• শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, ৫ মাঘ ১৪২৫  |   ১৭ °সে
  • বেটা ভার্সন

সুখের পেছনে ছুটছে শহর!

  রেহেনা আক্তার রেখা ০৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১৬:০৯

সুখের ঠিকানা
ছবি : প্রতীকী

‘সুখ’ একটি আপেক্ষিক বিষয়। এটিকে পরিমাপ করা যায় না, তবে অনুভব করা যায়। অনেকে এই সুখের আশায় সাত সমুদ্রে পাড়ি জমান। অনেকে আবার এ সুখের ঠিকানা খুঁজে পান হাতের ডগায়। অনেকে আছেন দামি দামি গয়না, দামি দামি শাড়ির মাঝে খুঁজে পান সুখ। অনেকে আবার সুখ খুঁজে পান মায়ের পুরনো শাড়ির আঁচলের স্নেহমাখা আলতো ছোঁয়ায়।

অনেকে এ সুখের সন্ধানে দিনের পর দিন পরিশ্রম করে যান, এক টুকরো সুখের আশায় অপেক্ষা করে থাকেন বছর পর বছর। অনেকে এই সুখ খুঁজে নেন দিনশেষে সন্তানের হাসিতে। কেউ কেউ দু’চালা মাঠির ঘরে সারাজীবন কেটে দেন সুখরে সাগরে। কেউ কেউ রাজমহলে বসবাস করেও খুঁজে পান না সুখের ঠিকানা।

অনেকে সুখ মানে মনে করেন টাকা পয়সা, গাড়ি-বাড়ি। আর এই টাকার পেছনে ছুটতে ছুটতে একসময় সে নিজেই হারিয়ে ফেলে সুখ নামক সোনার হরিণটি। ইট পাথরের শহরের মানুষগুলোর কাছে সুখ মানে বিলাসবহুল জীবনযাপন, সুখ মানে অর্থ বিত্ত। অন্যদিকে, গ্রামের সহজ সরল মানুষদের কাছে সুখ মানে প্রকৃতির মনোরম পরিবেশে বুক ভরে নিঃশ্বাস নেওয়া, সুখ মানে বাদল দিনে টিনের চালে বৃষ্টির শব্দ শুনতে শুনতে প্রিয় মানুষগুলোর সঙ্গে আড্ডায় মেতে উঠা। অন্যদিকে, ফুটপাতে বেড়ে ওঠা ছেলেটির কাছে সুখ মানে দু’বেলা দু’মোটো ভাত।

আমরা সুখ নামক এই সোনার হরিণটিকে পেতে গিয়ে ছুটে চলি অবিরত। অনেকের জীবনে খুব সহজে ধরা দেয় সুখ। আর অনেকে সারাটিজীবন পার করে দিয়েও পান না সুখের দেখা। সুখ বিষয়টা সম্পূর্ণ মনের ব্যাপার। যারা অল্পতে খুশি হন, আর জীবনের প্রতিটি দিনকে অনুভব করতে শেখে তারাই সুখের ঠিকানা খুঁজে পান সহজে। অনেকে আছেন অন্যের উপকার মাঝে নিজের সুখ খুঁজে নেন। তবে মহৎ কাজের মাধ্যমে ব্যক্তি আপনা আপনি পেয়ে যান সুখ। কারো কাছে সুখ মানে প্রিয় মানুষটির সঙ্গে গৌধূলী লগ্নে সূর্য দেখা, কারো কাছে সুখ মানে হেমন্তের সোনালী রোদে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে প্রিয় মানুষটার জন্য অপেক্ষা করা।

কেউ কেউ সুখ খু্ঁজে পান বাবা-মায়ের স্নেহভরা আদরে। আবার কেউ কেউ সুখ খুঁজে পান অতীতের ভালো লাগার কিছু মুহূর্ত স্মরণ করে। এই সুখ নামক সোনার হরিণটি বড়ই অদ্ভুত। কেউ চাইলেই হাতের মুটো পেয়ে যান, আর কেউ শত বছর খুঁজতে গিয়ে পান না কোনো সন্ধান।

মানুষ হলো ভালোবাসার কাঙ্গাল। এ ভালোবাসায় নিহিত রয়েছে জীবনের যত সুখ, সুখ লুকিয়ে আছে কাউকে সত্যিকারের ভালোবাসতে পারার মাঝে, সুখ লুকিয়ে আছে ত্যাগে। কথায় আছে-না ‘ভোগে সুখ নেই ত্যাগে প্রকৃত সুখ’। হ্যাঁ, কথাটি সত্যিই। আপনি কোনো জিনিস ভোগ করে যতটানা সুখ পাবেন, তার চেয়ে হাজারগুন সুখ পাবেন ত্যাগে। অন্যের জন্য নিজের সর্বোচ্চ বিসর্জন দেওয়ার মাঝে লুকিয়ে আছে সুখ। যারা মহান, যারা উদার, যারা অন্যের খুশিতে নিজে খুশি হয়, অন্যের উপকারে নিজেকে বিলিয়ে দেন খুব সহজে সুখ নামক সোনার হরিণটা তাদের ধরা দেয়।

সুখের আশায় প্রহরগুনি আমরা সবাই। শীতের সকালে ভেজা শিশিরে অনেকে খুঁজে পান চিরসুখ। সুখ আছে মায়ের বকুনিতে, সুখ আছে বাড়ন্ত বয়সে বাবার শাসনে, মানুষ যখন শৈশব পার করিয়ে জীবনের মাঝামাঝি চলে আসে তখন শৈশবে বাবা-মায়ের শাসনকে বড্ড মিস করে। আর তাতে খুঁজে নেই জীবনের পরম সুখ। সুখ নেই এমন কিছু নেই। তবে এই সুখটাকে খুঁজে নিতে হবে আপনাকে। আপনি একটি বিষয়কে যেভাবে নেবেন সেটি আপনার কাছে সেভাবে ধরা দেবে। সুখ বিচরণ করে সর্বস্তরে। আর সেই সুখটাকে খুঁজে পেতে আপনাকে অনুভব করতে শিখতে হবে। দুঃখের মাঝেও রয়েছে অনাবিল সুখ। দুঃখটিকে জয় করতে পারলেই আপনি খুঁজে পাবেন সুখের প্রকৃত ঠিকানা।

লেখক : সাংবাদিক

চলমান আলোচিত ঘটনা বা দৃষ্টি আকর্ষণযোগ্য সমসাময়িক বিষয়ে আপনার মতামত আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাই, সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড