• রবিবার, ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন

রাজ্জাকের পদত্যাগে যা বলল জামায়াত

  অধিকার ডেস্ক ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:০৩

ব্যারিস্টার রাজ্জাক-জামায়াত
ছবি : সংগৃহীত

জামায়াতে ইসলামীর অন্যতম সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক দল থেকে পদত্যাগ করায় ‘ব্যথিত ও মর্মাহত’ বলে জানায় দলটি। তবে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবীর সঙ্গে ‘মহব্বতের সম্পর্ক’ অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছে জামায়াত।

শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিকালে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলেছেন।

শুক্রবার সকালে জামায়াতে ইসলামীকে বিলুপ্ত এবং ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে ভূমিকার জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার পরামর্শ দিয়ে ব্যারিস্টার রাজ্জাককে দল থেকে পদত্যাগ করার প্রেক্ষিতে তিনি এই বিবৃতি দেন।

বিবৃতিতে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান উল্লেখ করেন, ‘ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাকসহ আমরা দীর্ঘদিন একই সঙ্গে এই সংগঠনে কাজ করেছি। তিনি জামায়াতে ইসলামীর একজন সিনিয়র পর্যায়ের দায়িত্বশীল ছিলেন। তার অতীতের সব অবদান আমরা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করি। তার পদত্যাগে আমরা ব্যথিত ও মর্মাহত। পদত্যাগ করা যেকোনো সদস্যের স্বীকৃত অধিকার। আমরা দোয়া করি তিনি যেখানেই থাকুন, ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। আমরা আশা করি তার সঙ্গে আমাদের মহব্বতের সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে।’

উল্লেখ্য, বর্তমানে যুক্তরাজ্যে অবস্থান করছেন ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক। সেখানে যাওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় সে সময়ে কারাগারে আটক থাকা জামায়াত নেতাদের প্রধান কৌঁসুলি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী আমীর মকবুল আহমদ বরাবর পদত্যাগপত্র পাঠান তিনি। এই পদত্যাগের কারণ হিসেবে তিনি ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় জামায়াতের ভূমিকাকেই সামনে এনেছেন। বর্তমানে যুক্তরাজ্যে অবস্থান করা ব্যারিস্টার রাজ্জাক পদত্যাগপত্রে উল্লেখ করেন- তিনি দুই দশক ধরে দলের শীর্ষ নেতাদের বোঝাতে চেয়েছেন যে, জামায়াত যেন একাত্তরের ভূমিকার জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চায়। কিন্তু স্বাধীনতার চার দশক পরও জামায়াত সেটি করেনি।

জামায়াতের এই শীর্ষ নেতা পদত্যাগপত্রে উল্লেখ করেন, স্বাধীনতায় বিরোধিতার জন্য তিনি জামায়াতকে বিলুপ্ত করে দেয়ারও প্রস্তাব করেছিলেন দলীয় ফোরামে। কিন্তু জামায়াত সেটি করেনি।

পদত্যাগপত্রে তিনি আরও বলেন, ওই ইস্যুতে তিনি জামায়াতকে বিলুপ্ত করে দেওয়ারও প্রস্তাব করেছিলেন দলীয় মজলিসে শুরার সর্বশেষ প্রকাশ্য অধিবেশনে।

যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত দল জামায়াতে ইসলামী নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে যখন জোর আলোচনা হচ্ছে এবং পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে জামায়াত যখন নতুন কোন নামে রাজনীতি সচল করার চিন্তা করছে, তখন দলটির এই শীর্ষ নেতার পদত্যাগ করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড