• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

সিগারেটের সর্বোচ্চ দাম ২০ টাকা!  

  অধিকার ডেস্ক

১৩ জুন ২০১৯, ১৮:১৮
সিগারেট
ছবি : প্রতীকী

নতুন অর্থবছরের (২০১৯-২০) প্রস্তাবিত বাজেটে বিড়ি ও সিগারেটসহ সব ধরনের তামাকজাত পণ্যের ওপর সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রস্তাবনা অনুযায়ী, নিম্নস্তরের সিগারেট প্রতি শলাকার দাম হবে ন্যূনতম ৫ টাকা ৭৩ পয়সা, মধ্যম স্তরে ১০ টাকা ৪০ পয়সা এবং উচ্চ স্তরের সিগারেটের দাম হবে ন্যূনতম ১৫ টাকা ৩৫ পয়সা। সর্বোচ্চ ২০ টাকা ৩০ পয়সা হবে এই স্তরের সিগারেটের দাম।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকাল ৩টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়। পরে জাতীয় সংসদ ভবনে বাজেটের বক্তৃতা শুরু করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তবে বাজেট বক্তৃতার সময় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাজেট পেশ করেন।

বাজেট প্রস্তাবনায় সিগারেটের নিম্নস্তরের ১০ শলাকার দাম ৩৭ টাকা এবং এর ওপর ৫৫ শতাংশ শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে। মধ্যম স্তরের ১০ শলাকার দাম ৬৩ টাকা ও ৬৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্কের প্রস্তাব করা হয়েছে। আর উচ্চ স্তরের ১০ শলাকা সিগারেটের দাম ৯৩ টাকা ও ১২৩ টাকা এবং প্রতিটির ওপর ৬৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে।

এই হিসাব অনুযায়ী, কোনো স্তরের সিগারেটের দামই ৫ টাকা ৭৩ পয়সার কমে হবে না। অন্যদিকে, সর্বোচ্চ ২০ টাকা ৩০ পয়সা হবে এক শলাকা সিগারেটের দাম।

যন্ত্রের সাহায্য ছাড়া হাতে তৈরি ফিল্টারবিহীন বিড়ির ২৫ শলাকার দাম ১৪ টাকা এবং ৩৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। আর ফিল্টার সংযুক্ত বিড়ির ২০ শলাকার দাম ১৭ টাকা ও এর ওপর ৪০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

এ দিকে, বিড়ি-সিগারেটের মতো আরেকটি পণ্য জর্দা ও গুল। প্রতি ১০ গ্রাম জর্দার দাম ৩০ টাকা ও ৫০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক এবং প্রতি ১০ গ্রাম গুলের দাম ১৫ টাকা এবং ৫০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক নির্ধারণের জন্য বাজেটে প্রস্তাব করা হয়েছে। 

ওডি/আরএডি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড