• বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ওই দেখা যায় কাতারের বিজয় পতাকা!

  মাহবুব নাহিদ

১৭ আগস্ট ২০২২, ১৫:৪২
মাহবুব নাহিদ 
মাহবুব নাহিদ 

বিজয় সেটা তো সাহস থেকেই আসে! চাটুকারিতা কিংবা তোষামোদি নয়। সকল বাধা বিপত্তি ডিঙিয়ে সকল সাগর নদী পার হতে হয়। বিশ্বকাপ আয়োজনের এক কঠিন লড়াইয়ে কাতার যেন জেগে উঠেছে সুপ্ত আগ্নেয়গিরির মতো। জ্বলতে পারবে কিনা তা নিয়েই ছিল সংশয় কিন্তু এমন জ্বলা জলেছে তাতে জ্বলছে অনেকের। ভিতরে ভিতরে অনেক লড়াই করতে হয়েছে কাতারকে।

১১০০০ বর্গকিলোমিটারের এই ছোট্ট দেশটাকে করতে হয়েছে অনেক যুদ্ধ। সে যুদ্ধ গোলাবারুদের নয়, এই যুদ্ধ মাথার সাথে মাথার, বুদ্ধির সাথে বুদ্ধির, মনের সাথে মনের। প্রথমত বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য লড়াই করতে হয়েছে আমেরিকার মতো দেশকেও। কিন্তু তোয়াক্কা করেনি কাতার, বিজয়ীর বেশে ছিনিয়ে এনেছে পতাকা। ছিল না নাঠ, বানিয়ে ফেলে তাও। একটা বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য যা যা প্রয়োজন সবকিছু গড়ে তুলেছে কাতার। মাঠে কৃত্রিমভাবে শীতলীকরণ ব্যবস্থাও করেছে তারা। বিশ্বকাপ ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে যে মাঠে সেই মাঠ লুসাইলকে ঘিরে গড়ে তুলেছে এক লুসাইল সিটি! বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য তারা খরচ করতে যাচ্ছেন ২২৮ বিলিয়ন ডলার যা বিগত দশ বিশ্বকাপের খরচ এক করলেও তার চেয়ে বেশি থাকবে।

টাকার কতই না জোর! শুধু কি টাকা দিয়ে সবকিছু জয় করা যায়? জয় করতে হলে মনে বিশ্বাস আর ভালোবাসাও থাকতে হয়। তাইতো বিশ্বকাপ চলাকালীন হোটেলে চলবে না কোনো মদের আসর, জমে উঠবে না নারী নিয়ে মাতামাতির আসর কিংবা বসবে না সমকামীদের পসরা! হয়তো শুনতে খারাপ শোনায় বা দেখতে খারাপ দেখায় তবে সত্য যে আসলেই কঠিন। কাতারকে ধন্যবাদ এমন কঠিন সিদ্ধান্ত তারা নিতে সক্ষম হয়েছে! ফিফা তো মানতে নারাজ ছিল কিন্তু সেটাকেই রাজি করার পর্যায়ে এনেছে কাতার। না হোক এবার বিয়ার স্যাম্পেনের খেলা! একটা নতুন বিশ্বকাপ দেখুক না পৃথিবী!

বিশ্বকাপের ঠিক একশো দিন আগে সবাইকে চমকে দেওয়ার মতোই একটা খবর দিয়েছে কাতার। ইসরায়েলের কেউ ঢুকতে পারবে বিশ্বকাপের মঞ্চে, আসতে হবে রক্ত দিয়ে ফিলিস্তিনের পাসপোর্ট সমেত। এমন সিদ্ধান্ত যে শুধু টাকা থাকলেই নেওয়া যায় না তা বুঝতে দার্শনিক হবার প্রয়োজন নেই। এমন কাজ করতে বুকে দম থাকতে হয়, আর থাকতে হয় অদম্য সাহস আর সবকিছু ছিড়েখুঁড়ে লক্ষ্য পানে এগিয়ে যাওয়ার শপথ।

অনেকেই কাছে ধুসর, তামাটে মনে হবে এই বিশ্বকাপ কিন্তু বহুকাল তো চলেছে পশ্চিমা বিশ্বের রঙে ঢঙে চলা বিশ্বকাপ। একবার একটু দেখেই নেই কাতারের এই সাদামাটা বিশ্বকাপ। এর মধ্যেই অনেকে বিশ্বকাপ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। মাত্রই দেখলাম জার্মানির কোচ ফ্যান্সি ফ্লিক বলেছেন, এই সাদামাটা বিশ্বকাপ দেখতে কেউ আসবেন না। আমাদের দেশের জনপ্রিয় একজন ক্রীড়া সাংবাদিকও দেখলাম বিশ্বকাপ বয়কট করেছেন। কিন্তু একটা বিষয় ভেবে দেখেন যে মুসলিম বিশ্ব তো এতগুলো বিশ্বকাপ মেনে নিয়েই সেখানে অংশগ্রহণ করেছেন। তারা হয়তো মদের বোতল থেকে লুকিয়ে বেড়িয়েছেন, দূরে সরে থেকে থেকেছেন! কিন্তু কেউ তো বিশ্বকাপ বয়কট করতে আসেননি। এতবার যদি পশ্চিমা নিয়মে বিশ্বকাপ চলতে পারে আর তাতে যদি ভিন্ন মতের কেউ বয়কট না করে থাকে তাহলে একশো বছরে একবার হোক না কাতারের নিয়মে!

চলমান আলোচিত ঘটনা বা দৃষ্টি আকর্ষণযোগ্য সমসাময়িক বিষয়ে আপনার মতামত আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাই, সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড