• বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন

চলে গেলেন আবরার, রেখে গেলেন অনিরাপদ সড়ক!

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৯ মার্চ ২০১৯, ১২:৩১
আবরার আহমেদ
সড়কে প্রাণ হারানো বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের ছাত্র আবরার আহমেদ। (ছবি : ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

বাসের প্রতিযোগিতার মুখে রাজধানীর এয়ারপোর্ট এলাকায় দুই শিক্ষার্থীর সড়কে প্রাণ হারানোর পর উত্তাল হয়ে উঠেছিল পুরো বাংলাদেশ। এ ঘটনায় নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে নামে দেশের শিক্ষার্থীরা। তখন নিরাপদ সড়কের দাবিতে সোচ্চার ছিলেন বিইউপির আবরার আহমেদও। তবে আজ ফের সেই একই চিত্র সড়কের। বাসের প্রতিযোগিতার মুখেই প্রাণ হারালেন আবরার, রেখে গেলেন অনিরাপদ সড়ক!           

নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের একজন প্রতিবাদী শিক্ষার্থী ছিলেন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) ছাত্র আবরার আহমেদ। তার ফেসবুক প্রোফাইলে ঢুকে এ-সংক্রান্ত তথ্য পাওয়া যায়। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজধানীর বসুন্ধরা গেট এলাকায় সু-প্রভাত পরিবহনের দুই বাসের সড়কে প্রতিযোগিতার মুখে রাস্তা পারাপার হতে গিয়ে প্রাণ যায় আবরার আহমেদের। 

আবরারের ফেসবুক প্রোফাইলে ঢুকে দেখা যায়, নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন চলাকালে তিনি আন্দোলনের প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করে তার ফেসবুক প্রোফাইল পিকচার পরিবর্তন করেন। ছবির নিচে লেখা ‘নিরাপদ সড়ক চাই’। ২ আগস্ট ছবিটি পোস্ট দেন আবরার।

এদিকে সহপাঠী নিহতের খবর পেয়ে সকাল থেকেই ওই এলাকার সড়ক অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা। এতে বসুন্ধরা গেট এলাকা থেকে রামপুরা পর্যন্ত তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা সড়ক ছাড়েননি।

গত বছর নিরাপদ সড়ক আন্দোলন বাংলাদেশে কার্যকর সড়ক নিরাপত্তার দাবিতে ২৯ জুলাই থেকে ৮ আগস্ট পর্যন্ত সংঘটিত আন্দোলন সারাদেশের গণবিক্ষোভে রূপ নেয়। ঢাকায় ২৯ জুলাই সংঘটিত এক সড়ক দুর্ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে নিহত দুই কলেজ শিক্ষার্থীর সহপাঠীদের মাধ্যমে শুরু হওয়া এই বিক্ষোভ পরবর্তীতে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ে এবং নৌমন্ত্রীর পদত্যাগসহ ৯ দফা দাবিতে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে আসে।

আন্দোলনের তীব্র চাপের মুখে ৬ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তৃতীয় মন্ত্রীসভা একটি খসড়া ট্রাফিক আইন অনুমোদন করে, যে আইনে ইচ্ছাকৃতভাবে গাড়ি চালিয়ে মানুষ হত্যায় মৃত্যুদণ্ড এবং বেপরোয়াভাবে চালিয়ে কারো মৃত্যু ঘটালে সর্বোচ্চ পাঁচ বছর কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়। যদিও আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বেপরোয়া চালনায় মৃত্যুদণ্ড দাবি করেছিল। ৮ আগস্টের মধ্যে শহরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে ওঠে। 

উল্লেখ্য, সড়কের শৃঙ্খলা রক্ষায় রাজধানীতে গত রবিবার (১৭ মার্চ) থেকে শুরু হয়েছে পঞ্চমবারের মতো ট্রাফিক সপ্তাহ। এরই মধ্যে বাসচাপায় একজন শিক্ষার্থীর মৃত্যু হল।

এছাড়া সড়ক ও গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে দুর্ঘটনা কমিয়ে আনতে ইতোমধ্যেই একটি কমিটি গঠন করেছে সরকার। ১৫ সদস্যের এ কমিটির নেতৃত্বে থাকছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি ও সাবেক নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলের ২৬তম সভায় এ কমিটি গঠন করা হয়।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ কাউন্সিল সভায় সভাপতিত্ব করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। কমিটির কার্যক্রম সম্পর্কে তিনি বলেন, কমিটি ১৪ কার্যদিবসের মধ্যে সুপারিশসহ প্রতিবেদন জমা দেবে। সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে এসব সুপারিশ একে একে বাস্তবায়ন করা হবে। 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড