• বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

দৈনিক অধিকার নবান্ন সংখ্যা-১৯

এই মিছিলগুলোই একদিন ইতিহাস হবে

  ধ্রুপদী রিপন

০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৯:৫০
কবিতা
কেউ একজন হাসো তো ভাই আমার হয়ে (ছবি: সম্পাদিত)

সেখানে শান্তি নেই

যে পৃথিবীতে ভালোবাসা শুধু মৃত্যুর গল্প শোনায়, চলনে-বলনে-মননে ভালোবাসা যেখানে বেঁধে দেয়া শিকল; রাজনীতি যেখানে ক্ষমতা দখলের হাতিয়ার হয়ে বিপ্লবীও লেবাসী সে পৃথিবীতে তো ধর্মের নামে রক্তের হোলি চলবেই চলবে হরদম।

তোমাকে চাই

তার চোখে দেখেছি- মন ভোলানো মিষ্টি হাসি খোপায় গাঁথা হেনার গন্ধ বাতাসে যায় যে ভাসি। আলতা রঙে রাঙানো সে ঠোঁট যেন রক্তে মাখা মায়াবী চোখ জোড়া তার কাজল কালিতে আঁকা। কোমল দু’হাতে চুড়ির শব্দ যেন মধুমাখা এক সুর নূপুরও বাজে রিনি-ঝিনি শব্দে লাগে যে কত মধুর। উদাস হয়েছি তার চাহনীতে- মন দিয়েছি তারে চাই না প্রেম তবু যে কেন ফিরে আসি বারে বারে। দক্ষিণা বাতাসে শাড়ির আচলে কী জানি কি বুঝি যত ব্যথা দাও যেথা চলে যাও আমি নেব তোমা খুঁজি। যে হাসিতে তুমি পাগল করেছ কাঙ্গাল করেছ মোরে আজ কেন তবে চাহনি ফিরিয়ে চলে যেতে চাও দূরে! তোমার বুকের বাঁ পাঁজরে যেথা গহীন অন্তর আছে অসাধ্য হলেও জয় করে নেব যুগ যুগ ভালোবেসে। যে হাসি তোমায় বিধাতা দিয়েছে তার তো তুলনা নাই মরণ যদি হয় বরণ করে নেব- তবু যে তোমাকে চাই।

দূরত্ব বৃদ্ধি

দগ্ধ হতে হতে একদিন কেটে যাবে প্রতীক্ষিত প্রহর, জানি ততো দিনে লেখা হবে শত সহস্র কবিতা; কবিতার গন্ধে আসবে রাতের ঘুম; দিনের বাতাসে সেদিন তোমার শরীরের সুগন্ধি তখন হয়ে যাবে মহাকালের অতীত; তীব্রতা ভেদে জন্মানো আমাদের এ ভালোবাসা হবে লুণ্ঠিত। ভাবের প্রগাঢ়তা হয় তো ঔচিত্যের প্রশ্নে হবে মন্থর এখানে যে দৃঢ় চিত্তে এই তুমি তোমাদের কাছে পরাধীন- ব্যকুল প্রাণের আকুল আকুতি সেখানে হবে যাযাবরের কাব্য; তাই অপলক চোখে প্রত্যক্ষ করি আমাদের দূরত্ব বৃদ্ধি।

ইতিহাসের দলিলে

এই মিছিলগুলোই একদিন ইতিহাস হবে ইতিহাসের সোনালি অক্ষরে লেখা থাকবে প্রত্যেকটি স্লোগান। তোমরা যারা প্রতিবাদী; যাদের স্লোগানে মুখরিত হয়েছে রাজপথ, যারা দূরে দাঁড়িয়ে সমর্থন করেছো ন্যায়- সোনালি অক্ষরে তারাও সেদিন ইতিহাসের দলিল। যারা দূরে দাঁড়িয়ে তামাশা দেখেছো- আর যারা লিপ্ত হয়েছো লুণ্ঠন-পাপাচার, অন্যায়-জুলুমে- তারা জেনে নাও, তোমাদের শাস্তিই হবে মহাজাগতিক উদাহরণ।

না-মানুষ

কেউ একজন কাঁদুক না হয় আমার হয়ে গতির সাথে পাল্লা দিয়ে ব্যস্ত আমি কান্না করার সময় যে আমার নেই। কেউ একজন হাসো তো ভাই আমার হয়ে আমি যে ভাই কাজের চাপে মুচড়ে গেছি হাসি তো ছাই, দম ফেলবার সময়টুকুও নেই। কেউ একজন খোঁজ নিক না আত্মীয়গুলোর আমার কী আর আছে সময়? খোঁজ নিতে চায় আসুক যারা লাগলে টাকা নিক তো তারা দেবার মতো সময় তো আমার নেই! কেন এতো ছুটছি আমি? জানি না ভাই কিসের লড়াই নিজের খেয়ে তবুও ডড়াই। চলছে সময়- চলছে সবাই, চলছি আমি আমি কে আর তোমরা কারা, কে বা স্বামী মানুষ হবার সময় আমার নেই!

আরও পড়ুন : হৃদয় নিংড়ে ঢেলে দিবো শীতের মোহর

ওডি/এসএন

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড