• বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সমর্থকদের শান্ত থাকতে বললেন মামুনুল হক

  নজরুল ইসলাম শুভ, সোনারগাঁ

০৩ এপ্রিল ২০২১, ২২:০৯
মাওলানা মামুনুল হক
হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক (ছবি : সংগৃহীত)

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ রয়েল রিসোর্টের ৫০১ নম্বর কক্ষে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্ত হয়ে সমর্থকদের শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক।

শনিবার (৩ এপ্রিল) সন্ধ্যার পর মামুনুল হক অবরুদ্ধ থাকার সংবাদ শুনে কয়েকশ মানুষ রিসোর্টটির সামনে এসে জড়ো হয়। এ সময় তারা স্লোগান দিয়ে ভাঙচুর শুরু করে। পরে সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। এ সময় সমর্থকদের সঙ্গে মিছিল সহকারে মোগড়াপাড়ার দিকে যান মামুনুল হক। পরে স্থানীয় একটি ঈদগাহ ময়দানে বক্তব্য রাখেন তিনি।

মামুনুল হক বলেন, আপনাদের ভালোবাসার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। সাংবাদিক ও পুলিশ আমার সঙ্গে কোনো খারাপ আচরণ করেনি। কিছু বাইরের লোক খারাপ আচরণ করেছে। লাগাতার কাজের চাপের কারণে আমার একটু রিফ্রেশমেন্ট দরকার ছিল। এ জন্য আমি আমার দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে এখানে ঘুরতে এসেছিলাম।

এ দিকে রাত ৮টায় হেফাজতকর্মীরা দ্বিতীয় দফায় রয়েল রির্সোটে গিয়ে ভাঙচুর শুরু করে। হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের দাবি, হুজুরের স্ত্রীকে ছেড়ে দিতে হবে। ব্যাপক ভাঙচুরের একপর্যায়ে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) টি.আই মোশারফ হোসেন ওই নারীকে নিয়ে পাঁচতলা থেকে নিচে স্থানীয় হেফাজত নেতাকর্মীদের জিম্মায় ছেড়ে দেন।

মামুনুল হক ও নারীকে ছেড়ে দেওয়ার পরে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে হেফাজত ইসলামের নেতাকর্মীরা একত্রিত হয়ে এ ঘটনার প্রতিবাদে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উপর টায়ার জ্বালিয়ে প্রায় আধা ঘণ্টা বিক্ষোভ করে। এ সময় মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তবিদুর রহমান বলেন, এখানে মামুনুল হক একজন নারীকে নিয়ে উঠেছেন, এই খবর পেয়ে এলাকার লোকজন ও ছাত্রলীগ-যুবলীগের কিছু নেতা-কর্মী তার কক্ষটি ঘিরে রাখেন। খবর পেয়ে পুলিশও আসে।

এদিকে মামুনুল হককে আটক বা হেফাজতে নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ। সোনারগাঁ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, মামুনুল হক ওই নারীকে দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করায় এবং ওই নারী মামুনুল হককে স্বামী দাবি করায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ভাঙচুরের সঙ্গে যারা জড়িত তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড