• মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

এপ্রিলে আন্দোলনে যাচ্ছে ঐক্যফ্রন্ট

ঐক্যফ্রন্ট
বৈঠকে ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা (ছবি : সংগৃহীত)

পুনরায় জাতীয় নির্বাচনের দাবিতে পুরো এপ্রিল মাস বিভাগীয় ও জেলা শহরে গণশুনানি ও কর্মিসমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এছাড়াও অন্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ২৬ মার্চ স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ, ৩০ মার্চ মানববন্ধন, ৩১ মার্চে কর্মী সমাবেশ।
 
শুক্রবার (২২ মার্চ) রাজধানীর পুরানা পল্টনের প্রীতম জামান টাওয়ারে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অফিসে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। এ সময় ঐক্যফ্রন্টের অন্তর্ভুক্ত সংগঠন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আ স ম আব্দুর রব বলেন, দেশের গণতন্ত্র ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। আমরা দাবি করেছিলাম পুনরায় নির্বাচনে সরকার কর্ণপাত করেনি। আমরা আমাদের দাবিতে এখনো অনড় রয়েছি। ডাকসুতেও ভোট ডাকাতি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

রব বলেন, নিরাপদ সড়ক দিতে সরকার ব্যর্থ হয়েছে। উপজেলা নির্বাচনে কারচুপি ও ভোট ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ভোটাররা ভোট দিতে যায়নি। ভোটকেন্দ্রে কুকুর শুয়ে আছে, নিরাপত্তাকর্মীরা ঘুমুচ্ছে এমন ছবিও প্রকাশ্যে এসেছে। স্বাধীনতার খণ্ডিত ইতিহাস প্রকাশ করা হচ্ছে। এর রহস্য কী? আজ যুবসমাজ, ছাত্রসমাজ হতাশ। একদলীয় নয়, বরং এক ব্যক্তির শাসনে দেশ চলছে।

জেএসডি সভাপতি আরও বলেন, ব্যাংকগুলো থেকে টাকা চুরি হয়ে যাচ্ছে। সেই টাকা ফেরত আসার কোনো সম্ভাবনা পর্যন্ত নেই। অর্থ লুটেরাদের ক্ষমা করে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। অপরদিকে গরিব কৃষকদের ঠিকই গ্রেফতার করছে।

কর্মসূচি ঘোষণার আগে স্টিয়ারিং কমিটির ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক হয়। সেখানে ঐক্যফ্রন্টের নেতারা কর্মসূচির দিনক্ষণ ঠিক করেন।

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ নেতা ইকবাল সিদ্দিকী। 

গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। ঐক্যফ্রন্টের অন্তর্ভুক্ত দলগুলোর মধ্যে বিএনপিও রয়েছে। বিএনপির নির্বাচনি প্রতীক ধানের শীষ নিয়ে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীরা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্ট সাতটি আসন পায়। এর মধ্যে রয়েছে বিএনপির পাঁচটি ও গণফোরামের দুইটি আসন।
 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড