• বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চার্জশিটে মিন্নির চরিত্রটি উপন্যাসের মতো!

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:১৯
মিন্নি
আইনজীবী জেডআই খান পান্নার চেম্বারে মিন্নি (ছবি : সংগৃহীত)

চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী ও নিহতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি বর্তমানে জামিনে রয়েছেন। রবিবার (২২ সেপ্টেম্বর) তিনি সুপ্রিমকোর্ট বারে তার আইনজীবী জেডআই খান পান্নার চেম্বারে সাক্ষাত করেন। মিন্নির সঙ্গে তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরও ছিলেন। এ সময় আইনজীবী জেডআই খান পান্না সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

চার্জশিটে আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির ‘চরিত্র’ মনগড়া উপন্যাসের মতো করে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এই আইনজীবী সাংবাদিকদের বলেন, চিকিৎসক ও আইনজীবীর সঙ্গে পরামর্শের বিষয় রয়েছে। মামলার চার্জশিটের (অভিযোগপত্র) বিষয়ে আগাগোড়াই কথা বলেছি- এটা মনগড়া উপন্যাস। আসলে মূল আসামিদের এই মামলা থেকে অব্যাহতি দিতে এমন কাণ্ড করা হলো। নাথিং নিউ, এটা জাহালম ও জজ মিয়ার আরেকটা সংস্করণ।

আদালতে রিফাত শরীফের স্ত্রী মিন্নির দেওয়া জবানবন্দি প্রকাশের ব্যাপারে জেডআই খান পান্না বলেন, আমি কোর্টে বসেই এটা দেখেছি। আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত যখন আমাদের দেখাতে দিতে বলেছিলেন, তখনই এক নজর এটা দেখেছি। সেটাও (১৬৪ ধারায় জবানবন্দি) একটা উপন্যাস। সুপ্রিমকোর্ট বারের সভাপতি কোর্টকে বলেছেন- ‘এত সুন্দরভাবে লেখা, এটা চিন্তারও বাইরে, সুস্থ মাথায় এত সুন্দর করে লেখতে পারে না।’

মিন্নির আইনজীবী জেডআই খান পান্না সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন (ছবি : সংগৃহীত)

এটা প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন কি না, এমন প্রশ্নে সুপ্রিমকোর্টের এই আইনজীবী বলেন, আগেই আবেদন করা হয়েছে। মিন্নি তো নিজেই জেলখানা থেকে করেছেন।

অন্য একটি প্রশ্নে তিনি বলেন, এটা ছিল পুলিশের কাছে। সেখানটা ছাড়া তো আসতে পারে না। এর আগে আমরা দেখেছি; এটা সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে। আদালতের কাছে দেওয়ার আগেই এটা প্রকাশ হয়ে গেল। এটা ঠিক হয়নি। এটা আদালত অবমাননা।

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় ৩ সেপ্টেম্বর বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে গ্রেফতারের ৪৮ দিন পর বরগুনা জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান মিন্নি। তিনি দুই শর্তে কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন।

২৬ জুন সকাল সোয়া ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে রিফাত শরীফকে গুরুতর আহত করে। তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি হামলাকারীদের সঙ্গে লড়াই করেও তাদের দমাতে পারেননি। গুরুতর আহত রিফাতকে ওইদিন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ ও পাঁচ-ছয়জনকে অজ্ঞাত আসামি করে বরগুনা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ওডি/এমআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড