• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

তিউনিশিয়ায় নৌকাডুবিতে নিহতদের ৬ জনই সিলেটের

  অধিকার ডেস্ক

১২ মে ২০১৯, ১২:৫৭
তিউনিশিয়ায় নৌকাডুবি
ছবি : সংগৃহীত

তিউনিশিয়া উপকূলে নৌকা ডুবে নিহত বাংলাদেশিদের মধ্যে ছয়জনের প্রত্যেকেই সিলেট জেলার বাসিন্দা। এর মধ্যে ৪ নিহতের বাড়ি সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে।

ফেঞ্চুগঞ্জের চারজন হলেন- উপজেলার কটালপুর এলাকার মুয়িদপুর গ্রামের হারুন মিয়ার ছেলে আব্দুল মিয়া (২৫), একই গ্রামের মন্টু মিয়ার ছেলে আহমদ (২৪), সিরাজ মিয়ার ছেলে লিটন (২৪) এবং দিনপুর গ্রামের আফজাল হোসেন (২৫)। 

এ বিষয়ে ফেঞ্চুগঞ্জ উত্তর কুশিয়ারা ইউনিয়মের চেয়ারম্যান আহমেদ জিলু জানান, উদ্ধার হওয়াদের মধ্যে বেলাল আহমেদ নামে একজন রয়েছেন, যার বাড়ি সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে। তিনিই ফোনে এ সংবাদ দিয়েছেন। তিনি জানান- নৌকায় তারা ৮০ জন ছিলেন। এর মধ্যে ১৪ জন বেঁচে ফিরেছেন। বাকিরা সবাই সাগরে নিখোঁজ। 

আহমেদ জিলু আরও বলেন, নৌকা ডুবিতে নিহত হওয়ার খবর শোনার পর বাড়িতে স্বজনদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

নৌকা ডুবিতে নিহত অন্য ২ জন হলেন- মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার বকশিমইলের বাসিন্দা সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদের ছোট ভাই শামীম আলম ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আহমদের ছোট ভাই কামরান আহমদ (মারুফ)। তার বাড়ি গোলাপগঞ্জ উপজেলার শরীফগঞ্জ ইউনিয়নের কদুপুর গ্রামে। তার বাবার নাম ইয়াকুব আলী। 

ভূমধ্যসাগরে নৌকা ডুবে নিহত আজিজের ভাই মফিজুর রহমান বলেন, শনিবার (১১ মে) বিকাল ৩টার দিকে তিউনিশিয়া উপকূল থেকে বেঁচে যাওয়া তারই চাচা মুয়িদপুর গ্রামের দিলাল মিয়া ফোনে বিষয়টি জানিয়েছেন। 

এ ব্যাপারে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বদরুজ্জামান জানান, তিনি ঘটনাটি শুনেছেন। এ বিষয়ে বিস্তারিত খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।  

সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মাহবুবুল আলমও নিহতদের বিষয়ে খোঁজ-খবর নেওয়ার কথা জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার (৯ মে) দিনগত গভীর রাতে লিবিয়া উপকূল থেকে ৭৫ জন অভিবাসীবাহী একটি বড় নৌকা ইতালি পাড়ি জমায়। ভূমধ্যসাগরে গিয়ে নৌকাটি ডুবে গেলে প্রায় ৬০ জন অভিবাসী সাগরে ডুবে নিহত হন। 

সাগরে ডুবে নিহতদের অধিকাংশই বাংলাদেশি নাগরিক বলে জানিয়েছে তিউনিশিয়ার রেড ক্রিসেন্ট। সংস্থাটি বলছে, গভীর সাগরে বড় নৌকা থেকে অপেক্ষাকৃত ছোট একটি নৌকায় তোলা হলে কিছুক্ষণের মধ্যেই সেটি সাগরের ঢেউয়ের কারণে ডুবে যায়।

শনিবার (১২ মে) সকালে সাগর থেকে ভাসমান অবস্থায় ১৬ জনকে উদ্ধার করে জারযিজ শহরের তীরে নিয়ে আসেন তিউনিশিয়ার জেলেরা। উদ্ধার হওয়া অভিবাসীরা জানান, সাগরের ঠাণ্ডা পানিতে প্রায় আট ঘণ্টা ভেসে বেঁচে ফিরলেন তারা।

ওডি/এএস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড