফেরতদের মসজিদে না যাওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছিল। করোনার কারণে লাইলাতুল মিরাজের আয়োজনও বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়েছিল ইফা।

প্রচলিত কুসংস্কারের বিরুদ্ধে ধর্মীয় ব্যখ্যা, সমাজের কোন অমীমাংসিত বিষয়ে ধর্মতত্ত্ব, হাদিস, কোরআনের আয়াতের তাৎপর্য কিংবা অন্য যেকোন ধর্মের কোন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, সর্বপরি মানব জীবনের সকল দিকে ধর্মের গুরুত্ব নিয়ে লিখুন আপনিও- [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড