• মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০, ১৭ চৈত্র ১৪২৬  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মাস্ক নিয়ে মামদোবাজি!

  মো. খালিদ হাসান মিলু

০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৭:০১
মাস্ক
বাড়ছে মাস্কের ব্যবহার (ছবি : সংগৃহীত)

করোনা ভাইরাসে নাকাল চীন। প্রতিদিন মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। আক্রান্তের সংখ্যাও থেমে নেই। সংক্রমণ থেকে বাঁচতে মাস্ক ব্যবহার করছেন সবাই। তবে মাস্ক পড়ে ভাইরাস থেকে বাঁচার সম্ভাবনা কতটুকু তা অবশ্য ভাববার বিষয়।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের (সিডিসি) গবেষণা অনুযায়ী ২০০৯ সালের সোয়াইন ফ্লু মহামারী প্রতিরোধে ফেসমাস্ক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

তবে NIOSH N95 অথবা European standard EN 149 FFP3 পেনডেমিক ফ্লু রোগীদের জন্য বেশ কার্যকর। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধী মাস্ক হিসেবে ইতোমধ্যে N95 বেশ পরিচিতি পেয়ে গেছে। ফলে ঢাকার ফার্মেসি গুলোতে এর দাম ১ হাজার থেকে ১২শ টাকায় পৌঁছেছে।

ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনে সেন্ট জর্জেসের ড. ডেভিড ক্যারিংটন বলেন, ‘সাধারণ সার্জিক্যাল মাস্ক বায়ুবাহিত ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে সুরক্ষা দিতে যথেষ্ট নয়।’

কিন্তু হঠাৎ করেই দেশে এবং দেশের বাইরে মাস্কের চাহিদা বেড়ে গেছে। এএফপির বরাতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান তেদ্রস আধানম ঘেব্রেইয়েসুস বলেন, ‘বিশ্ব ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক সরঞ্জামের দীর্ঘমেয়াদি ঘাটতির মুখোমুখি হচ্ছে। ডব্লিউএইচও এবং এর অংশীদারদের এই মুহূর্তে যত মাস্ক প্রয়োজন তা নেই।’

আবহাওয়া পরিবর্তনজনিত কারণে কিংবা ধুলাবালি, সর্দি-কাশি থেকে বাঁচতে মাস্ক বেশ কার্যকর। ক্রনিক রাইনোসাইনাসাইটিস ও সিভিয়ার ডাস্ট অ্যালার্জি আছে এবং ধুলাবালিতে ইনফেকশন হয় এমন রোগীর জন্য রাস্তায় বের হলে নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করা প্রায় বাধ্যতামূলক হয়ে পড়ে। আর যদি ঢাকা কিংবা গাজীপুরের মতো জায়গা হয় তবে মাস্ক ব্যবহার অবশ্য কর্তব্য।

কিন্তু দেশে মাস্ক নিয়ে এক নতুন মামদোবাজি দেখছে জনগণ। গাজীপুরের জয়দেবপুরে প্রায় দশটা ফার্মেসি খুঁজে মাস্ক পাওয়া যায় নি। যা আছে তা প্রায় দশগুণ দামে বিক্রি হচ্ছে। ৭০-৮০ টাকায় বিক্রি হওয়া মাস্কের প্যাকেট এখানে ৫শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এদিকে জয়দেবপুরে হকারদের কাছে প্রত্যেকটি মাস্কের মূল্য ১০ থেকে ২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ নিয়ে তাদের কাছে জানতে চাইলে আমদানি সংকটকে দায়ী করেছেন তারা।

নতুন নতুন ইস্যুতে ব্যবসায়ীদের লাভের প্রবণতা এদেশে নতুন নয়। কিরণমালা মেহেদী, পাখি জামা কিংবা পেঁয়াজ যুগ শেষে ব্যাপারটা আজ করোনা ভাইরাস পর্যন্ত গড়িয়েছে।

ক্রেতাদের অভিযোগ, দোকানীরা মাস্ক স্টক করে রেখে দিয়েছে, সময়মতো অতি চড়া দামে ছাড়ার জন্য।

এদিকে মাস্কের সংকট নিয়ে ফার্মেসি মালিকদের বক্তব্য মাস্কের আমদানি কম।

আরও পড়ুন : স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও আমার স্বপ্ন

আরএফএল গ্রুপের গেটওয়েল দেশীয় মাস্ক প্রস্ততকারক প্রতিষ্ঠান গুলোর একটি। গেটওয়েল এর একজন শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তা অবশ্য দেশে মাস্কের চাহিদার তুলনায় উৎপাদনের অপ্রতুলতার কথা স্বীকার করেছেন। তবে শুধু উৎপাদন অপ্রতুলতাই কি মুখ্য সেটা অনুসন্ধানের বিষয় বৈ কি।

লেখক : শিক্ষার্থী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

ওডি/এমএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড