• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬  |   ৩৫ °সে
  • বেটা ভার্সন

জাহালমকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

  অধিকার ডেস্ক    ২০ মার্চ ২০১৯, ১৬:২৩

জাহালম
জাহালম

টাঙ্গাইল জেলার জাহালমের আটকের বৈধতা প্রশ্নে জারি করা রুল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এ ঘটনা নিয়ে নাটক, চলচ্চিত্রসহ এ জাতীয় সব কিছু নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন হাইকোর্ট।

বুধবার (২০ মার্চ) বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কেএম হাফিজুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

হাইকোর্টে দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন। অপরদিকে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জাহিদ সারোয়ার কাজল ছিলেন রাষ্ট্রপক্ষে।

এ বিষয়ে খুরশীদ আলম খান পরে সাংবাদিকদের বলেন, জাহালমের মামলা হাইকোর্টে বিচারাধীন। এ অবস্থায় তার জীবনকাহিনী নিয়ে সিনেমা তৈরি করলে মামলাটির বিচারকাজে ও তদন্তে প্রভাব পড়তে পারে। এ কারণেই এ সংক্রান্ত জারি করা রুল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত জাহালম নিয়ে সিনেমা, নাটক, শর্টফিল্মসহ এজাতীয় কোনো কিছুই করা যাবে না বলে আদালত নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) জাহালমকে নিয়ে ছবি নির্মাণের বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা আরোপে হাইকোর্টে সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদন করেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

এর আগে, গত ১৩ মার্চ জাহালমকে নিয়ে সিনেমা তৈরির উদ্যোগ নিয়ে প্রতিবেদন একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, সোনালী ব্যাংকের সাড়ে ১৮ কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতির মামলার আসামি হলেন আবু সালেক নামের একজন। কিন্তু ২৬টি মামলায় আসামি করা হয় পাটকল শ্রমিক জাহালমকে।

দুদকের মামলায় জাহালম গ্রেফতার হন ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি। তিন বছর কারাভোগ করে হাইকোর্টের নির্দেশে গত ৩ ফেব্রুয়ারি তিনি মুক্তি পান। টাঙ্গাইলের আলোচিত সেই জাহালমের জীবনের গল্প এবার পর্দায় আসছে।

জাহালমের জীবনের কষ্টের কাহিনি নিয়ে সিনেমা নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মারিয়া তুষার। এরই মধ্যে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতিতে নাম নিবন্ধন করেছেন। জাহালমের নামের সঙ্গে মিলিয়ে ছবির নামও রেখেছেন ‘জাহালম’। তবে জাহালমই জানেন না, তাকে নিয়ে তৈরি হচ্ছে সিনেমা।

উল্লেখ্য, গত ২৮ জানুয়ারি একটি জাতীয় দৈনিকে ‘স্যার, আমি জাহালম, সালেক না’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় । সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অমিত দাশ গুপ্ত প্রতিবেদনটি নজরে আনলে গত ৩ ফেব্রুয়ারি শুনানি নিয়ে জাহালমকে ২৬টি মামলায় অব্যাহতি দিয়ে ওই দিনই মুক্তি দেওয়ার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। সেদিনই তিনি মুক্তি পান।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড