• শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৩ বৈশাখ ১৪২৬  |  
  • বেটা ভার্সন

তৃতীয় ধাপের নির্বাচনেও আ. লীগের জয়জয়কার

  অধিকার ডেস্ক    ২৫ মার্চ ২০১৯, ০২:২৬

উপজেলা নির্বাচন
উপজেলা নির্বাচন

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তৃতীয় ধাপে রবিবার (২৪ মার্চ) ২৫টি জেলায় ১১৭টি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিকাল ৪টায় ভোট গ্রহণ শেষে গণনা শুরু হয়। এরপর থেকেই বিভিন্ন উপজেলার ফল ঘোষণা করা হয়।

দলীয়ভাবে বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করায় বরাবরের মতোই ভোটার উপস্থিতি ছিল কম। কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলায় আগের রাতে ব্যালট বাক্স বোঝাই করে রাখার অভিযোগে ভোট স্থগিত করা হয়েছে। এ ঘটনায় দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এছাড়া চট্টগ্রাম, বরিশাল ও নড়াইলে সংঘর্ষ ও হামলায় দুই পুলিশ সদস্যসহ ৫৯ জন আহত হয়েছেন। এদিকে চট্টগ্রামের চন্দনাইশে ভোট জালিয়াতিতে বাধা দিতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন পুলিশ কনস্টেবল। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, চট্টগ্রামের চন্দনাইশে জোর করে ভোট দিতে গেলে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা দ্রুত পুলিশের সহায়তা নিয়ে একদল দুর্বৃত্তকে বাধা দেয়। এতে দুর্বৃত্তরা পুলিশের ওপর গুলি চালায়। সেখানে এক কনস্টেবল আহত হন।

নির্বাচনে অনিয়ম অভিযোগে সারা দেশে অন্তত পাঁচ প্রিসাইডিং অফিসারসহ ৪৩ জনকে আটক করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের বেশির ভাগ আসনে নৌকার প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। তবে কয়েকটি উপজেলায় বিদ্রোহীরা জয় ছিনিয়ে নিয়েছেন। ১২৭টি উপজেলায় তফসিল ঘোষণা করা হলেও রবিবার ১১৭টি উপজেলায় নির্বাচন হয়েছে। বিএনপিসহ অন্যান্য বিরোধী দলগুলো ভোট বর্জন করায় ৩২ উপজেলায় চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ৯ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৩ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। আর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় ৬টি উপজেলায় ভোট হয়নি। এছাড়া নরসিংদী সদর ও কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাচন চতুর্থ ধাপে নেয়া হয়েছে। মামলার কারণে কক্সবাজারের কতুবদিয়া ও চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে।

আগের দুই ধাপেও ভোটার উপস্থিতি ছিল বেশ কম। প্রথম ধাপে ৪৩ দশমিক ৩২ শতাংশ ও দ্বিতীয় ধাপে ৪১ দশমিক ২৫ শতাংশ ভোট পড়ে। দুই ধাপে ১৮৯ উপজেলায় ভোটের হার ছিল ৪২ দশমিক ২৮ শতাংশ।

নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে ১১৭ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৩৪০ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫৮৪ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩৯৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

এই ধাপে ৯ হাজার ২৯৮টি ভোটকেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ১ কোটি ১৮ লাখ ৮৭ হাজার ৭৫১ জন। প্রথমবারের মতো ৪ টি উপজেলায় ইভিএমে ভোট হয়েছে। এগুলো হচ্ছে মানিকগঞ্জ সদর, মেহেরপুর সদর, গোপালগঞ্জ সদর ও রংপুর সদর। আগামী ধাপে আরও ৬টি উপজেলায় ইভিএমে ভোট হবে বলে জানা গেছে।

চুয়াডাঙ্গা : সদরে আ.লীগের আসাদুল হক বিশ্বাস, আলমডাঙ্গায় আ. লীগের বিদ্রোহী আইউব হোসেন, দামুড়হুদায় আ. লীগ বিদ্রোহী আলী মুনছুর বাবু, জীবননগরে আ. লীগ বিদ্রোহী হাফিজুর রহমান বিজয়ী হয়েছে।রংপুর : সদরে আ.লীগের নাসিমা জামান ববি এবং মিঠাপুকুরে আ.লীগের জাকির হোসেন নির্বাচিত।

নড়াইল : সদরে আ. লীগের নিজামউদ্দিন খান নিলু।

মাগুরা : সদরে আওয়ামী লীগের আবু নাসির বাবলু, শ্রীপুরে আ’লীগ বিদ্রোহী মাহমুদুল গণি শাহিন শালিখায় আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী অ্যাড. কামাল হোসেন মহম্মদপুরে আ’লীগ বিদ্রোহী আবু আবদুল্লাহেল কাফি জয়ী হয়েছে।

লোহাগড়া : আ. লীগের বিদ্রোহী সিকদার আবদুল হান্নান রুনু, কালিয়া : আ. লীগের কৃষ্ণপদ ঘোষ বিজয়ী হয়েছেন।

সাতক্ষীরা : সদরে আ. লীগের মো. আসাদুজ্জামান বাবু, তালায় আ. লীগের ঘোষ সনৎ কুমার, কলারোয়ায় আ. লীগের বিদ্রোহী আমিনুল ইসলাম লাল্টু, আশাশুনিতে আ. লীগের এবিএম মোস্তাকিম, দেবহাটায় আ. লীগের আবদুল গনি, কালীগঞ্জে আ. লীগের বিদ্রোহী সাঈদ মেহেদি, শ্যামনগরে আ. লীগের এসএম আতাউল হক দোলন জয়ী হয়েছেন।

কুষ্টিয়া : সদরে আ. লীগের আতাউর রহমান আতা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া দৌলতপুরে আ. লীগের এজাজ আহমেদ (মামুন), ভেড়ামারায় আ. লীগের আক্তারুজ্জামান মিঠু, মিরপুরে আ. লীগের কামারুল আরেফিন, কুমারখালীতে আ. লীগের আবদুল মান্নান খান, খোকসায় আ. লীগের সদর উদ্দিন খান জয়ী হয়েছেন।

মেহেরপুর : সদরে আ. লীগের অ্যাডভোকেট ইয়ারুল ইসলাম, মুজিবনগরে আ. লীগের জিয়া উদ্দীন বিশ্বাস বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া গাংনীতে আ. লীগের এমএ খালেক জয়ী হয়েছেন।

ঝিনাইদহ : কালীগঞ্জে আ. লীগের মো. জাহাঙ্গীর সিদ্দিক (ঠাণ্ডু) বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। সদরে আ. লীগের অ্যাডভোকেট মো. আবদুর রশীদ, হরিণাকুণ্ডুতে আ’লীগ বিদ্রোহী জাহাঙ্গীর হোসাইন জয়ী হয়েছেন।

বরিশাল : সদরে আ. লীগের সাইদুর রহমান রিন্টু, বানারীপাড়ায় আ. লীগের গোলাম ফারুক, বাকেরগঞ্জে আ. লীগের মোহাম্মদ শামসুল আলম চুন্নু, আগৈলঝাড়ায় আ. লীগের আবদুর রইচ সেরনিয়াবাত, গৌরনদীতে আ. লীগের সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী, মুলাদীতে আ. লীগের মো. তারিকুল হাসান খান মিঠু বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া উজিরপুরে আ. লীগের আবদুল মজিদ সিকদার, বাবুগঞ্জে আ. লীগের কাজী ইমদাদুল হক দুলাল, হিজলায় আ. লীগের বিদ্রোহী মো. বেলায়েত হোসেন ঢালী জয়ী হয়েছেন।

ঝালকাঠি : নলছিটিতে আ. লীগের সিদ্দিকুর রহমান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া সদরে আ. লীগের খান আরিফুর রহমান, কাঁঠালিয়ায় আ. লীগের এমাদুল হক মনির ও রাজাপুরে আ. লীগের অধ্যক্ষ মো. মনিরউজ্জামান চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

ভোলা : বোরহানউদ্দিনে আ. লীগের আবুল কালাম আজাদ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

মাদারীপুর : কালকিনিতে আ. লীগের গোলাম ফারুক, শিবচরে আ. লীগের সামসুদ্দিন খান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া রাজৈরে আ. লীগের এমএ মোতালেব মিয়া জয়ী হয়েছেন।

শরীয়তপুর : জাজিরায় আওয়ামী লীগের মোবারক আলী সিকদার, ভেদরগঞ্জে আওয়ামী লীগের হুমায়ুন কবির মোল্লা, সদরে আওয়ামী লীগের আবুল হাসেম তপাদার, নড়িয়ায় আওয়ামী লীগের একেএম ইসমাইল হক, ডামুড্যায় আওয়ামী লীগের আলমগীর হোসেন মাঝি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া গোসাইরহাটে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ফজলুল রহমান ঢালী জয়ী হয়েছেন।

মানিকগঞ্জ : সদরে আওয়ামী লীগের মো. ইসরাফিল হোসেন, সাটুরিয়ায় আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ, শিবালয়ে মো. রেজাউর রহমান খান জানু ও হরিরামপুরে দেওয়ান মো. সাইদুর রহমান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত। এছাড়া ঘিওরে আওয়ামী লীগের অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান হাবিব, সিংগাইরে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী মুশফিকুর রহমান খান হান্নান ও দৌলতপুরে আওয়ামী লীগের নুরুল ইসলাম রাজা জয়ী।

লক্ষ্মীপুর : রায়পুরে আওয়ামী লীগের অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ, সদরে যুবলীগ সভাপতি একেএম সালাহ উদ্দিন টিপু (দোয়াত কলম), রামগঞ্জে আওয়ামী লীগের মনির হোসেন চৌধুরী (নৌকা), রামগতিতে স্বতন্ত্র শরাফ উদ্দিন আজাদ সোহেল (কাপ পিরিচ) ও কমলনগরে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মেজবাহ উদ্দিন আহমদ বাপ্পি জয়ী।

কিশোরগঞ্জ : মিঠামইনে আওয়ামী লীগের আছিয়া বেগম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া ভৈরবে আওয়ামী লীগের সায়দুল্লাহ মিয়া, হোসেনপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ সোহেল, কুলিয়ারচরে আওয়ামী লীগের ইয়াছির মিয়া বিজয়ী।

গোপালগঞ্জ : টুঙ্গিপাড়ায় সোলায়মান বিশ্বাস, কোটালীপাড়ায় বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাস জয়ী হয়েছেন। এছাড়া সদরে আওয়ামী লীগ নেতা শেখ লুৎফর রহমান বাচ্চু (দোয়াত-কলম), মুকসুদপুরে কাবির মিয়া (উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা) জয়ী।

রাজবাড়ী : গোয়ালন্দে আওয়ামী লীগের মো. নুরুল ইসলাম ও বালিয়াকান্দিতে আওয়ামী লীগের মো. আবুল কালাম আজাদ (আওয়ামী লীগ) বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত। বালিয়াকান্দিতে আওয়ামী লীগের আবুল কালাম আজাদ, পাংশায় ফরিদ হাসান ওদুদ মন্ডল (বিদ্রোহী প্রার্থী) জয়ী।

গাজীপুর : কালিগঞ্জে আওয়ামী লীগের মোয়াজ্জেম হোসেন পলাশ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত।

নরসিংদী : পলাশে জাবেদ হোসেন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত। শিবপুরে আওয়ামী লীগের হারুনুর রশিদ, মনোহরদীতে আওয়ামী লীগের সাইফুল ইসলাম খান বীরু, বেলাবোতে আওয়ামী লীগের সমশের জামান ভূইয়া ও রায়পুরায় আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী আব্দুস সাদেক জয়ী।

চাঁদপুর : মতলব উত্তরে আওয়ামী লীগের এমএ কুদ্দুস, মতলব দক্ষিণে আওয়ামী লীগের এএইচএম গিয়াস উদ্দিন, হাজীগঞ্জে আওয়ামী লীগের গাজী মাইন উদ্দিন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া চাঁদপুর সদরে আওয়ামী লীগ প্রার্থী নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ফরিদগঞ্জে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট জাহিদুল ইসলাম রোমান, শাহরাস্তিতে আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরিদউল্যাহ চৌধুরী, কচুয়া উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির।

চট্টগ্রাম : আনোয়ারায় আওয়ামী লীগের তৌহিদুর হক চৌধুরী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বাঁশখালীতে আওয়ামী লীগের চৌধুরী মুহাম্মদ গালিব সাদলী, চন্দনাইশে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মোহাম্মদ আবদুল জব্বার চৌধুরী, বোয়ালখালীতে আওয়ামী লীগের মো. নুরুল আলম, পটিয়ায় আওয়ামী লীগের মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী জয়ী।

কক্সবাজার : উখিয়ায় আ. লীগের অধ্যাপক হামিদুল হক চৌধুরী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত। মহেশখালীতে আ. লীগের বিদ্রোহী শরীফ বাদশা (আনারস), পেকুয়ায় যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম (দোয়াত কলম), রামুতে আ’লীগ বিদ্রোহী সোহেল সরওয়ার কাজল (আনারস), টেকনাফে যুবলীগ নেতা নুরুল আলম (মোটরসাইকেল) জয়ী। বিভিন্ন উপজেলায় ভোটের চিত্র-

চট্টগ্রাম : আওয়ামী লীগ চেয়ারম্যান প্রার্থী একেএম নাজিম উদ্দীনের একদল সমর্থক পূর্ব চন্দনাইশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র দখলের চেষ্টা করে। পুলিশ তাদের বাধা দিলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ ফাঁকা গুলি ছোড়ে।কেন্দ্র দখল চেষ্টাকারীরাও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এতে পুলিশ কনস্টেবল ফরহাদ হোসেন গুলিবিদ্ধ হন। এছাড়া শাহ আলম নামে এক এএসআই ইটের আঘাতে আহত হন। গুলিবিদ্ধ পুলিশ সদস্যকে প্রথমে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় পরে তাকে ঢাকা পাঠানো হয়। বাঁশখালী ও পটিয়ায় জাল ভোট দেয়াসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে দুই প্রিসাইডিং অফিসারসহ ১৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

কটিয়াদী ও পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) : রাতে ব্যালট বাক্স ভরাসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) প্রত্যাহার করা হয়েছে। অনিয়মের অভিযোগে এ উপজেলায় ভোটগ্রহণও স্থগিত করা হয়েছে। পাকুন্দিয়ায় কারচুপির অভিযোগে ভোট বর্জন করেছেন জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম শওকত।

বরিশাল : বাবুগঞ্জ উপজেলার আগরপুর আলতাফ মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোট দেয়ার সময় রাজু (২৫) নামে এক ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। এ উপজেলায় জাল ভোট ও ছেলেকে মারধরসহ বিভিন্ন অভিযোগে নির্বাচন বর্জন করেছেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মির্জা খাদিজা বেগম। উজিরপুর উপজেলার একটি ভোটকেন্দ্রে সিলমারা ব্যালট পাওয়া গেছে। হিজলা উপজেলার মাউলতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

শেরপুর : নালিতাবাড়ী, ঝিনাইগাতী ও শ্রীবরদী উপজেলায় কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট হয়েছে। সকালে কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতি বাড়ে। জাল ভোট দেয়া ও বিশৃঙ্খলার অভিযোগে ঝিনাইগাতী ও নালিতাবাড়ী থেকে ৯ জনকে আটক করা হয়েছে। শ্রীবরদীতে জোর করে নৌকায় সিল মারার চেষ্টার অভিযোগে ২ জনকে তিন দিন করে সাজা দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

নড়াইল : কালিয়া উপজেলায় আ’লীগ মনোনীত (নৌকা) ও বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৯ রাউন্ড গুলি করে। রোববার দুপুর ১২টার দিকে নওয়াগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

চাঁদপুর ও ফরিদগঞ্জ : সদর উপজেলার রামপুর সদর ইউনিয়নের রামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। ফরিদগঞ্জ উপজেলায় কেন্দ্র দখল, নৌকা প্রতীকে জাল ভোট এবং এজেন্টদের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে নির্বাচন বর্জন করেছেন আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী তোফায়েল আহাম্মেদ ভূঁইয়া।

চকরিয়া (কক্সবাজার) : পেকুয়া সদর ইউনিয়নের মেহেরনামা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে বিদ্রোহী প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের সমর্থকদের হামলায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সাতক্ষীরা : কলারোয়ার বাটরা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণের শুরুতে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ সময় একজন মুক্তিযোদ্ধাসহ তিনজন আহত হয়েছেন। এদিকে আশাশুনিতে নৌকার পক্ষে জাল ভোট ও নিজের এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শহিদুল ইসলাম পিন্টু। ঝালকাঠি, রাজাপুর ও কাঁঠালিয়া : কেন্দ্র দখল ও জাল ভোটের অভিযোগে ঝালকাঠিতে ভোট বর্জন করেছেন আওয়ামী লীগের ৩ বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী। রাজাপুরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদ হোসেনকে (৪৯) ২টি অস্ত্রসহ আটক করেছে পুলিশ।

চুয়াডাঙ্গা : কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি ছিল কম। নৌকা মার্কায় সিল মারার অভিযোগে আলমডাঙ্গায় এক প্রিসাইডিং অফিসার ও এক সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারকে আটক করা হয়েছে।

মাগুরা : সদর উপজেলার শত্রুজিতপুর কেপি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোট দেয়ার সময় সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার এসএম মনিরুজ্জামানকে আটক করা হয়েছে। এদিকে শালিখায় আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছেন।

কুষ্টিয়া : খোকসা উপজেলায় প্রকাশ্যে ব্যালট পেপারে ছিল মারার অভিযোগে প্রকাশ কুমার ভৌমিক নামে এক সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারকে তাৎক্ষণিক প্রত্যাহার করা হয়েছে।

ঝিনাইদহ : শৈলকুপা উপজেলায় জাল ভোট দেয়ার অভিযোগে ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। একই উপজেলায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছেন। কালীগঞ্জের দুলালমুন্দিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার আবদুল্লাহ আল মাসুমকে মারধর করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মীরা। এ সময় পুলিশ শাহিন নামের এক পোলিং এজেন্টকে আটক করেছে।

ভৈরব : প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর ভাগ্নেসহ ২ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। অনিয়মের অভিযোগে ৩টি কেন্দ্রে ভোট স্থগিত।

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) : জাল ভোট-কেন্দ্র দখলসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে ৬ জনকে আটক করা হয়েছে।

নরসিংদী : শিবপুরে জাল ভোট, ব্যালট পেপার ছিনতাইসহ নানা অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে। নৌকায় জাল ভোট দেয়ার অভিযোগে মাজাহারুল নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

মানিকগঞ্জ : দৌলতপুর উপজেলার একটি ভোটকেন্দ্রে জাল ভোটের কারণে ভোটগ্রহণ স্থগিত ও একজন সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারকে আটক করা হয়েছে। অনিয়ম, কারচুপির অভিযোগে ভোট বর্জন করেছেন দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড