• বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ-ইউকের সংবাদ সম্মেলন

  মুহিব উদ্দিন চৌধুরী, যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি

০১ অক্টোবর ২০২২, ১২:০৫
হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ-ইউকের সংবাদ সম্মেলন
সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে (ছবি : অধিকার)

হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ-ইউকের পক্ষ থেকে গত ২৬ সেপ্টেম্বর পূর্ব লন্ডনের সোনারগা রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে।

এতে যে সমস্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয় সেগুলোর মধ্যে রয়েছে- জরুরি ভিত্তিতে প্রবাসীদের জন্য বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন, প্রবাসীদের এনআইডি প্রদানের কাজ দ্রুতকরণ, নো ভিসা স্ট্যাম্প রিকুয়ারম্যান্ট এবং পাওয়ার অফ অ্যাটর্নি আগের মত প্রদান, পাসপোর্ট পেতে বিলম্ব রহিতকরণ ও বিমানের আকাশচুম্বী ভাড়া স্থগিতকরণ ইত্যাদি।

এইচ আর পি বি ইউকে প্রেসিডেন্ট সাংবাদিক রহমত আলীর সভাপতিত্বে উক্ত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন- সংগঠনের জেনারেল সেক্রেটারি সাবেক স্পিকার কাউন্সিলার আয়াছ মিয়া।

এতে বলা হয়, সংগঠনের মাধ্যমে ২০১৯ সাল থেকে প্রবাসীদের জন্য বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠনের দাবি করে আসা হচ্ছে। আর তখন থেকে এ ব্যাপারে সংবাদ সম্মেলন, সভা সমাবেশ ও দেশ থেকে আসা এমপি মন্ত্রী ও অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিদের সাথে বিভিন্ন সময় মতবিনিময় করা হয়েছে। সাথে সাথে সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রেসিডেন্ট এডভোকেট মনজিল মোরসেদ যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশে প্রবাসীদের সাথে মতবিনিময়কালে এ বিষয়টি উপস্থাপন করে আসছেন। তাই এ ট্রাইব্যুনালটি যত দ্রুত সম্ভব গঠন করা জরুরি।

নো-ভিসা রিকুয়ার্ড এর প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বর্তমানে বাংলাদেশ হাই কমিশনের নিয়মানুযায়ী যাদের বাংলাদেশী পাসপোর্ট, ন্যাশনাল আইডি কার্ড, অথবা যাদের বার্থ সার্টিফিকেট আছে তারা যথাযথ নিয়মে আবেদন করে পেতে পারেন। কিন্তু যাদের এগুলো নেই তারা এ ভিসা পাবেন না। সাথে সাথে তাদের স্বামী স্ত্রী বা সন্তানাদিও পাবেন না।

আরেকটি বিষয় হলো একজন বাংলাদেশি ব্রিটিশ নাগরিক স্বামী স্ত্রী কিংবা সন্তানাদি যদি তাদের স্পাউস অথবা পিতা মাতার পাসপোর্টে নো ভিসা স্ট্যাম্প থাকে সেটাও ভিসা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে গ্রহণযোগ্য হবেনা। এমতাবস্থায় অনেকে দেশে যেতে পারছেন না। তাই তাদের মৌলিক অধিকার খর্ব হচ্ছে। এমতাবস্থায় সংগঠনের দাবি আগের মত যেভাবে এগুলো দেওয়া হয়েছে সেভাবে দেওয়া হোক।

এ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয় পাওয়ার অব অ্যাটর্নির ক্ষেত্রে বর্তমানে যাদের ব্রিটিশ পাসপোর্ট তারা এ সুযোগ পাচ্ছেন না। তাই তারা নানাভাবে সমস্যায় পড়েছেন। তাই এ পদ্ধতিকে আরও সহজ করা প্রয়োজন বলে উল্লেখ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আয়োজনকারীরা উল্লেখ করেন, প্রবাসীদের জন্য আবেদন করা নতুন পাসপোর্ট পেতে ৬ মাস থেকে ১ বছর পর্যন্ত বিলম্ব হচ্ছে। সাথে সাথে নতুন আবেদন ও হাতের লিখা পাসপোর্টের পরিবর্তে এম আর পি জমা নেয়া হচ্ছে না বলে জানা গেছে। এমতাবস্থায় অনেকে দেশ যাত্রা এবং ভিসা প্রসেসিং এর সুযোগ করতে পারছেন না।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন- সংগঠনের সভাপতি মো. রহমত আলী, জেনারেল সেক্রেটারি কাউন্সিলার আয়াছ মিয়া ও লিগ্যাল সেক্রেটারি সলিসিটর নাবিলা রফিক।

প্রবাস জীবন, আকাঙ্খা, প্রত্যাশা-প্রাপ্তির সমীকরণ সবই লিখুন দৈনিক অধিকারকে [email protected] আপনার প্রবাস জীবনের প্রতিটি ক্ষুদ্র অনুভূতিও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড